ক্যাটেগরিঃ ব্লগালোচনা

 

নিজের ভাবনাগুলো ছড়িয়ে দেয়ার বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে, তার মধ্যে সর্বোৎকৃষ্ট মাধ্যম হচ্ছে এই ব্লগ ব্যাবস্থা । এর মাধ্যমে আমরা আমাদের সৃজনশীলতা অপরের সাথে ভাগাভাগি করতে পারি এবং অন্যের কাছে নিজের গ্রহন যোগ্যতার বিচার করতে পারি ।

গ্রহন যোগ্যতা বিচারের মাপকাঠি হলঃ

১। কতজন লোক উক্ত প্রবন্ধটি পড়েছে,
২। মন্তব্যের মাধ্যমে কতজন লোক তাদের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে,
৩। + এবং – চিহ্নে ক্লিক করার মাধ্যমে তাদের ভাল লাগা, মন্দ লাগা জানিয়ে দেয়ার মাধ্যমে ।

এছাড়াও এই প্রবন্ধটি কতজন লোক তাদের বন্ধু-বান্ধব দের সাথে শেয়ার করার উদ্দেশ্যে ফেসবুক, টুইটার, এবং গুগল প্লাসে প্রকাশ করেছে ।

ব্লগ কতৃপক্ষ এই মাপকাঠি গুলোকে ভিত্তি ধরে সর্বাধিক পঠিত এবং সর্বাধিক আলোচিত প্রবন্ধ গুলোকে একটা বিশেষ কোঠায় স্থান দেয় । পাঠক গন যাতে প্রয়োজনীয় এবং তথ্যবহুল লেখাগুলো থেকে উপকৃত হতে পারে ।

এই আন্তঃজালকিয় ব্যবস্থায় সমগ্র পৃথিবীতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে লক্ষ-কোটি ব্লগ প্লাটফর্ম । বিডিনিউজ২৪ডটকমও হচ্ছে তেমনি একটি প্লাটফর্ম যেখানে আমরা আমাদের ভাবনাগুলো অন্যের সাথে ভাগাভাগি করি । আমরা সবাই একে সংক্ষেপে বিডি ব্লগ বলেই সম্বোধন করি । বিডি ব্লগ অর্থাৎ বাংলাদেশের ব্লগ ।

অত্যন্ত মান সম্পন্ন ব্লগার, উন্নত মডারেশন পদ্ধতি, ব্লগ কতৃপক্ষের সাথে তাৎক্ষনিক যোগাযোগ ব্যবস্থা ইত্যাদি সুবিধার কারনে বাংলা ভাষাভাষী মানুষের কাছে এই বিডি ব্লগ অতি দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ।

দ্রুত জনপ্রিয়তার কিছু কুফল সবসময় রয়েছে তা এখানেও পরিলক্ষিত হচ্ছে । যেমনঃ

১। অপরিপক্ক ব্লগারদের অংশগ্রহন,
২। একদল লেখক একযোগ হয়ে গ্রুপিং,
৩। নিম্নমান সম্পন্ন পাঠকদের অশ্লীল মন্তব্য ইত্যাদি ।

সম্প্রতি বিডি ব্লগে সবকিছু ছাপিয়ে যেই সমস্যাটি প্রকট হয়ে উঠেছে তা হচ্ছে, কিছু অসৎ প্রকৃতির লোক অপ্রয়োজনীয় অথবা তাদের পছন্দনীয় প্রবন্ধগুলোকে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে বেশি পঠিত হিসেবে জাহির করতে চাইছে । এতে করে যেই সমস্যাগুলো হচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম হলঃ

১। তথ্যবহুল এবং প্রয়োজনীয় প্রবন্ধগুলি সর্বাধিক পঠিতের লিস্ট থেকে হারিয়ে যাচ্ছে,
২। অপ্রয়োজনীয় প্রবন্ধগুলো উক্ত কোঠা দখল করছে,
৩। এতে করে উক্ত অপ-লোকগুলো একটা প্লাটফর্মকে তাদের দখলে নিতে চাইছে । এবং সামগ্রিকভাবে একটি প্লাটফর্মের গুনগত মান কমিয়ে দিচ্ছে ।

উৎস এবং অবস্থানঃ

এই অপকর্ম বিগত কয়েক দিন ধরে প্রকট হয়ে উঠলেও এর সৃষ্টি অনেক আগেই হয়েছে ।

সর্বাধিক আলোচিতের কোঠায় সর্বচ্চো চূড়ায় যেই প্রবন্ধ দুটি রয়েছে তাদের মোট পঠিত হওয়ার সংখ্যা যথাক্রমে,

