ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ, ফিচার পোস্ট আর্কাইভ

 
20161005_162805

দুর্গন্ধে নাক ভারি হয়ে আসছে, আবার কেউ কেউ ওয়াক করে বমিও করছে। এমন দৃশ্যগুলোই চোখে পরে চাঁদপুরের বেশিরভাগ ডাস্টবিনগুলোর আশেপাশে। দূর্ভাগ্য বেশিরভাগ পথচারি স্কুল-কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থী। চাঁদপুরে গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোর আশেপাশে ডাস্টবিনগুলো এতোটাই অপরিছন্ন ভাবে রয়েছে যে এর পাশ দিয়ে পথচারীরা হেঁটে যাওয়াটা খুবই বিরক্তিকর বলে দাবি করছেন পথচারীরা। চাঁদপুরের বেশ কটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে এমন অপরিষ্কার ডাস্টবিন লক্ষ্য করা গেছে।
20161005_162813

ছবির দৃশ্যটি চাঁদপুর পালপাড়া এলাকার একটি ডাস্টবিনের দৃশ্য। এ ডাস্টবিনটি এতোই অপরিস্কার যে দূর্গন্ধে এর পাশ দিয়ে হাঁটা খুবই কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে। ডাস্টবিনটির কয়েক গজ দূরে দুইটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, চাঁদপুর আলামিন একাডেমি স্কুল এন্ড কলেজ, লেডি দেহলোভি স্কুল। এর কিছু পাশেই আলামিন হসপিটাল। সামনেই একটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান। এ এলাকার বাসিন্দারাও দূর্গন্ধে পরেছে বিপাকে। বৃষ্টির পানিতে ময়লা জমে দূর্গন্ধে ছড়াচ্ছে।এটি পরিবেশের জন্য যেমন ক্ষতিকর তেমনি মানবদেহের জন্যও ক্ষতিকর। ময়লা পানি জমে সেখানে বংশ বিস্তার করতে পারে এডিশ মশারা। আতংকে তাই পথচারীদের ভোগান্তীর মাত্রা দ্বিগুণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

20161005_162813

এমন অনেক ডাস্টবিনের চিত্রই সচরাচর চাঁদপুরে দেখা মেলে। ডাস্টবিনগুলো গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার পাশে থাকায় এবং ময়লা জমে থাকায় প্রতিনিয়তই ভোগান্তী পোহাচ্ছে সাধারণ পথচারী থেকে শুরু করে স্কুল-কলেজমুখী শিক্ষার্থীরাও। অচিরেই প্রশাসন এবং চাঁদপুরের শহর পিতা, মেয়র মহোদয়, বিষয়টি সুদৃষ্টিতে নিবেন বলে প্রত্যাশা প্রকাশ করেন ভূক্তভোগী পথচারী-শিক্ষার্থীরা।