ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

 

আমার এক বন্ধুর কাছ থেকে ঘটনাটি শুনলাম আসলেই খুব কষ্ট পেলাম ঘটনাটি শুনে। আজও এমন ঘটনা ঘটে ভাবতে অবাক লাগে। (ঘটনাটি ঘটেছে যশোর এম এম কলেজে)

আজ সকালে আমার এক বন্ধু প্রতিদিনের মত কলেজে গিয়েছিলো স্যারের কাছে পড়তে , পড়া শেষে প্রতিদিনের মত কলেজের আসাদ গেটে বাবলুর চায়ের দোকানে বসে আড্ডা দিচ্ছিলো হটাৎ ওর বন্ধু মামুনের পায়ের দিকে তাকিয়ে দেখে ও আজও খালি পায়ে কলেজে এসেছে। এর আগে ও একদিন খালি পায়ে দেখছিল জিজ্ঞাসা করায় ও বলেছিল ওর নাকি জুতা পরতে ভালো লাগে না তাই ও আর জুতা পরবে না । কিন্তু আজ আবার দেখার পর আমার বন্ধুর মনে কৌতুহল জাগল যে আজ ওর হঠাৎ জুতা না পরার কাহীনি জানতেই হবে ।অনেক অনুরোধ করার পর ও যা বলল তা সত্যিই বড় করুন । মামুন অনেক দিন থেকে একটি মেয়েকে ভালোবাসত কিন্তু বলতে পারিনি যাইহোক আজ থেকে প্রায় ৮/৯ মাস আগে কোন এক ঘটনার মধ্য দিয়ে ওদের রিলেশন হয় । মামুন মেয়েটিকে প্রচুর ভালোবেসে ফেলে।

এভাবে বেশ চলছিল ওদের রিলেশন । কিন্তু মেয়েটি মামুনকে মন থেকে কোন দিন ভালবাসেনি । তাই তো ওদের মাঝে ভাঙ্গনের সূত্রপাত ঘটে । মেয়েটি মামুনকে বিভিন্নভাবে অপমান অপদস্ত করতে থাকে ওদের রিলেশন ব্রেকআপ করার জন্য কিন্তু বেচারা মামুন মেয়েটিকে অনেক ভালোবাসত তাইতো নিজের ভালবাসার প্রমান দিতে যশোর শহরের শত শত মানুষের সামনে মেয়েটির পা জড়িয়ে ধরে কাদতে কাদতে বলেছিল আমাকে ছেড়ে যেওনা , আমি তোমাকে অনেক ভালবাসি ।

হায়রে পাষানির মন গলল না তাতে ও । মেয়েটি মামুনকে ছেড়ে চলে গেল । মেয়েটি মামুনকে একদিন বলেছিল আমি না থাকলে তুমি কি করবে যাতে আমার কথা তোমার মনে থাকে। উত্তরে মামুন বলেছিল কমপক্ষে একমাস ভাত খাবনা এবং খালি পায়ে হাটব ।মামুন তার ভালবাসার মানুষ দেওয়া কথা রাখার জন্যই খালি পায়ে হাটে । মেয়েটি হয়ত কোনদিন ভূলেও মামুনকে মনে করবেনা কিন্তু মামুন ঠিকই তার কথা রাখছে আর মেয়েটি হয়ত কোনদিন জানতে ও পারবে না ।মামুনকে অনেকবার জিজ্ঞেস করেছিলো মেয়েটির নাম ঠিকানা কিন্তু মামুন বলেনি । হায়রে নারী……..। পৃথিবীতে আজও মামুনের মত ছেলেরা আছে বলেই ভালবাসা বেচে আছে ।

মামুন সালাম তোমায় তোমার ভালোবাসাটা মেয়েটি বুঝতে পারেনি