১। ১৬৪৩৪ (এখানে ১০,০০০ এর মত অতিরিক্ত সংখ্যা এসেছে স্বয়ংক্রিয়ভাবে, লেখক নিজেই তা স্বীকার করেছেন ।)
এবং
২। ৬৮১৫ ।

হঠাৎ করে এটি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে আসার কারনঃ

গত ১৯ অক্টোবর ২০১১ তারিখে একজন ব্লগার সত্যান্বেষী এর মন্তব্যের উত্তরে আমি বলেছিলাম,

MF তে Auto Mouse Clicker ব্যাবহার করে অথবা Opera ব্রাউজার এ 40-50 টা ট্যাব ওপেন করে অটো রিলোড অন করে রাখলে । 2 ঘন্টার মধ্যে 200 বার রিলোড করা যাবে । তাহলে টোটাল 10,000 বার পড়া হয়েছে দেখাবে ।

এইটা ছিল স্রেফ একটা প্রতিবাদ, যখন সত্যান্বেষী আমার কাছে এসে অন্য একজন ব্লগারের গুনগান গাইছিল ।

কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে দেখা গেছে, আমার এই মন্তব্য প্রকাশের পরপর কিছু বিপথগামী ব্যাক্তি তার প্রয়োগ শুরু করেছিল ।

যার প্রমান ঘটেছিল এই প্রবন্ধেঃ http://blog.bdnews24.com/ahmedsharif/43852

বিষয়টা হয়তো একজনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকত কিন্তু ব্লগার মুশফিক বিষয়টা সবার নজরে নিয়ে আসে এবং ঘোষনা করে,

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ সকলে দেখুন আহমেদ শরীফ নামক মিথ্যাবাদী মুসলিমের অটোরিফ্রেশ করার বদমায়েশি আহমেদ শরীফ তার সস্তা লেখাটি অটো রিফ্রেশ করে ৮৯৩৯ বার পঠিত বলে দেখানোর চেষ্টা করছে। আধারের বাসিন্দার কাছ থেকে এই টেকনিক শিখেছে। এই ব্যাপারে একটি মন্তব্য প্রকাশ করেছিলাম এবং বিডিনিউজ২৪ ব্লগটিমের কাছে অভিযোগও পাঠিয়েছি এই মর্মে যে – অবৈধ উপায়ে আহমেদ শরীফের অপাঠ্য লেখাটির পেজ হিট বাড়ানোর দায়ে তাকে এই ব্লগ থেকে ব্যান করা হোক, নয়তো টপ টেন লিস্ট হতে তার লেখাটি অপসারিত করা হোক। কিন্তু এখনো উত্তর আসেনি। সেজন্য আহমেদ শরীফের মত আমিও অটো রিফ্রেশ ব্যবহার করলাম। যেই মুহূর্ত থেকে তার অটোরিফ্রেশ দেওয়া লেখার জন্য সে ব্যান হবে বা তার লেখা অপসারিত হবে, সেই মুহূর্ত থেকে আমি অটো রিফ্রেশ স্টপ করে দেব। সকলকে ধন্যবাদ।

এবং সে তার প্রবন্ধটিতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ১০,০০০ এরও বেশি অতিরিক্ত পঠন সংখ্যা যোগ করতে সমর্থ হয় । তার লিঙ্ক হচ্ছেঃ http://blog.bdnews24.com/dr_mushfique/42790

সে তার মন্তব্যের মাধ্যমে এই অপকর্মটি শুরু করে ২০ অক্টোবর ২০১১, বৃহস্পতিবার সময় সন্ধ্যা ৬:৪৩ সময়ে ।

তারপর এই হীন কর্মের শুরু করেন, লিটনের ব্লগ নামক নিক নিয়ে আসা ব্লগার । তার ব্লগটি হচ্ছেঃ http://blog.bdnews24.com/litonliton/44395

সে এই অপকর্মের শুরু করে ২০ অক্টোবর ২০১১, রাত ১০:০৮

তাহলে দেখা যাচ্ছে মুশফিকের ঘোষনার পরই লিটন নামের ঐ ব্লগার তার অপকর্ম শুরু করে ।

বাংলা প্রতিদিন নামক নিক নিয়ে আসা আরেকজন ব্লগার তার মন্তব্য আকৃতির পোষ্টটি প্রকাশ করেছিল ২০ অক্টোবর ২০১১, বৃহস্পতিবার, দুপুর ২:৫২ তার সেই প্রবন্ধের লিংক হচ্ছেঃ http://blog.bdnews24.com/vvvvvvv/44261

এটি কিন্তু ২০ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ৫০ বারের মত পঠিত ছিল । কিন্তু এমন কি হল যে রাত ১২ তার মধ্যে এটা ২০০০ বারের বেশি পঠিত হয়ে সর্বাধিক পঠিত কোঠায় স্থান করে নিল?

