ক্যাটেগরিঃ ব্লগালোচনা

 

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ব্লগের ব্লগারদের প্রকাশিত গত এক বছরের লেখা নিয়ে ব্লগ সংকলন “নগর নাব্য” বইমেলা ২০১২ চলাকালিন ব্লগার এবং পাঠকদের মাঝে ভাল সাড়া ফেলেছিল। ইতিমধ্যে পাঠক এবং ব্লগারদের শুভেচ্ছা মুল্যায়ন এবং আলোচনা-সমালোচনা আমাদের পরিশ্রমকে করেছে সফল। আর এর ধারাবহিকতা বোঝা যাচ্ছে মেলা শেষ হয়ে গেলেও পাঠকদের আগ্রহ ও আলোচনা অব্যাহত আছে দেখেই। অনেকেই নগর নাব্য সংগ্রহ করা নিয়ে জানতে চাইছেন এখনো। পরিচিত অনেকে যারা মেলা চলাকালীন স্টল খুঁজে পাননি, বা অন্য কারণে বইটি সময়মত সংগ্রহ করতে পরেননি, তাদের সুবিধার জন্য “নগর নাব্য” বইটি সংগ্রহের একটি সহজ পদ্ধতি জানিয়ে দিচ্ছি। ঘরে বসেই বইটি সংগ্রহ করতে পারেন অনলাইন অর্ডারের মাধ্যমে। এ ছাড়া ইচ্ছা করলে ফোন করেও বইটির অর্ডার করতে পারেন।

আপনার অর্ডার প্রাপ্তির পররকমারি ডট কম নগর নাব্য পৌঁছে দেবে আপনার হাতে। পাঠকের সুবিধার্থে নগর নাব্য -কে রকমারি এর বই তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। নগর নাব্য বইটির সারসংক্ষেপ জানতে হলে ক্লিক করুন ।

অনলাইনে অর্ডার পদ্ধতিঃ

(১) সাইটে রেজিস্ট্রেশন করতে ক্লিক করুন
(২) লগইন করতে হবে
(৩) নগর নাব্য পেতে অনলাইন অর্ডার করতে হবে

এরচেয়েও সহজ পদ্ধতি হচ্ছে – ফোনে অর্ডার করা। ফোন নম্বর -0088 01841115115

লক্ষ্যণীয়, অনলাইন অর্ডার বা ফোনে অর্ডার কালে আপনাকে কোন অর্থ দিতে হচ্ছে না। বই হাতে প্রাপ্তির পরই মূল্য পরিশোধ করতে হবে।

রকমারি ডটকম তাদের সাইটে বই সরবরাহের সময়সীমা ২-৫ কার্যদিবস জানিয়েছে।

বই সরবরাহের জন্য বইয়ের মোট মূল্যের সাথে ৩০ টাকা সরবরাহ সেবা মূল্য। এক কপি অর্ডার করলেও ৩০ টাকা, ৫ কপি অর্ডার করলেও সরবরাহ সেবা মূল্য ৩০ টাকা!

যারা এখনও বইটি সংগ্রহ করতে পারেননি, তারা এখনই অর্ডার করে ফেলুন। অর্ডার করার লিংকটি প্রচার করুন, পদ্ধতি সবাইকে বুঝতে সহযোগিতা করুন।

তবে ইচ্ছা করলে “নগর নাব্য” যে প্রকাশনী হতে প্রকাশিত হয়েছে সেখান থেকেও সংগ্রহ করে নিতে পারেন। নগর নাব্য প্রকাশ করেছিল শ্রাবণ প্রকাশনী [, ]। শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে অনেকেরই অনেক সময় আসা-যাওয়া চলে। আজিজ সুপার মার্কেটে শ্রাবণ প্রকাশনীর দোকানে নগর নাব্য পাওয়া যাবে।

এলাকার পাঠাগার, কোন সাংস্কৃতিক আয়োজনে বই উপহার দেয়ার ব্যবস্থা হলে, সেখানে “নগর নাব্য” -কে যুক্ত করুন। এভাবে ব্লগ ও নাগরিক সাংবাদিকতা চর্চার কথা পৌঁছে যাক লোক থেকে লোকালয়ে। আমরা লিখবো এবং আমাদের কথা আমরাই ছড়িয়ে দেব সবার মাঝে, আর যাই হোক এখন আর আমাদের হাত বাঁধা নেই অদৃশ্য শিকলে। নাগরিক সাংবাদিকতার মাধ্যমে আমার সামনের যে কোন অসংগতি সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে আমরা দৃঢ় প্রত্যয়ী। জয় হোক নাগরিক সাংবাদিকতার।