ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

প্রতিটি নাগরিকের জাতীয় পরিচয়পত্র থাকা জরুরী এটি কম বেশী আমরা সকলেই সমর্থন করি। কিন্তু আমাদের দেশের সকল নাগরিকের জাতীয় পরিচয়পত্র আছে কি? ধরে নিলাম আছে। কিন্তু তা ব্যবহার/প্রদর্শনের বিষয়ে আমাদের সরকারের নির্দেশনা কি তা আমরা অনেকেই জানিনা। দেশের নির্বাহী ক্ষমতার অধিকারী কোন কর্তৃপক্ষ, উচ্চতর আদালত এবং নির্বাচন কমিশন দেশের সকল ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র (আইডি কার্ড) ব্যবহার বাধ্যতামূলক না করলেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার অত্যাবশ্যক করায় নানাভাবে ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে অনেককেই।

দেশের সরকারী ও বেসরকারী ব্যাংক/বীমা, স্থায়ী আমানত ও অন্যান্য কাজে একাউন্ট খুলতে, ভূমি রেজিস্ট্রি কাজে, পাসপোর্ট অফিসে, মোবাইলের নতুন সিম ক্রয়, রেজিষ্ট্রেশন ও উত্তোলন আরো গুরুত্বপূর্ণ ও সেবা প্রতিষ্ঠান জাতীয় পরিচয়পত্র অত্যাবশ্যক করা হয়েছে। ফলে জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহে না থাকায় অনেকেই ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। অথচ কোন কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত জাতীয় পরিচয়পত্র অত্যাবশ্যক বলে কোন আদেশ বা নির্দেশ দেয়নি। নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন আইন ২০১০ এর ধারা ১১(২) উপধারা-(১) এর অধীনে প্রজ্ঞাপন জারি না করা পর্যন্ত জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শন, কিংবা ক্ষেত্রমত, জাতীয় পরিচয়পত্রের অনুলিপি দাখিল করার জন্য কোন নাগরিক-কে বাধ্য করা যাবেনা এবং জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকার কারণে কোন নাগরিককে নাগরিক সুবিধা বা সেবা পাওয়ার অধিকার হতে বঞ্চিত করা যাবেনা উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু আমরা যারা জাতীয় পরিচয়পত্র অত্যাবশ্যক করে সাধারণ নাগরিকদের হয়রানি করছি, তা কতটুকু যুক্তিযুক্ত। আমরা কি দেশের আইন পালন করছি না কি হয়রানি করে নিজেদের সুবিধা আদায়ের পাঁয়তারা করছি।