ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

আমরা যারা নিজেদের খাঁটি মুসলিম মনে করি তাদের প্রায় সবার ধারণা আল্লাহ যা করেন আমাদের মঙ্গলের জন্যই করেন। প্রত্যেকটি ঘটনাই আল্লাহর ইচ্ছায় হয়। আল্লাহ সব কিছু আগেই নির্ধারণ করে রেখেছেন। মন্দ কিছু হলে ভাগ্য খারাপ, আসলে কি তাই?? আসুন মিলিয়ে দেখি:

আল্লাহ মানুষ সৃষ্টি করে ম্যানুয়াল হিসেবে মানুষের জন্য নাজিল করেছেন কোরআন। এখানে ভাল-মন্দ সব বিষয়ে স্পষ্ট করে বলা আছে। আমরা যদি মেনে চলি তাহলে জান্নাত না চললে জাহান্নাম। তাহলে কি দাঁড়ালো? আমাদের পাপ বা পুণ্যের ভাগিদার আমরা নিজেরাই। সব কিছু আল্লাহই নির্ধারণ করে রাখলে আমাদের অপরাধের সাজা কেন হবে? এটা বিশ্বাস কি আমাদের জাহান্নামের দিকে নিয়ে যাচ্ছে??

বড় বড় আলেমরা যে বলে সমস্ত সৃষ্টি জগৎ আল্লাহর ইচ্ছায় চলে তা কি ভুল? এর উত্তর আপনি নিজেই দিতে পারেন। যদি আমার পাপের শাস্তি বিধাতা আমাকেই দিয়ে থাকবেন তাহলে তিনি মনে হয় সব কিছু নিজের ইচ্ছায় পরিচালিত করেন না। এজন্য আমাদের আশরাফুল মাখলুকাত হিসাবে সৃষ্টি করেছেন এবং নিজের ইচ্ছা বাস্তবায়নের দিয়েছেন স্বাধীনতা। তবে এইকথা অবশ্যই সত্যি আল্লাহ তায়ালা ইচ্ছে করলে সব কিছুই করতে পারেন কিন্তু তিনি তা করেন না।

একটা উদাহরণ দেয়া যাক। আপনার পুরো অফিসই আপনি সিসিটিভি এর আওতায় রেখেছেন। সকল কর্মচারীকে তাদের কাজ বুঝিয়ে দিয়েছেন আর আপনি কম্পিউটারে বসে সব মনিটরিং করছেন। কেউ যদি কোন আদেশ না মানে অর্থাৎ কোন অপরাধ করে সেটা কি আপনার কাজ হবে? নিশ্চয়ই হবেনা কিন্তু আপনি সবই দেখছেন পরবর্তীতে আপনি ওই কাজের সাজাও দিতে পারবেন।

আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতায়ালা সব কিছুই দেখছেন, যা ইচ্ছা তা করার ক্ষমতাও রাখেন কিন্তু তিনি তা প্রয়োগ করেন না। বরং আমাদের কাজ মনিটরিং করছেন আর কেয়ামতের দিন সকল কাজের হিসাব দেবার জন্য আমাদের সবাইকে তাঁর কাছেই ফিরে যেতে হবে।