ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

প্রসঙ্গ সানি লিওনের বাংলাদেশ আগমন … ও আমার ছোট বেলার স্কুলের একটি ঘটনা

অনেকেই সানি লিওনের বাংলাদেশ আগমনের বিরোধিতা করছেন এভাবে, উনি আসলে নাকি বাংলাদেশ ধর্ষণের দেশে পরিণত হবে … আমি এই ধারণার ঘোর বিরোধী … কানাডার এই পর্ন অভিনেত্রী বাংলাদেশে আসার সাথে … দেশে ধর্ষণ সংখ্যা বাড়া না বাড়ার কোন সম্পর্ক আছে বলে মনে হয় না …
.
সানি আসার বহু আগেই আমরা এই পৃথিবীর বুকে কিছু রেয়ার কান্ট্রি গুলোর মাঝে অন্যতম … যে দেশে ৭ বছরে শিশুও ধর্ষিত হয় … প্রতি মিনিটে ৭ জন নারী সেক্সুয়াল হ্যারেজমেন্টের শিকার হয় আর প্রতি ৩৫ মিনিটে ২ জন হয় ধর্ষণের শিকার …
.
তাই আমি বিষয়টা দেখছি অন্যভাবে … শুনলাম দ্যা সানি শো-এর টিকিটের দাম নাকি শুরু হবে ১৫ হাজার টাকা থেকে … ব্যাপার না … আমরা হলাম সেই মুসলিম রাষ্ট্র যারা পর পর তিন জুম্মা নামায না পড়লে মুসলিম থাকে না … এই হাদিসকে অনেক গুরুত্ব দিয়ে … সপ্তাহের বাকি দিন গুলোতে এক ওয়াক্ত নামায পড়ি বা না পড়ি … শুক্রবার ঠিক মিস দেই না … জুম্মা শেষে বাসায় গিয়ে ঠিকই টিভিতে “বেবি ডল” গানের তালে তালে সানির ড্যান্স দেখি …
.
মহানবী (সাঃ) ও হজ্জ্বকে কটূক্তি করা মন্ত্রী যেখানে বহাল তবিয়তে থাকেন … ধর্মের ধ্বজাধারীরা তখন চুপ চাপ ১৫ হাজার টাকার টিকিট কিনে এই কানাডিয়ান পর্ন অভিনেত্রীকে দেখতে যাবেন … এটাই স্বাভাবিক … যে দেশে বিনা চিকিৎসায় মানুষ মরে …
.
সেই দেশে এই কুৎসিত মহিলাকে দেখতে ১৫ হাজার টাকার টিকেট কাটা লোকের অভাব যে হবে না তা বলাই বাহুল্য … খুব সম্ভবত VIP ক্যাটাগরির টিকেটের মূল্য এক/দেড় লাখের কাছাকাছি হবে …
.
মূল কথা হল, আমরা বাঙালিরা হুজুগে বিশ্বাসী … এই যেমন পশ্চিমা বিশ্বে যা দেখি তাই ফলো করি … ফাদারস ডে … মাদারস ডে … ফ্রেন্ডশিপ ডে … থার্টি ফাস্ট নাইট … আরও কত কি … ছোট বেলায় অনুষ্ঠান বলতে জানতাম শুধু পহেলা বৈশাখী, পহেলা ফাল্গুন, ঈদ, ২১শে ফেব্রুয়ারি ইত্যাদি …
.
তাই ভবিষ্যতে আমেরিকা/
ইউরোপের দেশ গুলোর মত হয়তো আমাদের দেশের মেয়েরা হ্যাপি “টপ লেস ডে” ও পালন করবে … টপলেস ডে তে খালি গায়ে বাবা-মা, ভাইয়ের সামনে ঘুরে বেড়াবে … ন্যুড বিচে বয়ফ্রেন্ডের সাথে ন্যুড হয়ে বসে থাকবে …
.
পাশের বাড়ির রফিক সাহেব দেখবেন রহমান সাহেবের মেয়েটা ন্যুড বিচে সান বাথ নিচ্ছে … অবশ্য ওই সময় উনি নিজেও স্ত্রীর সাথে ন্যুড হয়ে বিচে বসে আছেন … পড়ে মনে হবে, ব্যাপারটা কি একটু বেশি হয়ে যাচ্ছে না? … আমাদের দেশে কি এটা সম্ভব …
.
তাহলে একটা উদাহরণ দেই … আজ থেকে ২০ বছর আগেও আমাদের দেশে কি থার্টি ফাস্ট নাইট নামে এমন কোন অনুষ্ঠান পালন করা হোত … যেখানে আলো আধারিতে ছেলে-মেয়েরা ডিজের তালে তালে উদ্যম নৃত্য দিবে … মেয়েরা বয়ফ্রেন্ডের সাথে স্বল্প বসনা হয়ে নাচানাচি করবে … অতঃপর মদ পান করে ভোর বেলা মাতাল হয়ে বাড়ি ফিরবে ? … আমাদের ছিলনা কোন ভ্যালেনটাইস ডে

