ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

অনন্ত বিজয়ের মৃত দেহ

কিছুদিন আগে সাস্ট ক্যাম্পাসে আমরা একটা বইমেলা করেছিলাম। সেই বই মেলায় যে বইগুলোর সবগুলো কপি সবার আগে শেষ হয়েছে সেগুলোর মধ্যে একটা ছিল “জীববিবর্তন সাধারণ পাঠ”। অনুবাদক প্রাক্তন সাস্টিয়ান অনন্ত বিজয় দা। এটা ছিলো আমাদের কাছে একটা ম্যাসেজ, যে, আমাদের ক্যাম্পাসের পোলাপাইন বিবর্তনের উপর লেখা বই পড়তে বেশ আগ্রহি। বুঝলাম আমার আশেপাশের মানুষজন চিন্তাশীলতার দিকে ঝুঁকছে, বিজ্ঞানমনষ্কতার দিকে ঝুঁকছে।

image

আজ সেই অনন্ত বিজয়দা-ই আক্রান্ত হলেন চাপাতির দ্বারা। অত্যন্ত বীভৎসভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হল তাঁকে। এটাও একটা ম্যাসেজ। এই ম্যাসেজ বলছে যে, আপনি চুপ থাকুন। আপনি যদি মুখ খোলেন, যদি চিন্তার কথা বলেন, বিজ্ঞানের কথা বলেন, মৌলবাদ আর সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে বলেন, তবে আপনাকেও এই পরিণতি বরণ করতে হবে।

আমি জানি, আপনি গাছ না, ইট-কংক্রিট না, মাটির মূর্তি না। জানি মানুষ কথা বলবেই। জানি একটা মৃত্যু আরও একশো জনকে প্রতিবাদি করে তুলবে। একশোটা গাছ, একশোটা পুতুল বা একশোটা ভূ-খণ্ডকে কন্ঠস্বর দান করবে। কিন্তু তবু আপনাকে চুপ থাকতে হবে। যদি বাঁচতে চান, চুপ থাকুন। দরকার হলে নিজের টুঁটি নিজেই চেপে ধরে চুপ থাকুন। এই দেশে কোনো কথা বলা প্রাণির স্থান নেই!