ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

Bangladesh Black HAT Hackers(BBHH) এর অফিসিয়াল ফেসবুক পেজটি শুরু হয়েছিল এ বছরের জানুয়ারী মাসের শুরুর দিকে । তারপর তারা বাংলাদেশ, ইন্ডিয়া, চায়না সহ বেশকিছু দেশের ওয়েবসাইট হ্যাক করে এবং তাদের ফেসবুক পেজে সেই সংক্রান্ত নিউজ প্রকাশ করে ।

জানুয়ারী মাসের শেষ সপ্তাহে তারা ঘোষণা করে যে তারা এখন থেকে শুধু ইন্ডিয়ান সাইট হ্যাক করবে, বর্ডার কিলিং এবং আর কিছু ইস্যুর প্রতিবাদ স্বরূপ । এই ঘোষণা দেয়ার পর বাংলাদেশী ব্লগার এবং অনলাইন এক্টিভিস্টরা তাদের সমর্থন এবং অনুপ্রেরণা দিতে থাকে । ব্লগে এবং অনলাইন নিউজ পেপারে তাদের কর্মকান্ডের আপডেট জানানো শুরু হয় । সবকিছুই ভাল মনে হচ্ছিল তাদের প্রতিটি আপডেট আমাদের সাধারণ জনগণের জন্য এক একটি বিজয় বলে মনে হচ্ছিল । হৃদয়ে শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসার সর্বোচ্চ স্থান উন্মোচিত হয়েছিল তাদের জন্য ।

কিন্তু সবকিছুই এখন এলোমেলো লাগছে । গত (27 ফেব্রুয়ারী) সোমবারে তারা ঘোষণা দেন যে ইন্ডিয়ার সাথে সাইবার যুদ্ধের সমাপ্তি ঘটাচ্ছে তারা । কারণ হিসেবে তারা বলেছে গত 24 ফেব্রুয়ারী সাহারা খাতুনকে ইন্ডিয়ান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদাম্বরম আশ্বাস দিয়েছেন যে সীমান্ত হত্যা শূন্যের কাছাকাছি নামিয়ে আনা হবে । এই ঘোষণার পরপর অনেকেই অনেক কথা বলেছে, অনেক ইতিবাচক-নেতিবাচক কথাও এসেছে । তবে আমি মনে করি সুশীল সমাজের অনেকেই এটা চাচ্ছিলেন । কারণ অতিরিক্ত কোনও কিছুই ভাল না ।

ইন্ডিয়ার সাথে সাইবার যুদ্ধের সমাপ্তির পর তারা তাদের নতুন কার্যক্রম ঘোষণা করেছে, যেটা মোটেই ভাল ঠেকছেনা । গতকাল(27 ফেব্রুয়ারী) তারা ঘোষণা দিয়েছে তাদের নতুন যুদ্ধ হচ্ছে দুর্নীতির বিরুদ্ধে । ব্যাপারটা একটু বেখাপ্পা মনে হচ্ছে । তাদের অতীত বর্তমান সবকিছুই প্রমাণ করে যে, তারা হচ্ছেন হ্যাকার নামক চুরি বিদ্যার আর্টিস্ট । দুর্নীতি বা রাজনীতি বিষয়ক কার্যক্রমের সাথে তারা কিছুতেই মানানসই না ।

গতকালের একটি পোস্টে তাদের ঘোষণা এইরকম,

কিন্তু এখন সময় নিজেদের দিকে তাকানোর ।দেশের রাজনৈতিক কর্মী-আমলা আর দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়ানোর,ভারতীয় পণ্য বর্জন , ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল বাংলাদেশে সম্পূর্ণ বন্ধ । নিজেদের সংস্কৃতি ধরে রাখার যুদ্ধ । তারা দেশ টাকে নিজের বাপের সম্পত্তি হিসেবে ধরে নিয়েছে । দেশের মানুষ না খেয়ে মরে,তাদের কোন বিকার নেই…

নতুন যুদ্ধের অংশ হিসেবে, এখন কী তারা বাংলাদেশের ওয়েবসাইট হ্যাক করা শুরু করবে নাকি?

তাদের ঘোষণার আরেকটি অংশ হচ্ছে এইরূপ:

আমরা প্রায় ১০,০০,০০০+ internet/Fb USER এক সাথে জেগে উঠলে জাগরণ হবে । কিছুদিন আগে লিবিয়া এই দৃষ্টান্ত দেখিয়েছে । বন্ধু,এখনি সময়……………

তাদের বর্তমান আচরণ এবং বাক্যবানে সবকিছুই দিনের আলোর মত পরিষ্কার দেখাচ্ছে । আমরা এখন, দীপু মনির সেই উক্তিগুলো স্বরণ করতে পারি । ওই সময় দীপু মনির সমালোচনা করলেও, সময়ই তার বাস্তবতার প্রমাণ দিচ্ছে ।

তাদের প্রকাশ করা কিছু ছবি দেখুন:

এই ছবিগুলোই তাদের উদ্দেশ্য প্রমাণ করছে ।

এইটা দিব্যলোকের মতই পরিষ্কার যে, ছাগুরা তাদের ল্যাঞ্জা কখনো লুকিয়ে রাখতে পারেন । আজ হোক, কাল হোক উন্মোচিত হবেই ।