ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

শিশু নির্যাতন এই মুহূর্তে বাংলাদেশে একটি কমন ঘটনা । দেখে শুনে মনে হয় শিশু নির্যাতন হয়ে পড়েছে একটি রুটিন মাফিক কাজ ।শিশুরা নির্যাতিত হচ্ছে সবখানে ।বাসায় একটা কাজের ছেলে বা মেয়ে আছে আর তাকে গরম খুন্তির ছ্যাকা দেয়না এমন বড়লোক নেই বললেই চলে ।

একটি শিশুকে মারা হচ্ছে, আনন্দ করা হচ্ছে, সেই দৃশ্য ভিডিও করা হচ্ছে এবং ধারণকৃত ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়া হচ্ছে । এটা শিশু নির্যাতনের নতুন ফর্মুলা । এই পৈচাশিকতার মানে কী? বাচ্চাদের স্কুলগুলোতে চলছে শিশুদের উপর এক ধরণের মানসিক নির্যাতন । নিত্য নতুন কায়দায় শিশুদেরকে হত্যা করা হচ্ছে ।পারিবারিক কলহ, সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ, ব্যক্তিগত লোভ অথবা স্বার্থ্ আদায়ের অস্ত্র হিসেবে শিশুদের হত্যা করা হচ্ছে ।

বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরামের তথ্য মতে গত পাঁচ বছরে ১১২২ শিশুকে হত্যা করা হয়েছে । এর মধ্যে চলতি বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্য্ন্ত হত্যা করা হয়েছে ৩৭ জন শিশুকে । শিশু হত্যার মহোৎসব চলছে চতুর্দিকে ।

শিশুদের আঘাত করা সহজ কারণ তারা পাল্টা আঘাত করতে পারেনা । এ ধরণের ঘটনা আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় সমাজে শিশুদের অসহায় অবস্থার চিত্র । আমাদের সমাজ যে শিশু বান্ধব নয় এটা তার প্রমাণ ।

সুশাসনের অভাব, আইনের যথাযথ প্রয়োগ না থাকা তথা বিচারহীনতার সংস্কৃতিকেই অনেকেই দায়ী করছেন এইসব ঘটনার পুনরাবৃত্তির জন্য ।একটি শিশুবান্ধব সমাজ বিনির্মাণে সরকারের উচিত দ্রুত এসব ঘটনার প্রকৃতি ও পুনরাবৃত্তিকে বিচার বিশ্লেষণ করে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া ।