ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

যখন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি তখন নাছির নামটা শুনলেই কেমন যেন আতংকিত হয়ে পড়তাম, ফটিকছড়ির জামাত শিবিরের এক নাছির আর শহরে আরেক নাছির আজম নাছির, তখন আসলে দূর থেকে শুনে আজম নাছির সম্পর্কে আমার মনে একটা বাজে ধারনা জন্মেছিলো মনে হতো লোকটা আওয়ামী লীগের ক্যাডারদের গডফাদার।

রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলাম না বলে এর বেশি জানতে চাইনি সুযোগও হয়নি, কিন্তু মেয়র ইলেকশানে যখন তার ছবি দেখলাম, আর খেলাধূলার সংগঠক হিসাবে আজম নাছিরের নামসহ পড়লাম নিজের ধারনার মূলে একটা ধাক্কা খেলাম, নাহ আমি কেন এত বাজে ধারনা করতাম তাহলে? আসলে কাউকে পুরো না জেনে কোন মন্তব্য বা ধারনা আদো ঠিক না সেটটা বুঝলাম, আর যখন চট্টগ্রামের মেয়র হিসাবে নির্বাচিত হয়ে আসলেন তখন মনে মনে নিজের ধারনা পাল্টাতে বাধ্য হলাম, না লোকটা এত খারাপ হলে মেয়র হতে পারতোনা, এত বড় দায়িত্ব পাওয়ার মতো যোগ্যতা অর্জন করতে গেলে অনেকক গুণাবলি থাকতে হয় এটা বাস্তবতা। কিন্ত যখন সরাসরি এই মানুষটা সরকারী কর্তাদের ঘুষ চাওয়ার ব্যাপারটি দায়িত্ব নিয়ে জানান দিলেন, তখন আসলো আমার পূর্বেকার সকল ধারনার জন্য সত্যিই লজ্জিত হওয়া ছাডা কোন উপায় থাকে না।

আপনার মতো লোকই সমাজে দরকার আ,জ,ম নাছির ভাই। আমরা জানি সরকারি দফতরগুলোতে কিভাবে টাকা দিয়ে কাজ করিয়ে আনতে হয়, উপায় নাই তাই দিতে বাধ্য হই, অামি নিজে অনেক সময় ঘুষ দিতে গিয়ে লজ্জিত হই, তবু বাধ্য হয়ে দিয়ে আসি ওই সব ফেরেশতাদের খুশি না করলে আমাদের ফাইলগুলো আটকে থাকে জায়গায় জায়গায়, একেক সময় অযোগ্য এসব লোকদের চেয়ার দখল গুনে যোগ্য হয়ে উঠা এবং তাদের উপদেশও হজম করতে হয়, কারন উনি আমলা, আজম নাছির যে কাজটি করেছেন সেটা যদি সবাই করতে পারতাম দেশটার চেহারাই বদলে যেত।