উত্তর হচ্ছে নিঃসন্দেহে সে স্বয়ংক্রিয় কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেছিল ।

এই গেল ২০ অক্টোবরের ঘটনা ।

তারপর গেল ২১ অক্টোবর রাত ১০:৫৩ মিনিটে মোসাদ্দিক উজ্জ্বল নামক ব্লগার এই অপ ব্যবস্থা সম্পর্কে সমালোচনা করে একটি প্রবন্ধ প্রকাশ করে http://blog.bdnews24.com/UZZAL/44675

দেখা গেল সকাল হতে না হতে তার লেখাটি ৫১৫১ বার পঠিত হয়েছে । সে যেহেতু সমালোচনা করেছে, সে নিশ্চয়ই এটা করেনি । তাহলে এটা হল কিভাবে?

এবং ঠিক এমনিভাবে, আমার লেখা একটা প্রবন্ধ যেটা গতকাল রাত ১২:০০ টা পর্যন্ত ২১০০ এর মত পঠিত দেখাচ্ছিল সেটা হয়ে গিয়েছে ১৮৫৭১ । কি অবিশ্বাস্য একটি ব্যাপার ।

এটা নিঃসন্দেহে অন্য কারো কারসাজি । এটা কিছুতেই হতে পারেনা ।

লিটনের ব্লগ এবং বাংলা প্রতিদিন, এরা যথাক্রমে গড়ে ২০০০ এর মত পঠন সংখ্যা বৃদ্ধি করতে পেরেছিল ।

আমার যেই প্রবন্ধটি ছিল সেটি দুই দিন আগে প্রকাশিত হয়েছিল এবং প্রায় ১০০ টি মন্তব্য পরেছিল । এবং এরই ধারাবাহিকতায় ২১০০ এর বেশি পঠিত হয়ে সর্বাধিক পঠিত কোঠায় স্থান করে নিয়েছিল । তাহলে এর পঠন সংখ্যা বৃদ্ধি করার আমার কোন প্রয়োজন ছিল না । সুতরাং আমি নিশ্চিতভাবেই এই কাজ করিনি । আর গতকাল রাতে আমি যখন ঘুমাতে যাই তখনও আমার লেখাটির পঠন সংখ্যা ২২০০ এর মত ছিল । কিন্তু আমি ঘুম থেকে উঠে দেখি অলৌকিক ভাবে সেটা বেরে ১৮৫৭১ হয়ে গিয়েছে । এটাযে অন্য কারো কারুকার্য তা নিশ্চিতভাবেই বুঝা যায় ।

পরিনতিঃ

১। এই হীন কর্মের ফলে অনেক অপ্রয়োজনীয় প্রবন্ধ প্রথম শ্রেনীতে এসে পরবে এবং কিছু অপ-ব্লগার তাদের অপ-ব্যবস্থার মাধ্যমে জনপ্রিয়তা লাভ করতে চাইবে,

২। সবচেয়ে করুন বানী হচ্ছে ব্লগ কতৃপক্ষ ইচ্ছা করলেও এই সমস্যা সমাধানে কোন আশু পদক্ষেপ নিতে পারবে না,

৩। ব্লগ কতৃপক্ষ ইচ্ছা করলেও অনেক সময় শনাক্ত করতে পারবেনা এই পঠন সংখ্যা আসল না নকল । (কারন মুল IP কে দুই বা ততোধিক মাস্ক পরালে সে ব্লগার নিশ্চিতভবেই নিজের পরিচয় গোপন করতে পারবে ।)

এই অপকর্ম রুখতে আমাদের মানসিকতাই যথেষ্ঠ । সবার সহযেগিতা একান্ত কাম্য ।

সবাইকে ধন্যবাদ ।

[ব্লগের নিজস্ব পরিসংখ্যান যা কেবলমাত্র মডারেটর এবং ডেভলপাররা জানেন – সেসব নিয়ে পরিবেশিত বিভ্রান্তিমূলক তথ্য সম্পাদনা করে বাদ দেয়া হয়েছে। এছাড়া ব্যক্তি বিদ্বেষপ্রসূত অভিযোগও প্রকাশ করা হলো না – ব্লগ টিম]