ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

সকাল বেলা প্রথম আলোর প্রথম পৃষ্ঠার একটা সংবাদের শিরোনাম ছিলো এরকম-ছিনতাই ঠেকাতে গিয়ে একজনের মৃত্যু-ঘটনাটা যশোর-নড়াইল রোড়ে এক স্কুল শিক্ষক ছিনতাই কারীদের কবলে পড়েন এবং ছুরিকাহত হন তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন স্থানীয় ব্রিক ফিল্ডের ব্যবস্থাপক শাহীন রেজা ,তিনি একজন ছিনতাইকারীকে জাপটে ধরলে একজন ছিনতাইকারী তাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করার পরও তিনি ছিনতাইকারীটিকে ছাড়েননি বরং শক্ত করে জাপটে ধরে রাখলেন যাতে পালিয়ে যেতে না পারে, তারপর অন্য ছিনতাইকারী তাকে গুলি করলে তিনি নিহত হন কিন্তু তার এই অসীম সাহসিকতার কারনে পালাতে পারেনি ছিনতাইকারীরা তাদের দুজন ধরা পড়ে গন পিটুনিতে নিহত হয়।

এই শাহীন রেজা যে এ রকম অসীম সাহসিকতার একটা কাজ করলেন তাকে আপনি কি বলবেন আমি জানি মুখে ভিন্ন কথা বললেও মনে মনে অনেকেই বলবেন লোকটা আসলে আহাম্মক অন্যের জন্য কেউ নিজের জীবনকে এভাবে বিপন্ন করে, কিন্তু তার এ ঘটনা একটা দৃষ্টান্ত , দু’একদিন হয়ত লেখালেখি হবে তারপর আমরাও ভুলে যাব কিভাবে চলবে শাহীন রেজার পরিবার যে দেশে আমরা মেয়র লোকমান হত্যার কথা ভুলে গেছি, ভুলে যাচ্ছি সাগর রুনি হত্যার কথা সে দেশে শাহীন রেজারা তো নস্যি ,এদেশে শাহীন রেজার মতো অসীম সাহসী লোকদেরই দরকার তাহলে ছিনতাইকারী,এসিড নিক্ষেপকারীরা খারাপ কাজ করতে ভয় পাবে কোন দিক দিয়ে কোন শাহীন মিয়া প্রতিবাদী হিসেবে ঝাঁপিয়ে পড়ে ,আমি সরকারের কাছে শাহীন রেজার সরকারী স্বীকৃতি দাবি করছি।