ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

গনতান্ত্রিক অধিকারের নামে হরতাল এখন একটি অভিশাপ মাত্র।হাতিয়ার হালের বিরোধীদলগুলোর।চাকুরীজীবি কিছু মানুষের অলস কাটানোর উপায় হলেও,হরতাল খেটে খাওয়া মানুষের পেটে লাথি ছাড়া আর কি?

অফিসের পথে আসছি..। কয়েকজন রিক্সা শ্রমিক দাঁড়িয়ে পেসেঞ্জারের আশায়।প্রশ্ন করতে হতাশ উত্তর “ভাড়া পাচ্ছি না কিন্তু রিক্সার জমা দিতে হবে।”একটি রিক্সায় চড়লাম….রাস্তার পাশেই সারিসারি রিক্সাভ্যান,ঠেলা দাঁড়িয়ে…কথা বলার প্রয়োজন পড়ে না।কারা হরতাল দাতা; হরতালের মালিক? ব্যাক্তিগত জিবনে হরতালে তাদের কি আসে যায়…ক্ষতি নেই সরকারী দলেও।দু’পক্ষের লোকজন,সংসার নিরাপদ। ছেলে মেয়েরা কথিত প্রথম বিশ্বের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ছাত্রছাত্রী কিংবা নাগরিক। দেশে কবে হরতাল হলো তা তারা জানে না।

কথাগুলো পুরোনো, এক ঘেয়ে…. বোরিং প্রসঙ্গ। সবাই জানি..কিছু করার নাই।কথা গুলো শুধুই হতাশার।

আমাদের হৃদয়ে অনুরনণ ক্রমাগত বাড়ছে আরো বাড়ুক ………..”হরতাল বন্ধ হোক”