ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

যে কোন বিশেষন এই মুহুর্তে যার জন্য কম হয়ে যাবে তিনি হলেন ড: মাহফুজুর রহমান এটি এন বাংলার চেয়ারম্যান কেউ লিখছেন পরকীয়া বিশেষগ্গ কেউবা বলছেন নির্বোধ ডক্টরেট ৤ গত ৩০ মে লন্ডনে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনির হত্যাকাণ্ড নিয়ে বিভিন্ন মন্তব্য করেন এটিএন বাংলা চেয়ারম্যান। এক পর্যায়ে তিনি সাংবাদিক দম্পতিকে ‘পরকীয়ার বলি’ বলেও উল্লেখ করেন। ওই মন্তব্যের পর সাংবাদিকসহ বিভিন্ন মহলে তীব্র সমালোচনা ও মাহফুজকে গ্রেপ্তারের দাবি ওঠে।সাংবাদিক দের মধ্যে দুপক্ষ ভাগ হয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের হাতাহাতির দৃশ্য ও আমরা দেখেছি তার পর সাংবাদিক সমাজ এক হলো 10 জনকে বহিস্কার করা হলো কিন্তু মহানায়ক বহাল তবিয়তে একের পর এক নির্বোধের মত প্রলাপ বকছেন সর্বশেষ ,একুশে টেলিভিশনে সোমবার প্রচারিত নতুন আরেকটি ভিডিওতে মাহফুজকে বলতে দেখা যায়, “আরে, প্রাইম মিনিস্টার কতো না কথা বলেন। প্রাইম মিনিস্টারের বক্তৃতা শুনছেন না, ওইটাও বলছে, আমরা কি ড্রয়িংরুম পাহারা দেওয়ার দায়িত্ব নিছি? এইটা হচ্ছে, বেশি কথা বলতে বলতে বাচালের ফট করে একটা মিসটেক হয়ে যায় না, এ রকম একটা মিসটেক হয়ে গেছে।
গত কাল প্রাইম মিনিষ্টারকে নিয়ে এরকম কটুক্তি করায় মামলা ও হলো আজ আবার সেটা তুলে নিলেন মামলার বাদী এমদাদ তিনি নাকি অসুস্থ মামলা চালাতে অক্ষম ,কিন্তু কেন অন্য কোন কারন নেইতো ,সরকারের উপর মহলের কোন চাপে তিনি সরে এসেছেন কিরা সেটাই আমরা ভয়ের কারন ৤

কোন একটা ঘটনাকে চাপা দিদত গেলে আরেকটা ঘটনা ঘটাতে হয় ব্রেকিং নিউজে নতুন হেড লাইন আসলে পুরাতনটা আমরা ভুলে যাই এরকম ঘটনার পর ঘটনা যেভাবে ঘটছে সে জন্য আবার সাগর রুনির হত্যার বিচার এর দাবী আড়াল হয়ে যাবেনাতে যেমন করে আডাল হয়ে গেছে নরসিংদির পৌর মেয়র লোকমান হত্যাকান্ড?

মন্তব্য ১ পঠিত