ক্যাটেগরিঃ সেলুলয়েড

 

এস এম সোলায়মানের অন্যদল থিয়েটারের মধ্য দিয়ে শাকিল আহমেদের ঢাকার মঞ্চে প্রথম যাত্রা। প্রথম নাটকটি ছিল কামাল উদ্দিন নীলুর পরিচালনায় মুদ্রা রাক্ষস, রাজা চন্দ্র গুপ্তের চরিত্রে অংশ নিয়েই দর্শকের নজর কাড়েন এই অভিনেতা। পুরো নাম মনির আহমেদ শাকিল, অভিনয় জীবনের দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় অভিনয়ের সবকটা সিঁড়ি তিনি পার করেছেন। মঞ্চ থেকে বড় পর্দা, দাপটের সাথে অভিনয় করে যাচ্ছেন।

শুরুটা হয়েছিল জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী গ্রামে, নিজ জেলায়; শিশু একাডিমীর সংস্কৃতিমূলক প্রতিযোগীতায় নিয়মিত অংশগ্রহণ করতেন। ১৯৯৫ সালে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ প্রতিযোগীতায় আবৃত্তি শাখায় জাতীয় পর্যায়ে প্রথম হন তিনি। পাশাপাশি বলিষ্ঠ কন্ঠে আবৃত্তি করতেন চমৎকার, ১৯৯২ সালে বৈকুন্ঠ আবৃত্তি সংঠনে যুক্ত হন। এরপর ২০০০ সালে দুই বাংলা থেকে প্রকাশিত অডিও সিডিতে কন্ঠ দেন যার নাম “একটি ভালোবাসার গল্প”। কল্যাণ সেন বরাটের মিউজিক ডিরেকশনে তার সাথে কন্ঠ দিয়েছেন নচিকেতা, শ্রীলা মজুমদার, জগদিন্দ্র মন্ডল প্রমুখ।

197088_1009945339380_7596_n 10366059_10205517169479094_822487877189265810_n

 

10485020_1456961497857842_4251754147509529384_o

ছবি ১ঃ মঞ্চে শাকিল আহমেদ

১৯৯৫ সাল থেকে শাকিল আহমেদ কেবল অভিনয় করবেন বলেই বাবা মায়ের সাথে একপ্রকার যুদ্ধ করেই ঢাকা থাকতে শুরু করেন। যুক্ত হন শহীদুল আলম সাচ্চুর আর্তনাদ থিয়েটারে। ওখানেও সফলতার সাথে মঞ্চে কাজ করেন। এরপর চলে আসেন সেন্টার ফর এশিয়ান থিয়েটারে। এখান থেকেই তার অভিনয় জীবন পোক্ত হবার সময় আসে। world Classic থিয়েটারের মাধ্যমে নিজের অভিনয়কে আরো বেশী সমৃদ্ধ করার সুযোগ পান এবং মঞ্চায়িত করেন অনেক দর্শক প্রিয় নাটক, সেখান থেকে কিছু নাম উল্লেখযোগ্য-

১। রাজা পুররুবা

২। ডেপ সিও

৩। পীরচাদ

৪। ব্রান্ড

এরমধ্যে জয়লাভ করেন টেলিভিশন দর্শক ফোরাম পুরস্কার। পরবর্তীতে ২০০৮-২০০৯ সালে জাপানে অবস্থানকালীন সময় ইবসেন পার্ফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন। এরপর দেশে ফিরেই তিনি মঞ্চের পাশাপাশি চলচ্চিত্র এবং টিভি নাটকে নাম লেখান।

10999658_10200244964764332_1353274189_o 14202782_10210119136245387_4280883115136815728_n 13654381_10209725056633643_9173382228351701076_n

ছবি ২ঃ টেলিভিশন নাটকে শাকিল আহমেদ

 

যেসব চলচ্চিত্র  ইতিমধ্যে মুক্তি পেয়েছে সেগুলো হলোঃ

১। শংখচিল

২। ও আমার দেশের মাটি

৩। উধাও

৪। অনেক সাধের ময়না

৫। দেশা -দ্যা লিডার

৬। একাত্তরের মা জননী

এখন শ্যুটিং চলছে রাগি সিনেমার এবং মুক্তির অপেক্ষায় আছে- মাটির প্রজার দেশে

উধাও সিনেমাটি সুইডেনে অনুষ্ঠিত গোটেবার্গ ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভালে ছবিটির প্রথম প্রদর্শনী হয়েছে। ছবিটি মোট ২০টি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে অংশগ্রহণ করে নমিনেশন পেয়েছে ১০ টির। যার মধ্যে ৭ টি তেই পুরস্কার জিতেছে। পুরস্কারগুলো হলো পর্তুগাল আন্ডারগ্রাউন্ড ফিল্ম ফেস্টিভাল (বেস্ট ফিচার), অ্যাকশান অন ফিল্ম ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভাল (বেস্ট সিনেমাটোগ্রাফি), লুগন ফিল্ম ফেস্টিভাল (বেস্ট ফিচার- ন্যারেটিভ), বাটার কর্ণ ফিল্ম ফেস্টিভাল (বেস্ট ইন ফেস্ট), কানাডা ইন্টার্ন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভাল (রাইজিং স্টার আওয়ার্ড) ও লা নিউ ওয়েভ ফিল্ম ফেস্টিভাল (অনারেবল মেনশন)। এছাড়া গ্রান্ট পেয়েছে দুটি- গোটেবার্গ ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভাল ও পিআইএফভিএ।

