ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

 

সংবাদ সম্মেলনে ভ্লাদিমির জিরোনোভস্কি রাশিয়া টুডের নারী সাংবাদিককে বললেন গেট আউট ফ্রম হেয়ার***লেসবিয়ান

 

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ-লন্ডন থেকে

 

russiaক্রেমলিনের ন্যাশনালিষ্ট লিডার ভ্লাদিমির জিরোনোভস্কি গতকাল প্রেস কনফারেন্সে রাশিয়া টুডের মহিলা সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে অত্যন্ত অশোভন ভাষায় রেগে গিয়ে বলে, হোয়াট আর ইউ ডয়িং ইন হেয়ার***, ইউ আর ইন প্র্যাগনেন্ট, গো হোম, সিট এন্ড রিলাক্স, লুক আফটার ইউর চিলড্রেন।

 

ইউক্রেন সংক্রান্ত বিষয়ে প্রেস কনফারেন্স করছিলেন রাশিয়ার এই ন্যাশনালিষ্ট লিডার। তখন উপস্থিত সাংবাদিকদের মধ্য থেকে ষ্টেলা ডিভস্কায়া তাকে জিজ্ঞেস করেন প্রো-ওয়েস্টার্নদের ব্যাপারে তাদের কোন সেংশন আছে কিনা ?- এই প্রশ্নে ভ্লাদিমির জিরোনোভস্কি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। তিনি ঐ মহিলা সাংবাদিককে অশালীন ভাষায় খিস্তি খেঁউড় করে তেড়ে যান। তখন পাশে থাকা দুজন পুরুষ সাংবাদিক তাকে মনে করিয়ে দেন ষ্টেলা প্র্যাগন্যান্ট। তখন তিনি আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন, গালাগালি শুরু করে দেন। এই অবস্থায় ষ্টেলাকে রক্ষায় এগিয়ে এসে বলেন, তার সাথে এমন বিহ্যাভ কেন করা হচ্ছে। এতে তিনি আরো রেগে গিয়ে বলেন, গেট আউট ফ্রম হেয়ার***লেসবিয়ান।

 

৬৭ বছর বয়স্ক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির এই নেতা প্রকাশ্যে তখন ঐ মহিলা সাংবাদিককে শুধু গালিগালাজই করেননি, পাশে থাকা দুজন পুরুষকে তিনি উৎসাহিত করেন, ঐ মহিলা সাংবাদিককে শারীরিকভাবে হেনস্থা করার জন্য। এমনকি তিনি তাদের ঠেলেও দেন, তাদের একজন ঐ মহিলা সাংবাদিকের উপরে পড়তে গিয়েও নিজেকে রক্ষা করেন। সাংবাদিকেরা তখন উচ্চ স্বরে বলেন, ষ্টেলা ছয়মাসের প্র্যাগন্যান্ট। এতেও ঐ লিডার ক্ষান্ত হননি। তিনি তখন বলেন কিয়েভ বিপ্লবের সময় তিনি দেখেছেন অনেক অন্তঃসত্ত্বা নারী ওখানে ছিলো।তিনি তাদের বলেন, যাও তাকে ধরো, কিস করো।

 

ইউক্রেনের ল্যাংগুয়েজ ও কালচারের সাপোর্টার ইরিন ফারাওনের সাথে তুলনা করে তাচ্ছিল্য করে মহিলা সাংবাদিককে বলেন, লুক এট দিস ফুল ইরিনা ফারাওন- যে কিনা রাশিয়ানদের ঘৃণা করতে শেখাচ্ছে। ফুল তুমি কি জান সে (ইরিনা) রাশিয়ানদের ঘৃণা করতোনা ? তার কোন সন্তান, লাভার, পরিবার কিছুই ছিলোনা, যাও তুমিও তার কাছে, তোমারও কেউ নেই, সেখানে যাও।

 

তুমি সেংশনের প্রশ্ন করছো- তুমি তাদের প্রতি সদয়!তোমার কাছে তাদের সাথে ডিল আছে?

