ক্যাটেগরিঃ গণমাধ্যম

এখন আবার সেই যুগ ফিরে আসলো। যখন নির্বিচারে মিডিয়া কর্মী দের টার্গেট করা হতো। হত্যা, গুম, নির্যাতন, লাঠিপেটা, হুমকি সহ যেকোনো উপায়ে এখন যেন তাঁদের স্তব্ধ করে দিতেই হবে। নইলে অপকর্মকারীদের সব কিছু প্রকাশ হয়ে যাবে।

এখন একজন অপরাধী তার অপকর্মের পরিণতি এবং ওই নিরীহ শিকারের প্রত্যাঘাত এর চাইতে ঘটনার চাক্ষুষ সাক্ষীদের অধিক বিপদজনক ভাবছে। তাই আগেই সে তার সাক্ষীদের নিশ্চিহ্ন করতে চায়, যে কোনো উপায়ে।

সবার কাছে একটা বিষয় স্পষ্ট হয়ে উঠছে, এখন আর সাংবাদিক মারলে তেমন কিছু হয় না। চাকুরী হারানোর ভয় নাই, আইনের কাঠ গড়ায় দাঁড়ানোর কষ্ট নাই, কিংবা জনরোষে পরার ভয় নাই। ব্যস ইচ্ছা হয় ধর, মার সাংবাদিক।

সংবাদ কর্মীদের জন্য এখন খুব মন্দ সময় যাচ্ছে। সাংবাদিকদের সাথে পুলিশের মধ্যেকার সম্পর্ক এখন প্রায় স্বৈরাচারী আমলের মতো। তখন তো পুলিশের কাছে আন্দোলনকারীদের চাইতেও অধিক গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্যবস্তু ছিলো সংবাদকর্মীরা।

আমাদের বড়ই দুর্ভাগ্য গণতান্ত্রিক সমাজে এই ধরনের স্বৈরচারী সংস্কৃতির মুখোমুখি হতে হচ্ছে।