ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

 



| উবুন্টু ১১.১০ রিলিজ পার্টি… |

এই কম্পুকানা আমাকে কেউ যদি প্রশ্ন করেন- উবুন্টু কী ? সোজা একটি লিংক ধরিয়ে দেবো মাতৃভাষা বাংলায় যেখানে খুব সুন্দর করে উদাহরণসহ ব্যাখ্যা করে বলে দেয়া হয়েছে। শুধু ওইটুকু পড়লেই আপনারা নিশ্চয়ই বুঝতে পারবেন কেন আমি উবুন্টু তথা লিনাক্স ইউজারদের সম্মান করি।

মানুষ যতক্ষণ নিজেকে মুক্ত ভাবতে পারে না, ততক্ষণ পর্যন্ত আসলে তার মানুষ পরিচয়টা পূর্ণাঙ্গ হয় না বলে আমি বিশ্বাস করি। তাই একটা অসীম সম্ভাবনাময় মুক্ত সত্তা হয়ে মানুষের জন্ম হলেও জন্মের পরপরই সে বন্দী হয়ে যায় ইতঃপূর্বে জন্ম নেয়া অন্য কিছু মুনাফা ও ক্ষমতালোভী মানুষেরই জন্য। আবার কিছু সংখ্যক মানুষ থাকেন যাঁরা এই বন্দীত্বকে মুক্ত করতে নিজেকে নিয়োজিত করেন নৈতিক ও মানবিক বোধে তাড়িত হয়ে। এটাই মানবসমাজের এযাবৎ ইতিহাস। অতিমুনাফার সর্বগ্রাসী লোভ বড় শক্ত জিনিস, এ থেকে মুক্ত হওয়ার নৈতিক শক্তি অর্জন করতে দরকার সেই মানবিক বোধ যা দিয়ে মানুষকে মুক্ত স্বাধীন ও সৃজনুন্মোখ মানুষ হিসেবে স্বীকার ও স্বীকৃতি দেয়ার বিবেচক অবস্থান সৃষ্টি করা। যেকোন অবস্থার জন্যেই তা সত্য, এবং এই তথ্য-প্রযুক্তির যুগে প্রযুক্তির ক্ষেত্রে তো তা আরো বেশি প্রযোজ্য হওয়া উচিত ! বিশ্বমানব আজ যে ভয়ঙ্কর তথ্যবন্দীত্বের অনৈতিক শৃঙ্খেল আবদ্ধ হয়ে গেছে, স্বাধীন সত্তা হিসেবে মানুষের মুক্ত হওয়া জরুরি আজ। কেননা মানুষ আর রোবট এক নয় ! মানুষের সৃজনশীল উত্থানকে রুদ্ধ আর ধ্বংস করে চাপিয়ে দেয়া দাসত্ব শেষপর্যন্ত মানুষকে অন্যের ক্রীড়নক বানিয়ে দেয়। ধ্বসে পড়ে নীতিবোধ, মানবিক উন্মেষ আর সৃষ্টি হতে থাকে দাসানুরূপ মানব-রোবট প্রজন্মের। মানুষকে এই রোবট বানানোর প্রযুক্তি-সন্ত্রাসের প্রতিরোধে তাই মানুষকেই এগিয়ে আসতে হয় তাঁর সৃজনশীল প্রযুক্তির মুক্ত সত্তা নিয়ে। ওপেন সোর্স, মুক্ত সফটঅয়্যার কিংবা লিনাক্স ওস এরকমই একেকটা মুক্ত-মানবিক আন্দোলন, যাদের মধ্যকার আন্তসম্পর্ক নিবিড় ও মানবিক। ফলে ব্যক্তি হিসেবে হতে পারি আমি কম্পুকানা, কিন্তু মানুষ তো ! মানবিক বোধের শেষ বিন্দুটুকু থাকতেও আমরা কি চুপ করে থাকতে পারি ! মানুষ হিসেবে আমার ও আমার উত্তর প্রজন্মের অধিকারবোধটুকু প্রতিষ্ঠায় যাঁরা নিজেদের নিয়োজিত করে, তাঁদেরকে সমর্থন ও সহযোগিতা করাও আমার নৈতিক দায়িত্বের অংশ। তাই কোথাও একটু পাতা নড়লেই কোন ব্যক্তিগত সীমাবদ্ধতার কারণে প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ করতে না পারলেও আমার সমর্থনটুকু জানাতে দ্বিধা করবো কেন ! এই পোস্টও এরই বহিঃপ্রকাশ।

জানতে পারলাম সর্বশেষ ডিস্ট্রো উবুন্টু ১১.১০ এর একটি রিলিজ পার্টি হতে যাচ্ছে ২৮ অক্টোবর ২০১১ শুক্রবার বিকেল ৩.৩০ টায় ঢাকার শাহবাগ এলাকায় ছবির হাটে। আপনারা জানেন কি ? আয়োজনটা করছে উবুন্টু বাংলাদেশ লোকো টিম।

আয়োজনের বিস্তারিত :
আয়োজনের তারিখ: ২৮শে অক্টবোর ২০১১ ইং রোজ শুক্রবার।
আয়োজনের স্থান: ছবির হাট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।
আয়োজনের সময়: বিকাল ৩:৩০

আয়োজনের যা যা থাকবে

আয়োজনের একটি ব্যানার
উবুন্টু (উবুন্টু বাংলাদেশে লোকো টিমও হতে পারে) লোগো সহ একটি কেক
উবুন্টু ১১.১০ এর রাইট করা সিডি/ডিভিডি (ডিভিডিতে কিছু প্রয়োজনীয় প্যাকেজ দেওয়া থাকবে)
অংশগ্রহনকারীদের জন্য স্ন্যাক্স
কোমল পানীয়
ইন্সটলেশন এবং সাপোর্ট। উবুন্টু ১১.১০ অথবা অন্য যেকোন উবুন্টু সংস্করন ইনস্টল করে দেওয়া হবে, এবং উবুন্টু সম্পর্কিত সমস্যার সমাধান এবং পরামর্শ দেওয়ার চেষ্টা করা হবে।

নিবন্ধনের জন্য এখানে আপনার তথ্য দিন। নিবন্ধনের শেষ সময় ২৬ শে অক্টবোর ২০১১ ইং, রোজ বুধবার।

আয়োজনে দেশের সকল উবুন্টুপ্রেমী তথা লিনাক্সপ্রেমীদের সতস্ফূর্ত অংশগ্রহন কামনা করছি।

শেষে এটুকু না-বললেই নয়, আপনাদের উজ্জ্বল উচ্ছল তারুণ্যের সাহচর্য্যে আমিও আমার তারুণ্যটাকে হাতের মুঠোয় ধরে রাখতে পারি। এবং ভুলে যাই আসলেই আমি এক কম্পুকানাই ! হা হা হা !

সংযুক্তি : ( লিনাক্সের বন্ধুদের সহায়তায় দুটো বাংলা গাইড পেয়েছিলাম পিডিএফ ভার্সন, চাইলে যে কেউ নামিয়ে নিতে পারেন।)

১) উবুন্টু টিউটোরিয়াল বাংলা ৯.০৪

২) লিনাক্স মিন্ট টিউটোরিয়াল বাংলা ৮.০