ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

একটি ছোট পোস্ট দিলাম না দিলেও চলতো কারন এই বিষয়টা নিয়ে অনেক বার লেখা লেখি হয়েছে অনেক ব্লগে। কিন্তু চিন্তা করলাম এটা এমন একটা বিষয় যেটা আমার আপনাদের কে আবারো জানানো দরকার, যেনো আপনারা সচেতন হতে পারেন।

আজকে আমি আর আমার কাজিন তার গাড়িতে করে আমাদের বাসার দিকে আসছি ,পথিমধ্যে আমরা একটা নামি সি-এন-জি স্টেশন থেকে গ্যাস নিলাম আমাদের বিল আসলো ২৯১.৩০ টাকা, সাধারণভাবে যে কর্মী গাড়িতে গ্যাস ভরে উনি আবার বিলটা লিখে দেয় কাউন্টারে জমা দেওয়ার জন্য, উনি বিল লিখলো ২৯২ টাকা মানে ৭০ পয়সা বেশী। আমি কাউন্টারে গেলাম ৩০০ টাকা নিয়ে বিল দিতে ,ক্যাশিয়ার আমাকে ৮ টাকার বদলে ফেরত দিলো ৭ টাকা কারন তাদের কাছে ১ টাকার ভাংতি কয়েন নেই।

তারমানে তারা আমার কাছ থেকে সর্বমোট ১ টাকা ৭০ পয়সা বেশী নিয়ে নিলো। চিন্তা করেন প্রতিদিন যদি সব গাড়িগুলোর সাথে এরকম করে তারা পয়সা নিয়ে থাকে, তাহলে বৎসর শেষে তাদের কতো লাভ থাকে এবং এরকম ঘটনা প্রতিদিন অহরহ হয়ে থাকে অনেকের সাথে।

ছোট একটা উদাহরণ দিয়ে শেষ করছি ,আমাদের পাড়া বা মহল্লার দোকান গুলোতে কিন্তু এই কালচার শুরু হয়ে গিয়েছে। ১ টাকা ভাংতি না থাকলে তারা একটা চকলেট দেয়, ওই চকলেট টার দাম বড়জোর ৩০ কি ৪০ পয়সা।

সত্যি বলতে হবেরে ভাই, আমাদের দেশী ভাইদের মাথায় ব্যাবসায়িক ঘিলুর পরিমাণটা একটু বেশী।