ক্যাটেগরিঃ ফিচার পোস্ট আর্কাইভ, স্বাধিকার চেতনা

এই বাংলাকে কত কবি সাহিত্যিক তাদের লেখনিতে বাংলার শ্যামল প্রান্তর আর ধুলামাখা মানুষের গল্প লিখেছেন কবিতায়,গানে আর উপন্যাসে এর সঠিক হিসাব করতে গেলে যে কারও মাথা ঘুরে যাবারই কথা। আর এই বাংলাকে পরাধীনতার শৃংখল ভেঙ্গে বাংলাদেশ নামক একটি দেশে পরিনত করতে গিয়ে কত মায়ের বুক খালি করা করুন আর্তনাদ এখনও বাঙলার আকাশে বাতাশে বইছে এর ইয়াত্ত্ নেই। যে রক্তর দাগ হয়ত খালি চোখে আমরা দেখতে পাই না তবে এখনও এই বাংলার সবুঝ ঘাসে একটু হৃদয় দিয়ে শুকলে এর ঘ্রাণ পাওয়া যায়। নতুন প্রজন্ম স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস থেকে দুরে সরে গিয়ে স্বাধীনতা বিরোধীদের মিথ্যা তথ্যে বিভ্রান্ত। আর ঠিক এ রকম একটি সময়ে ৪০ বছর পার হলেও বাংলার পুর্ব দিগন্তে নতুন করে উদিত হওয়া একটি সুর্য দিপ্ত আলোর ছটা ধীরে ধীরে উদিত হতে চলছে অন্য দিকে এই অত্যাশ্যকীয় একটি বিষয়কে নানা ভাবে নানা কৌশলে বিতর্কিত করার প্রয়াসে এর বিরোধিতা করবে একটি অপাঙতেয় মহল এটাই স্বাভাবিক। তাদের হাতে বাংলার পতাকা সহ ক্ষমতার কিছু অংশ তুলে দিয়েছিল এই বাংলাদেশর প্রতিষ্ঠত একটি রাজনৈতিক দল আর তাতে তাদের স্বপ্ন দিনকে দিন তিল থেকে তালে পরিনত হতে যাওয়া ঐ স্বাধীনতা বিরাধী চক্রটির টুটি চেপে ধরা কোন ভাবেই সহজভাবে নেবে না তারা এটাই স্বাভাবিক। আর তাই এরা এখন মিথ্যা তথ্য উপাত্তের ভিত্তি স্থাপনের নিল নকশায় মেতেছে সমাজের প্রতিটি স্তরে,বাদ যায়নি তথ্য প্রযুক্তির এমন কোন মাধ্যমে প্রবেশের যেখানেই সুযোগ পাচ্ছ সেখানেই তারা তাদের নির্লজ্জ প্রতিক্রয়া ব্যাক্ত করতেও হচ্ছেনা পিছপা। তাই তাদের মিথ্যা ফুলঝুরির বক্তব্যে বিভ্রান্ত না হয়ে তাদের প্রত্যাখান ও সমুচিত জবাব দিতে পিছপা না হতে বাংলাদেশের প্রতি ভালবাসা আর মুক্তযুদ্ধ তথা বাংলার সবুজের আচ্ছাদনে পরিবেষ্টিত লাল সবুজের এই পতাকাটির প্রতি শ্রদ্ধা রাখা প্রতিটি নাগরিকের অতিব কর্তব্য বলে মনে করি।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের ক্ষেত্রে প্রতিটি বাংলাদেশী নাগরিক মানেই একমত হওয়া উচিৎ অবশ্য যারা এখনও দিবা স্বপ্নে বিভোর কোন একদিন আবার এ দেশ পাকিস্তানের সমর্থক সেই অপশক্তি দ্বারা শাসিত হবে বলে আশা করেন তাদের ব্যাতিত। তবে অনেকে বলেন আওয়ামী লীগেও অনেক যুদ্ধাপরাধী রয়েছন,এবং আমি তা বিশ্বাসও করি। আমরা যদি এই অপশক্তির বিচার কার্য্য একবার শুরু করতে পারি তবে এরই ধারাবাহিকতায় অন্য সব যুদ্ধাপরাধী ও ৭১’র মানবতা বিরোধিতাকারী ঐ সব নরপশু যারা ভোল পাল্টিয়ে নানা দলের ভিতর ঘাপটি মেরে আছে তাদেরকে এই নতুন প্রজন্ম বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাবেই। তাই নানা সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যম,ব্লগ,মদদ পুষ্ট কিছু পত্রিকা এমনকি কিছু ইলেকট্রনিক্স মিডিয়াতে বর্তমান সময়ে যারা এই বিষয়টিকে বিতর্কিত করার প্রয়াসে নানা কুট কৌশলে তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়নে তারা বদ্ধ পরিকর। তাদের চিহ্নিত করে বুঝাতে হবে আমরা তাদের চিনতে পারি এবং তাদের দেওয়া মিথ্যা তথ্যের কাছে বিভ্রান্ত না হয়ে এর পাল্টা জবাব দিতে হবে সত্য লেখনির মাধ্যমে।

***
ফিচার ছবি: ইন্টারনেট