তথ্যসূত্রঃ http://www.dakpeon24.com/188

 

1271953_10201884031492915_188145215_o 11659277_10206960416319363_7054476545667953381_n 96605981

ছবি ৩ঃ চলচ্চিত্রে শাকিল আহমেদ

আমেরিকার অন্যতম চলচ্চিত্র উৎসব সিনেকোয়স্ট ফেস্টিভালের ২৭ তম আসরের প্রতিযোগিতা বিভাগে লড়ছে মাটির প্রজার দেশে। সিলিকন ভ্যালিতে ২৮ ফেব্রুয়ারী এই উৎসব হয়ে গেছে। এবার বাংলাদেশের প্রায় অনেকগুলো প্রেক্ষাগ্রৃহে ছবিটি মুক্তি দেওয়া হবে।

 

96606229 109385277 109371461

ছবি ৪: চলচ্চিত্রে শাকিল আহমেদ

শাকিল আহমেদ অভিনীত টেলিভিশন নাটকের সংখ্যা হাতে গুণে শেষ করা যাবে না। দেশের অন্যতম পরিচালকদের নির্দেশে অসংখ্য নাটকে তিনি অভিনয় করেছেন। টেলিভিশন খুললেই সূচনা ফাউন্ডেশনের প্রতিবন্ধী শিশুকে নিয়ে করা যে প্রামাণ্যচিত্র দর্শকের হৃদয় ছুঁয়ে যায় তার কেন্দ্রীয় চরিত্রের বাবা চরিত্রে রূপদান করেছেন শাকিল আহমেদ। একজন কন্যা শিশুর হাসি মাখা মুখের বাবা হয়ে এরইমধ্যে অনেক প্রশংসাও কুড়িয়েছেন সবার। আরো কিছু প্রচারিত অডিও ভিজুয়ালের মধ্যে ব্র্যাক এর নামটি উল্লেখ করা যেতে পারে। পাশাপাশি বেশ কিছু আলোচিত বিজ্ঞাপনের মডেল হয়েছেন শাকিল আহমেদ।

13516716_10209501456283774_8721494139137566853_n 16864086_10211764930509215_202402294788410584_n 17212185_10211900365335001_223656190729622059_o

ছবি ৫: টেলিভিশন নাটকে শাকিল আহমেদ

শাকিল আহমেদ আমাদের দেশের সংস্কৃতি অঙ্গণে এমন একটি নাম যিনি কিনা অভিনয়কে কোন শখের বিষয় হিসেবে নেননি, এটাই তার পেশা। বর্তমানে তিনি নিজের থিয়েটার সংগঠন দশরূপকের কর্ণধার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার প্রতিটি চরিত্রের চরিত্রায়ণ অসাধরণ। তিনি প্রতিটি চরিত্র করার সময় আলাদা আলাদা করে দৈহিক গঠন করেন, বদলে ফেলেন চুলের ধরন ও মেকাপ। কারো পক্ষেই বলে না দিলে বোঝা সম্বব নয়- ইনিই সেই অতি পরিচিত মুখ। অভিনয় করতে গিয়ে তাকে কখনো হতে হয়েছে হাস্য রসে ব্যস্ত স্বামী, কখনো বা গোবেচারা ভাই, আবার কখনোবা মারদাঙ্গা ভিলেন। তবে, বিজ্ঞজনের মতে শাকিল আহমেদ যদি তার সাধনা এভাবেই ধরে রাখতে পারেন তবে পরিচালকদের আর নেতিবাচক চরিত্র নিয়ে ভাবতে হবে না। কারন, নেগেটিভ ক্যারেক্টারে শাকিল আহমেদ অচিরেই ছক্কা মেড়েছেন। আমরা বাংলা চলচ্চিত্রে আরো একজন আলোচিত ভিলেন পাব সেই আকাঙ্ক্ষা নিয়েই অপেক্ষায় থাকলাম।

 

সূচনা ফাউন্ডেশনের অডিও ভিজুয়ালে শাকিল আহমেদ 

 

ব্র্যাক এস এম ই-এর বিজ্ঞাপনে শাকিল আহমেদ

বিঃদ্রঃ শাকিল আহমেদ একজন আত্মমগ্ন মানুষ। তাই আমাকে তার সমস্ত ছবি ও তথ্য দিয়ে সাহায্য করেছেন তার সহধর্মিনী মাহফুজা রূমা।