ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

বাংলা একাডেমী আমাদের বাংলাভাষীদের একটি অবিসাংবাদিত তীর্থস্থান।।

ভাষা মানুষের আত্নপরিচয় ও সংস্কৃতির হাতিয়ার। আর সেই ভাষা কেন্দ্রিক যে সব ব্যক্তি কিংবা প্রতিষ্ঠান কাজ করে তাদের প্রধান ও মৌলিক কর্মকাণ্ড ভাষাকে বাঁচিয়ে রাখা এবং একই সাথে জাতির প্রয়োজন মুহূর্তে গর্জে উঠা।

ফেব্রুয়ারী মাস জুড়ে বাঙালি অমর একুশে বই মেলাকে ঘিরে মেতে উঠে তার প্রাণেরই তাগিদে। কি যেনও এক অজানা ভালো লাগা, নাকি আত্নপরিচয় এর মুগ্ধতায় ছুটে যায়।।

১৬ই ডিসেম্বর, ২১শে ফেব্রুয়ারী, ১লা বৈশাখ উদযাপন আমাদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে।।

একটি মুক্ত সমাজ ও প্রগতিশীল রাষ্ট্র তখনি গরে উঠে যখন তার ভিতরকার মাধ্যমগুলো জনমানুষের মুখপাত্র হয়ে উঠে। মানুষের দুখে সেও কেঁদে উঠে, মানুষের বেদানায় সেও আর্ত হয়ে উঠে।। আর কেও যখন জেগে না উঠে ভাষা, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য কেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠান গুলো জাতির বিবেকের নেয় জেগে উঠে, প্রতিবাদ করে—মানুষকে সাহস যোগায়, পথ দেখায়।।

আমরা প্রতিনিয়ত মুক্ত সমাজ, মুক্ত গণনমাধ্যম, প্রগতিশীল চিন্তা ভাবনার কথা বলি।।

অথচ, জাতি হিসেবে কি নিষ্ঠুর পরিহাস— আমাদের সেই সব প্রতিষ্ঠান আজ ব্যক্তি তুষ্টতায় ব্যতিবেস্ত!!??

আজ তিতাস মরতে চলেছে, মরতে চলেছে সুরমা কুসিয়ারা, মরছে মানুষ সীমান্তে পাখির মত, ফেলানিরা ঝুলছে।।

যে মাঝি গান ধরত শরতের রাতে, কিঙবা যে জেলে তার সন্তানদের ঘুম পাড়িয়ে এসেছে নদিতে মাছ ধরে তাদের খাওয়াবে বলে কিংবা যে কৃষক তার লাঙলের ফলায় সবুজ প্রান্তর নদি থেকে পানি নিয়ে বুনবে বলে অথবা যে পাখির দল নদির বুকে উড়ে যেতে গাইবে গান—সকলে আজ বোবা কান্নায় কষ্টের রোদে ছলছল চেয়ে আছে।।

সীমান্ত পাড়ি দিয়ে যে মেয়েটি বিয়ে হবার আগেই ভারতের বুলেটে ঝুলে পড়েছে কাঁটা তারের বেড়ায়—তাহলে কি ঝুলছে আমার প্রিয় বাংলাদেশ ঐ সাম্রাজ্যবাদের থাবায়???

প্রতিনিয়ত মানুষ গুম হচ্ছে–কেও জানে না আজ বাসা থেকে বের হলে সে ফিরবে কিনা?।–তার ভাই ফিরবে কিনা কিঙ্গা বোনটি ফিরবে কিনা ইভটিজিং এর ভয়াল থাবা থেকে!!

এই রকম এক অন্ধ সময়, অন্ধ সমাজে প্রতিবাদি মানুষেরা আজ রাষ্ট্রীয় নির্মম সন্ত্রাস ও অত্যাচারে ভীতসন্ত্রস্ত।

খুনির আসামি রাষ্ট্র প্রধান ও প্রধানমন্ত্রির আনুকূল্যে সমাজে দাপড়ে বেড়ায়। ঢাকা, যশোর, নাটোর যেনও আজ খুনিদের অভয়ারান্য।।

এই সমাজ বাস্তবতায় বাংলা একাডেমীর মত একটি প্রতিষ্ঠান কি করে একজন খুনি, মিথ্যাবাদী, দালাল কে ফেলোশিপ দিতে পারে!!!??? আমাদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের ধারক এই সব প্রতিষ্ঠান গুলো কি ভেড়ার পালে ভরে গেছে?।।

আমাদের বঙ্গীয় সমাজে কি আজ লেজ কাঁটা দের অনেক ডিমান্ড!!!

আমাদের আত্ন মর্যাদার সব প্রতিষ্ঠান গুলো আজ ধুলিস্যাত হতে চলেছে??

হে, তরুণ আজকে আমাদের চুপ করে বসে থাকার দিন???—-আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি সাম্রাজ্যবাদিদের এ দেশীয় দোসর ও ভারতের দালালদের হাতে প্রতিনিয়ত ধর্ষিত হয়ে চলেছে।।

আজ আমাদের গর্জে উঠার দিন—প্রিয় মাতৃভূমিকে স্বাধীন করে আমাদের আজ নিজেদের পায়ে দাঁড়াবার দিন।।

আসবে কি তুমি?? তুমি না জাগলে তো বাঙ্গালী জাতি সেই তিমিরেই পড়ে থাকবে, হারিয়ে যাবে সাম্রাজ্যবাদের কালো থাবায়।

তুমি কি বদলে দিবে বাংলাদেশ??