ক্যাটেগরিঃ ব্যক্তিত্ব

অং সান ছাত্র জীবনে থাকিন পার্টি Thakin party নামক একটি দলের সাথে সংযুক্ত ছিল ৷ থাকিন পার্টি মায়ানমারে জাপানিদের সহায়তায় ইংরেজ বিরোধী আন্দোলন করত সে কারনে দলটি জাপানিদের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে কোন সময় বিরোধীতা করেনি ৷

তৎকালিন মায়ানমারে মুসলিম নিধনেও থাকিন পার্টির কুখ্যাতি কমছিল না ৷ 1938 সালে মৌলবাদী থাকিন পার্টির নেতৃত্বে যে দাঙ্গা হয় তাতে তিরিশ হাজার মুসলিমকে হত্যা করা হয় ৷ 1939 সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হলে ইংরেজ সরকার থাকিন পার্টির সদস্যদের গ্রেফতার শুরু করলে অং সানের নেতৃত্বে দলটির তিরিশ জন নেতা জাপানে পালিয়ে যাই ৷ জাপান সরকারের সহায়তায় তারা সামরিক প্রশিক্ষণ লাভ করে Burma Independent Army (BIA) গঠন করে ৷ অং সান তাতে মেজর জেনারেল হিসেবে নিযুক্ত হয় ৷ 1941সালে দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের সময় জাপানিরা মায়ানমারে প্রবেশ করলে তাদের সহায়ক হিসেবে Burma Independent Army (BIA) তাদের সাথে অভিযানে অংশ গ্রহন করে ৷ এই সময় জাপানি সৈন্যরা আরকানের অনেক গ্রামকে নিশ্চিহ্ন করে কারবালাই আরকান গ্রন্থে তা পাওয়া যাই জাপানিদের মায়ানমারে অভিজানের আমন্ত্রণ জানানোর আবদান ছিল মুলত থাকিন পার্টির নেতাদের তাদের এই কাজ অনেকটা খাল কেটে কুমির আনার মত কাজ ছিল ৷ তার এই অবস্থায় খুশি খাকলেও ক্রমে ক্রমে মায়ানমার রাষ্ট্র ক্ষমতায় জাপানিদের নিয়ান্ত্রন প্রতিষ্ঠা হয় এবং মায়ানমার একটি জাপানের উপনিবেশ রাজ্যে পরিনত হয় ৷ 1945 সালে Burma Independent Army (BIA) বিদ্রোহ করে এবং তারা ইংরেজ সরকারের সাথে চুক্তি করে যে মায়ানমারকে পূর্ন স্বাধীনতা দিতে হবে ৷ এরপর 1945 সালের আগষ্টে অং সান Anti Fascit Peoples Freedom League গঠন করে বৃটিশ গর্ভনর এর অধিনে প্রধানমন্ত্রী হিসেব নিয়োগ পাই ৷ এই অং সানই হচ্ছে মায়ানমারের নোবেল বিজয়ী নেত্রী অং সান সুচির পিতা ৷