ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার


চলছে ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি। এ মাসের প্রথম তারিখ থেকেই শুরু হয় মাসব্যাপী ‘অমর একুশে বইমেলা’। লেখক, পাঠক আর প্রকাশকের মিলনমেলা ঘটে এ সময়। শত-সহস্র বই প্রদর্শিত হয় দর্শনার্থীদের জন্য। নানা শ্রেণি-পেশার মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয় মেলা প্রাঙ্গন। বই আপনার সবচেয়ে কাছের বন্ধু। পৃথিবীর সবাই বেঈমানী করলেও বই কখনোই বেঈমানী করে না। পৃথিবীর মহামূল্যবান পুরুস্কার বই। মনের অসুখ সাড়াতেও বইয়ের বিকল্প নেই। মানসিক সমস্যা সর্বদাই আমাদের লেগে থাকে তাই বই পড়ার বিকল্প নেই। যেমন বিবল্ওিথেরাপী বই পড়ে মনের অসুখ নিরাময়। বিবলি অর্থ বই আর থেরাপি অর্থ চিকিৎসা। প্রাচীন গ্রিকরা মনে করতেন আত্মার মহাঔষধ হলো পুস্তক। আবার অনেকেই মনে করে বই যারা ক্রয় করেন তাঁরা কখনো গরীব হন না। কারণ বই পড়ে কিংবা কিনে আজও কেউ দেউলিয়া হয়েছে এমন ইতিহাস নেই। তবে ইদানিং মানুষের বই পড়ার আগ্রহ কমে গেছে বলে মনে হয়।প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা গ্রহণ শেষ হ্ওয়ার পর অনেকেই আর বই পড়তে চান না। বইয়ের প্রতি থাকে না আগ্রহ। বইয়ের প্রতি যেন তেমন কোন আগ্রহ এখন আর জন্মে না তরুণ প্রজন্মের মাঝে।

.

প্রযুক্তির বদৌলতে এখন বই পড়া ছেড়ে দিতে শুরু করেছে প্রজন্ম। এরও একটা কারণ আছে। আমরা ইদানিং ডাযাবেটিকস রোগীর মত হয়ে গেছি। পাঠ্যপুস্তকে সীমাবদ্ধ পড়া পড়তে গিয়ে অনেক চমৎকার পাঠ আমরা পড়ছি না। এতে করে আমাদের মধ্যে থেকে বই পড়ার অভ্যাস দিনদিনই কমে যাচ্ছে। জ্ঞান ভিত্তিক আধুনিক সমাজ বিনির্মানে বই পড়ার বিকল্প নেই। কথাটি যেন ভুলেই যাচ্ছি।

ক‘দিন আগে একটি পত্রিকায় পড়লাম, ইরানের একটি আদালতে নাকি সর্বচ্চ শাস্তি বইপড়া। চমৎকার উদ্যেগ। যিনি বই পড়েন তিনি কখনো মন্দ কাজ করতে পারেন না।

আসলে ইদানিং আমাদের যে সমস্যাটা সবচেয়ে প্রকট তা হলো আমরা সবাই সার্টিফিকেট নির্ভর হয়ে পড়েছি। আমরা বই পড়ি শুধু ভাল চাকরি পাওয়ার আশায়, তাও সে বই প্রাতিষ্ঠানিক। এছাড়াও যে গল্প, উপন্যাস, ছড়ার বই রয়েছে সেদিকে আমাদের কোন দৃষ্টিপাতই নেই। প্রমথ চৌধুরীর বই পড়া প্রবন্ধটি পড়ে ধারণা লাভ করা যায় যে, আর্থিক অনটনের কারণে অর্থকারী নয় এমন সব কিছুই এদেশে অনর্থক বলে বিবেচনা করা হয়।

সেজন্যই বই পড়ার প্রতি লোকের অনীহা দেখা যায়। তিনি মনে করেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে লব্ধ শিক্ষা পূর্ণাঙ্গ নয় বলে ব্যাপকভাবে বই পড়া দরকার। কারণ সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত। যথার্থ শিক্ষিত হতে হলে মনের প্রসার দরকার। তার জন্য বই পড়ার অভ্যাস বাড়াতে হবে। তাই বই পড়ার বিকল্প নেই। একজন ভাল মানুষ হতে হলেও বই পড়তে হবে। তাই আসুন বই পড়ি এবং একটি সুন্দর দেশ গড়ি।