ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্যসচিব প্রফেসর আনু মোহাম্মদ বলেছেন, গণভোটের আয়োজন করলে দেখা যাবে দেশের ৯৯ ভাগ মানুষ সমর্থন রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিপক্ষে। সরকারের ৪ কোটি মানুষের জীবনের বিনিময়ে ১৩’শ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্রের কারণে দেশের ভয়াবহ ক্ষতি হবে।

আনু মুহাম্মদতিনি বলেন, মহাপ্রাণ সুন্দরবন বাংলাদেশকে রক্ষা করে। সুন্দরবন ৩৫-৪০ লাখ লোকের জীবিকার যোগান দেয়। প্রায় ৪ কোটি মানুষের জীবন প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে রক্ষা করে। বাংলাদেশের ফুসফুসখ্যাত নানা জীববৈচিত্র্যের আধার হলো সুন্দরবন। তাইযেকোন মূল্যে সুন্দরবনকে রক্ষা করতে হবে।

বুধবার সন্ধায় সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উদ্যোগে রংপুরের নিউক্রস রোডস্থ সুমি কমিউনিটি সেন্টারে ‘রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র ও সুন্দরবনের ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক আলোচনা সভা প্রধান আলোচকের বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এক হাতে পরিবেশ পদক আরেক হাতে সুন্দরবনের মৃত্যুর পরোয়ানা এটা দেশবাসী মেনে নেবে না। ইতিমধ্যে সুন্দরবন রক্ষায় দেশে জাতীয় জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে। শুধু দেশেই নয়, দেশের বাইরেও ভারত, ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশে এবং বিভিন্ন  বিজ্ঞান ও পরিবেশবাদী সংগঠন সুন্দরবনে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ বন্ধের দাবি করেছে ।

অনুষ্ঠানে ছাত্র ফ্রন্ট বেরোবি শাখার সভাপতি যুগেশ ত্রিপুরার সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন বেরোবি’র বাংলা বিভাগের শিক্ষক ড. রিষিণ পরিমল,ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মো. আতিউর রহমান, বাসদ জেলা সমন্বয়ক কমরেড আব্দুল কুদ্দুস, ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ছাত্রনেতা ইমরান হাবিব রুমন প্রমুখ।

এসময় আলোচকেরা রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিরোধিতা করে বলেন, সরকার ভুল তথ্য দিয়ে, ভুল বিজ্ঞাপনী-প্রচারণার মাধ্যমে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। সরকারের উচিত এসব পরিহার করে রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের বিষয়ে জনমত যাচাইয়ের জন্য  প্রয়োজনে মুক্ত আলোচনা বা গণভোটের আয়োজন করা।