.
এই যেমন … কোন এক সময় প্রেম বা ডেটিং মানেই ছিল খুব বেশি হলে … প্রেয়সীর হাত ধরে কোন পার্কে কিছু সময় কাটানো বা ভালো রেস্টুরেন্টে এক কাপ কফি খাওয়া … আর এখন প্রেম মানেই ২ দিনের পরিচয় আর ৩য় দিন রুম ডেট …
.
এই রুম ডেট নামক ব্যভিচার প্রথা আমাদের দেশে গত ৩/৪ বছর ধরে এখন প্রেমের নতুন ট্রেন্ড … এই সব ইয়ো গার্লস ও বয়দের আবার সেক্স না করলে প্রেম হয় না … আজকাল আবার এ নিয়ে নাটক/সিনেমাও করা হয় … এগুলো সবই পশ্চিমা বিশ্বের অন্ধ অনুকরণ … আর মিডিয়া গুলো এ নিয়ে নাটক/সিনেমা করে আগুনে ঘি ঢালছে …
.
আশা করি আমার এত কথার মূল পয়েন্টটা ধরতে পেরেছেন … বাঙালিরা এতটাই অনুকরণ প্রিয় … যে এরা নিজের সত্ত্বাকে নষ্ট করতে একটুও পিছ পা হয় না … আমরা দেশে অলরেডি সানি ইফেক্ট দেখতে পাচ্ছি … যার ফলাফল আধুনিক স্ব ঘোষিত পর্ন স্টার নায়লা নাঈম … এছাড়া আরও অনেক আছে …
.
এখন সবাই সস্তা তারকা হতে চায় … শর্টকাটে নাম কামাই করতে চায় … নায়লা নাঈম আসছেন … আরও আসবে … এদেশের ভবিষ্যতের তরুণীরা এক সময় নাম কামানোর সস্তা রাস্তা হিসেবে এটাকেই বেছে নেবে … পর্ন স্টার বা পতিতা হয়ে শোবিজে আসতে চাইবে

