ক্যাটেগরিঃ আর্ত মানবতা

 

প্রত্যেকটি মানুষের মনেই ভালো যে দিকটি রয়েছে তা হলো- ‘মানুষের জন্য কিছু করি’ এরকম মানসিকতা। কিন্তু সামাজিক দৃষ্টিকোণ, নিত্য খারাপ সাহচর্য, ধর্মীয় জ্ঞানের অভাব, নৈতিকতার সংস্পর্শে না থাকা এসব কারণে এই মানুষের জন্য কিছু করার অনুভূতি হ্রাস পেয়ে যায়, বলা যায় এভাবে চলতে চলতে একসময় তা লোপও পেয়ে যায়। হারিয়ে যায় হাজারো অপকর্মের তলে। আমরা চারপাশে এতো এতো ভালো মানুষ থাকতে কেন এই মানুষগুলি পশুবৃত্তিতে আসক্ত হয়ে পড়ে? কেন মানবিক গুণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে দোষগুলোতে ডুব দেয়? এই প্রশ্নের উত্তর আমাদের অনেকেরই জানা আছে আবার অনেকের নেই। তারপরও মানুষ মানুষের জন্যই কাজ করে। মানুষের জন্যই প্রাণ উৎসর্গ করে। কোনো মানুষ ক্ষুধার্ত থাকলে খাদ্যের ব্যবস্থা করে। শীতে গরম কাপড় সংগ্রহ করে শীতার্তদের মাঝে দেয়। বন্যার্তদের সহায়তা করে। শিশুদের শিক্ষা প্রদান করে। আশ্রয়হীনদের আশ্রয় দেয়। এতোসব ভালো কাজগুলো করার পরেও দৃষ্টিগোচর অনেক খারাপ রয়ে গেছে। এই খারাপ বিধি কিংবা খারাপ আয়োজন মানুষই মানুষই ওপর প্রয়োগ করে।

আমরা চাই না আর একটিও খারাপ কিছু পৃথিবীতে বর্তমান থাকুক। আমরা চাই নারীদের প্রতি অবিচার দূর হোক। শিশুদের প্রতি সহিংসতা বন্ধ হোক। ঢাকা শহরের লক্ষাধিক পথে ঘুমানো মানুষের আশ্রয়স্থল জুটুক। আমরা বাংলাদেশে এমন মানুষ চাই যারা মানুষের জন্য লড়াই করবে, নিজের জন্য নয়। আত্মার শুদ্ধতা আর মানুষের জন্য কাজ করার স্পৃহাই পারবে আমাদের বাংলাদেশকে আরো গতিশীল করতে।

বাংলাদেশ হোক পৃথিবীর অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী দেশ যেখানে কমবয়সে বিয়ের অভিশাপ কারো ওপর পড়বে না। যেখানে শিল্প-সংস্কৃতি অটুট থাকবে। যেখানে আশার সঞ্চার হবে পর্বতে সুর্যোগয়ের মতো ফকফকা।

জয় বাংলা।