ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

আজ সবার জানা যে জঙ্গি বলতে আমরা শুধু জামাত – শিবিরের তাণ্ডবকে চিনি। যারা নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতে বোমা মারছে তাদের উপর (বাংলাদেশ পেক্ষাপট), যাদের অধিকাংশ মুসলমান।

তাদের প্রশ্ন করতে ইচ্ছে হয়, আপনারা যাদের নাস্তিক বলেন তারাও তো মুসলমান। তবে মুসলমান দিয়ে মুসলমানকে হত্যা করে আপনারা কোন রাষ্ট্র নির্মাণ করতে চান নাকি বিশেষ কোন উদেশ্য নিয়ে এ কাজ, সবার মনে প্রশ্ন থেকে যায়।

বাংলাদেশে ধর্ম নিরপেক্ষতার কথা বলা হলেও আমরা বিভিন্ন জায়গায় যে ধর্মবৈষম্য লক্ষ্য করছি তা হয়তো একদিন বিরাট আকার ধারণ করতে পারে। হিন্দু-মুসলিম বৈষম্য করেছে ব্রিটিশ সরকার, কিন্তু মানুষ আজো তার প্রভাব মুত্ত হতে পারেনি। আর এ বৈষম্য থেকে হয়তো জন্ম হয়েছে মুসলিম জঙ্গি। যদি এ অবস্থা চলতে থাকে তবে হয়তো আর কিছুকাল পরে সৃষ্টি হতে পারে হিন্দু জঙ্গি, অথবা বুদ্ধ জঙ্গি অথবা খ্রিষ্টান জঙ্গির। তাই সরকারের উচিত হবে সবার সাথে সমান সম্পর্ক বজায় রাখা। জনগণের মূল্যবোধ সৃষ্টি করা।