ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

০৭-০৬-২০১৫ইং

আজ নরেন্দ্র মোদীর ২য় দিন। অনেক ধর্ম মন্দির ও হিন্দু গুরত্বপূর্ণ স্থান পরিদর্শন করেন তিনি। অনেকে মনে করছেন বাংলাদেশের হিন্দু ও ভারত হিন্দুদের মধ্যে ধর্মীয় সম্পর্ক আরো গভীর হল।
কিন্তু আমার মনে বরাবর প্রশ্ন থেকে যায়, এটি আসলে গভীর হল নাকি, ভারতীয় নেতার বিদায়ের সাথে সাথে মুছে যাবে সব। যদি ও সকলে বলে থাকেন বাংলাদেশে হিন্দুদের উপর কোন আঘাত হলে তার প্রথম প্রতিবাদ আসে ভারত থেকে, তবে এমনটা বুঝাচ্ছে যে কোন বিপদে ভারত পাশে এসে দাঁড়ায়, আর আমরা সাহায্য নিয়ে থাকি।

তবে কি আমি বাংলাদেশে হিন্দু হয়ে জন্ম নিয়ে ভুল করেছি…!

দেশের চরমতম মুহূর্তে সেদিন স্বাধীনতাকামী মানুষদের প্রথম কাতারে ছিল বাংলার হিন্দুরা তেমনি চরম মূল্য দিতে হয়েছে হিন্দুদের। সে দিন হয়তো আমার পিতামুক্তি যুদ্ধের সময় অনেককে চিকিৎসা করে ছিল, আর বাবা যখন তার দিনগুলোর কথা বলত অনেক ভালো লাগত। কিন্তু এখন দেশের হিন্দুদের অবস্থা দেখলে মনে হয় হিন্দুদের কোন অধিকারই নাই বাংলাদেশে থাকার। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন রাজনৈতিক দূর্যোগের সম্প্রদায়িক চাপ টা আগে আসে হিন্দুদের উপর। মনে হয় হিন্দুরাই যেন বাংলাদেশ ইতিহাসের মির্জাফরেরর ভুমিকায়। কিন্তু জ্ঞানীরা জানে বার বার কারা বাংলার সাথে বিশ্বাস ঘাতকতা করেছে।

ইতিহাস জানলে বুঝতে পারবেন পদে পদে কত কষ্ট সহ্য করতে হয়ছে হিন্দুদের। আমি শুধু বাংলার হিন্দুদের এটায় বলাব নতুন ভাবে যদি ঘুরে দাঁড়াতে না পারেন তবে নিরবে হিন্দুদের অস্তিত্ব মুছে যাবে বাংলাদেশের মানচিত্র থেকে। যদি আমার লেখায় সম্প্রদায়িকতাকে উস্কে দিচ্ছি মনে হয় তবে আমাকে ক্ষমা করবেন। আমি কেবল হিন্দুদের করুণার পাত্র না হয়ে প্রতিরোধী হওয়ার প্রথর্না করছি মাত্র।