.
আমি যখন ক্লাস টু-তে পড়ি … আমাদের সবাইকে Aim in Life রচনা লিখতে দেয়া হয়েছিল … আমি সহ ক্লাসের সবাই সেই মুখস্থ করা রচনাই লিখেছিলাম … কেউ শিক্ষক হতে চায়, কেউ পাইলট, আর ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার-তো আছেই … আমি ছিলাম ক্লাসের ফার্স্ট বয় … ম্যাডাম আমাদের সবার থেকে বেশি নম্বর দিয়েছিলেন “শাহনাজ” নামের একটা মেয়েকে … যার রোল ছিল অনেক পেছনে …
.
কেন জানেন? … কারণ সে মুখস্থ না লিখে সত্য লিখেছিল … সে লিখেছিল আমি “শ্রী দেভি” হতে চাই … হুম ঐ সময় উনি ছিলেন বলিউডের ১ নম্বর অভিনেত্রী … অবশ্যই এই লিজেন্ড অভিনেত্রী কোন পর্ন স্টার ছিলেন না … রচনা লিখার কিছুদিন আগেই এই স্টার বাংলাদেশ ঘুরে গিয়েছিলেন …
.
আর সেদিন “শাহনাজ” মিথ্যা মুখস্থ রচনা না লিখে মনের সত্য কথাটা লিখেছিল বলেই ম্যাডাম তাকে বাহবা দিয়েছিলেন … যদিও এটা নিয়ে একটু আধটু হাসাহাসি বা মজাও হয়েছিল স্কুলে …
.
তাই কাল আপনার মেয়ে স্কুলে গিয়ে যদি Aim in Life রচনা লিখে বসে “আমি সানি লিওন” হতে চাই … অবাক হবার কিছু থাকবে না … তাই বলব এখনও সময় আছে … আমাদের সংস্কৃতির যত টুকু নষ্ট হবার হয়েছে … অবস্থা যাতে আরও খারাপ না হয়, সে চেষ্টাই করা উচিত …
.
নায়লা নাঈমের আগে ছিলেন “তসলিমা নাসরিন” … যিনি তার কোন এক লেখায় লিখেছিলেন … ছেলেরা রাস্তায় দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করে … আমিও ফুটপাতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করতে চাই … ছেলেরা সমুদ্র তীরে খালি গায়ে ঘুরে বেড়ায় … আমিও কক্সবাজারে খালি গায়ে সমুদ্রে গোসল করতে চাই

.
কেউ কেউ পতিতা হয় নিরুপায় হয়ে … নিতান্তই পেটের দায়ে … আরেক শ্রেণী আছে যারা পতিতা হয় স্বেচ্ছায় স্টার হতে … শর্টকাটে শোবিজে নাম কামাই করতে … এরা হল সমাজের নিকৃষ্ট জীব … নায়লা, তসলিমা আর সানিরা সমাজের সেই নিকৃষ্ট জীব … নারী নামের কলংক …
.
অদ্ভুত কথা হচ্ছে … আমরা আমাদের দেশীয় পর্ন স্টার তসলিমাকে দেশান্তরিত করেছি … আর দেশের বর্তমান প্রজন্মের জন্য ভাড়া করে আনছি বিদেশী পর্ন স্টার … যাকে দেখতে গুণতে হবে ১৫ হাজার টাকা … টাকার এই অংক যত বাড়াবেন তত কাছ থেকেই এই কুৎসিত মহিলাকে দেখতে পাবেন … বাহ বাঙালিরা বাহ তোমরা পার বটে …
.
যদি আপনি চান আজ থেকে ২০/২৫ বছর পর আপনার নাতি-নাতনী “হ্যাপি টপ লেস ডে” পালন না করুক … ন্যুড বিচে ন্যুড হয়ে না ঘুরে বেড়াক … বা কোন শিশু যাতে “My aim in life is to be a star like Sunny Leone” রচনা লিখে না বসে …
.
তাই এখনই সচেতন হওয়া জরুরী … খুব জরুরী … আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রীও একজন নারী … নারী হিসেবে উনার উচিত এই সব পতিতা ও নারী নামের কলংককে দেশে ঢুকতে না দেয়া … আর যারা এই সব কাজে ইন্ধন যোগাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া …
.
যারা “সানিকে” এদেশে আনার প্রজেক্ট হাতে নিয়েছে … এরা কারা? … এরা আর যাই হোক বাঙালি সংস্কৃতির মিত্র নয় … এদের আসল উদ্দেশ্য কি? … তা ভাবতে হবে … নইলে অনেক বেশিই দেরি হয়ে যাবে …
.
নইলে ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে জন্ম নেয়া বাঙালি জাতি বলে কোন জাতির অস্তিত্ব আর থাকবে বলে মনে হয় না