ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

 

জন্মিলে মরিতে হয় এটাই বিধাতার নিয়ম,তবে প্রতিটি মানুষই তার স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যরান্টি চায়। তার পরও প্রতিনিয়ত আমরা পেপার পত্রিকা আর ভিবিন্ন তথ্য প্রযুক্তি নিভর্র মাধ্যম গুলিতে অস্বাভাবিক মৃত্যুর খবর পেয়ে থাকি। যে কোন অস্বাভাবিক মৃত্যুই আমাদের বিবেক/মানবিকতাকে নাড়া দেয়। তবে কিছু কিছু মৃত্যু ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতের কারনেই হয়ে ওঠে আলোচিত ও সমালোচিত।

ত্রী রুমানা মঞ্জুরকে নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেপ্তার সাইদ হাসান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কারা হেফাজতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রিজন সেলে মারা গেছেন।তার মৃত্যুর ব্যিপারটি নিশ্চিত করেছেন কারা কর্তৃপক্ষ। তবে কি কারনে এবং কিভাবে তার এই মৃত্যু হয়েছে তা ময়নাতদন্ত না করলে বলা যাবে না বলেও জানিয়েছেন কারা উপমহাপরিদর্শক গোলাম হায়দার ।(বিডি নিউজ টোয়েন্টি ফোর ডট কম)

আপনারা রুমানাকে বানিয়েছেন দেবী আর সাঈদকে ভিলেন।

তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় সাঈদের পিতা তার পুত্রের মৃত্যুর জন্য সরাসরি দায়ী করেছেন – পরিকল্পনা করে তাকে হত্যা করায় মুখ্য ভুমিকা রেখেছে মিডিয়া। তিনি আক্ষেপ করে বলেন রুমানা আত্ম স্বীকৃত ব্যভিচারিনি ছিলেন এবং সে সামন্য আঘাতের ঘটনাকে বড় করে দেখিয়েছে আর তা মিডিয়া অত্যান্ত সুকৌশলে প্রচার প্রচারনার মাধ্যমে তা আমার পুত্রের বিরুদ্ধে জনমত তৈরি সহ মানষিক চাপে বিপর্যস্ত করে তুলে আজকের এই পরিনতির দিকে নিয়ে এসেছে। এক সময় ক্ষিপ্ত সাঈদের পিতা অভিশাপের সুরে উপস্থিত মিডিয়া কর্মিদের বলেন আপনারা পুরুষ নন,আপনাদের স্ত্রীরাও একই রকম ব্যভিচার করে বাচতে কৌশল করে মিডিয়াতে আপনাকে হেস্ত নেস্ত করবে।

সাঈদের মৃত্যু কিভাবে হল তা ময়নাতদন্ত এবং পুলিশি তদন্ত শেষে হয়ত বের হয়ে আসবে। কিন্তু আমরা যা দেখেছি রুমানার উপর আঘাত আসার পর সাঈদকে নিয়ে এমন কোন মিডিয়া নেই যেখানে সমালোচনা হয়নি। আর এ কারনে প্রথম থেকেই প্রশাসন ছিল অত্যান্ত সতর্ক। একজন উচ্চ শিক্ষত ব্যাক্তি যদি কোন কারনে বা অকারনে অপরাধ করে তবে সে যতটা অনুতপ্ত হয় একজন সাধারন অল্প শিক্ষত ব্যাক্তির ক্ষেত্রে ততটা প্রকট ভাবে প্রতিয়মান হয়না। আর সেই কারনে স্বাভাবিক ভাবেই সাঈদ যে কতটা মানষিক চাপে ছিল তা একজন সাধার গ্যান সম্পন্ন মানুষ মাত্রই বুঝতে পরাবেন।

এখন একটি বিষয় সাঈদের এই অস্বাভাবিক মৃত্যুর পর সবার সামনে প্রশ্ন হয়ে আসাটাই স্বভাবিক,আর তা হল মিডিয়া কি আসলেই সত্য ভুমিকা রেখেছিল নাকি মিডিয়ার কোন একটি যায়গায় ঘাটতি ছিল। যদি মিডিয়া ঠিক ঠাক সংবাদ দিয়ে জনমত তৈরি করে থাকে তবে সাঈদের মৃত্যু যতই নির্মম হোক না কেন তার কোন প্রভাব পড়বে না। কিন্তু এর কোন একটি বিষয়ও যদি সাঈদের মৃত্যুর কারন হিসাবে মিডিয়ার কোন ভুল প্রমানিত হয় এবং স্বাভাবিক ভাবেই তাদের উপর বর্তায় তখন আমাদের এই অকণ্পনিয় মিডিয়ার প্রতি ভালোবাসা আর বিশ্বাসে আঘাত আসাটাই স্বাভাবিক নয় কি ?

শেষ করতে চাই গ্রাম্য একটি প্রবাদ দিয়ে যা আমরা সবাই জানি আর তা হল এক হাতে কোন দিন তালি বাজে না।

ছবি – বিডি নিউজ