 

এমন কথাবার্তার প্রেক্ষিতে একজন পুরুষ সাংবাদিক তাকে শান্ত করে যখন বলেন উনি প্র্যাগনেন্ট, এতে তিনি আরো ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, যাও তুমি তার কাছে, গিয়ে কিস করো তাকে বলে ঠেলে দেন মহিলার দিকে।

 

এমনি অবস্থায় উপস্থিত ইন্টারফ্যাক্স সাংবাদিক ইউলা চোচাভোলয়া তাকে আশ্বস্ত করলে এতে ও তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে বলে উঠেন তুমি লেসবিয়ান এখানে ইন্টারভেন কেন করছ ? তুমি বেরিয়ে যাও এখান থেকে।

 

তিনি বলেন আমরা চাই হেলথি পিপল, প্র্যাগন্যান্ট নারী কোন অবস্থাতেই কাজের মধ্যে উপস্থিতি চাইনা, তারা থাকবে ঘরের মধ্যে, বাচ্চাদের দেখাশুনা করবে।শেষ  পর্যন্ত কড়া ভাষায় বলেন এখান থেকে বেরিয়ে যাও***লেসবিয়ান্স।

 

জানা যায় ভ্লাদিমির জিরোনোভোস্কির এমন অশালীন ব্যবহারে ষ্টেলা একেবারে বিমর্ষ হয়ে পড়েন। তাকে তখন জরুরী চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়া হয়।

 

রাশিয়া টুডের মুখপাত্র সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন তারা ভ্লাদিমির জিরোনোভস্কিকে স্যু করবেন, সকল ধরনের আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন তারা। এমনকি ইউএসের তথ্য লিককারী স্নোডেনের আইনজীবী অ্যানাটোলি কোচরিনার সাথেও তারা শলা পরামর্শ করে আইনী ব্যবস্থা নিতে নিয়োগ দিবেন বলে জানিয়েছেন।

 

রাশিয়ার সাংবাদিকরাও সোচ্চার হয়ে উঠেছেন তার এমন অশালীন ব্যবহারে।ইউএস টুডে এবং সাংবাদিকেরা রাশিয়ান রাজনীতিবিদ সহ রাশিয়ান পার্লামেন্টের এথিকস কমিশনের সাথে যোগাযোগ করে অভিযোগ দাখিল করেন।পার্লামেন্ট এথিকস কমিটির চেয়ারম্যান সার্গেই নারিশকিন জিরোনোভোস্কির ব্যবহারে দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

 

কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান এমপি ইভান মেলনিকোভ বলেন উদ্ভূত ঘটনা দেশকে অনেক নীচে নামিয়ে নিয়ে এসেছে।

 

অর্থোডক্স চার্চও তার এমন অশালীন ব্যবহারের ও বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন।

 

অবস্থা বেগতিক দেখে ভ্লাদিমির জিরোনোভস্কি দুঃখ প্রকাশ করেছেন সাংবাদিক ষ্টেলার কাছে। রাশিয়ান টেলিভিশনের সাথে এক ইন্টারভিউতে সে দুঃখ প্রকাশ করেছে। সে তার এপোলজিতে বলছেন, আমি যখন ডোমাতে সাংবাদিক সম্মেলন করছিলাম তখন একজন ইয়ং নারী সাংবাদিকের সাথে কিছু উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়েছে, আমি মূলত প্রথম দিকে সেই নারী সাংবাদিককে দেখিনি।আমি আমার বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি এবং ঐ নারী সাংবাদিকের চিকিৎসার পুরো খরচ বহনের দায়িত্ব নিতে আমি অফার করেছি।

 

নারী বিদ্বেষী এই নেতা গত বছর রাশিয়ার সেন্ট্রাল ব্যাংকের হেড এলভিরা নাভিউলিয়ানাকে নিয়ে মন্তব্য করে মিডিয়ায় ব্যাপক সমালোচিত হয়েছিলেন।

 

সর্বশেষ, রাশিয়ার পার্লামেন্টারী জার্নালিষ্টরা আজ এই নেতার অশালীন আচরণের প্রতিবাদে এপিল সাইন লঞ্চ করেছেন।

 

 

<iframe frameborder=”0″ width=”698″ height=”503″ scrolling=”no” id=”molvideoplayer” title=”MailOnline Embed Player” src=”http://www.dailymail.co.uk/embed/video/1091543.html” ></iframe>

 

 

Salim932@googlemail.com

20th April 2014,London.