ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা, ফিচার পোস্ট আর্কাইভ

ইংল্যান্ড-ভারতের হট টেম্পারমেন্ট ম্যাচ দেখার পর কখনও ভাবিনি আবারও এমন একটি ম্যাচের স্বাদ পাব। এক কথায় অসাধারন এমন একটি ম্যাচ যা আমার অনেক দিন মনে থাকবে। ইংল্যান্ডের ৮ উইকেটে করা ৩২৭ রানের জবাবে আইরিশ বাহিনী যখন ৫ উইকেট হারিয়ে ১১১ রান, তখন রিমোটের বাটন চেপে অন্য কোন চ্যানেলে চলে যাবার কথা ভাবছিলাম। ভাগ্যিস সামনে ডিনার চলে আসায় টিভি চ্যানেলটা ইংল্যান্ড-আয়ারল্যান্ড ম্যাচেই বহাল রইল। তারপর মাঝে মধ্যেই ডিনার প্লেট ছেড়ে এক নাগাড়ে টিভির পর্দায় তাকিয়ে থাকা এবং যথারীতি সামনের জুড়িয়ে যাওয়া খাবারের অভিসম্পাত।

কেভিন ও’ব্রায়েন যা করে দেখালেন তা এক কথায় অসাধারন, অবিশ্বাস্য এবং অতিমানবীয়ও বটে। যখন ঈশ্বর স্বয়ং এসে ভর করেন মানব শরীরে শুধু তখনই এমন ঘটনা ঘটতে পারে বলে আমার বিশ্বাস। বলের দ্বিগুণ গতিতে রান তোলা এবং তা ১০০ পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া, কেভিন ও’ব্রায়েন প্রমাণ করলেন হি ইজ দি কুলেষ্ট ওয়ান। সাক্ষী হলাম বিশ্বকাপ ক্রিকেটের দ্রুততম সেঞ্চুরীর এবং সর্বোচ্চ রান চেজ করে জেতার রেকর্ডের… এবং আরো একটি রেকর্ড যা কেউ বলবে না। সেটি হলো বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১১ এর প্রথম অঘটনের মঞ্চায়ন!

——————————————————————————————————————————————–
ফিচার ছবিঃ কে.এম. মাহ্‌বুব শরীফ এর কেভিন ও ব্রেইনের ৫০ বলে সেঞ্চুরিতেই রচিত হলো আজকের আইরিশ রুপকথা শিরোনামের পোস্ট থেকে সংগৃহিত