ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

bkash সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে (তারিখ ২৭/১২/১৪)১৬২৪৭ নাম্বার থেকে আমার নাম্বারে একটি কল আসল । ফোন-কলার নানা কথা বলল, তারা নাকি বিকাশের লোক!

আমি জানি এই ১৬২৪৭ নাম্বারটি বিকাশের হেল্প লাইন । কিন্তু এখন একটি প্রতারক গোষ্ঠি হুবহু এই হটলাইনটিই ব্যবহার করে দীর্ঘদিন থেকে বিকাশের লোক পরিচয়ে মানুষের সাথে আর্থিক প্রতারণা করে আসছে । বিষয়টি বিকাশ কর্তৃপক্ষ জানে। ফলশ্রুতিতে তারা মাঝে মাঝে গ্রাহকের নাম্বারে এসএমএস পাঠায়। এখানেই দায়িত্ব শেষ! আজব আর অদ্ভুত ব্যাপার । সাধারণ মানুষ এবার গঙ্গায় যাক সমস্যা নেই!

দেশের টেলিযেোগের যাবতীয় তথ্য যারা দেখাশোনা করে সেই বিটিআরসির সফলতার সব কথা জানি না। তবে মাঝে মধ্যে পত্রিকায় দেখি ফেসবুকে কটুক্তির কারণে বিভিন্ন যুবকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। এ গ্রেফতারে নাকি বিটিআরসির নানা সফলতা আছে।

বিটিআরসি এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেখানে এত সফল সেখানে একটি বড় আর্থিক প্রতিষ্ঠানের হটলাইন নাম্বারের হুবহু ক্লোনিং কিভাবে ব্যবহার করে ? এখানে বিটিআরসি, বিকাশ এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্ব কী?

আমরা প্রশ্ন হচ্ছে বাংলাদেশের মোবাইল ব্যাংকিং কতটা নিরাপদ? মোবাইল কোম্পানিগুলোও নাকি উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করছে তাহলে ১৬২৪৭ এই একটি নাম্বার হুবহু বাংলাদেশে একাধিক গোষ্ঠি ( বিকাশ এবং প্রতারক) কিভাবে ব্যবহার করছে?