ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা, ফিচার পোস্ট আর্কাইভ

বর্তমান ডিজিটাল সরকার ফেসবুক এবং বাংলা ব্লগগুলো নিয়ে চরম আতঙ্কগ্রস্ত। কারন এই ব্লগ গুলিতে তথ্য নির্ভর লেখা প্রকাশ হয়। এখানে দলবাজি স্থান পায়না। এখানে তোষামোদ সম্ভব নয়। তাই ব্লগিং করা শিক্ষিত প্রজন্মকে নষ্ট রাজনীতির ধারক আর বাহকদের এই ভয়।

এই ভয় ও আতংক অস্বাভাবিক নয়। কারণ এই সরকার জানে ফেসবুক আর বাংলা ব্লগ-এর সচেতন প্রজন্ম গত নির্বাচনের ফলাফল নিরঙ্কুশ করতে ব্যপক ভূমিকা রেখেছে। কিন্তু তারা চাটুকারে পরিণত হয় নাই। অসত্য, স্বার্থান্ধতা, দলবাজি, দেশপ্রেম হীনতার বিরুদ্ধে তারা সোচ্চার। তারা দলের পোষা নেতাকর্মীর মত ‘জ্বি হুজুর’ আর ‘ঠিক বলেছেন হুজুর’-এ অভ্যস্ত নয়। তারা যুক্তি আর বাস্তবতা আর সত্য সচেতনতার আলোকে বিচার করে সবকিছু। তাই সরকারের সকল বির্তকিত কার্যক্রমের মাধ্যমে পূর্বের মতই ‘যেই লাউ সেই কদু’ পরিস্থিতি সৃষ্টির বিরুদ্ধে সচেতন সমাজের মুখপাত্রদের লেখালেখিকে এত ভয়। তাদের সচেতনতায় এত আতংক। (উল্লেখ্য যে, ইতিপূর্বে সরকার ফেসবুককে তথাকথিত সরকার বিরোধী প্রচারণার কারনে বন্ধ করেছিল।)

যে কোন বিষয়ে প্রতিবাদ করা এবং মত প্রকাশের অধিকার প্রতিটি নাগরিকের রয়েছে। এই অধিকার এই দেশের সংবিধান নাগরিকদের প্রদান করেছে। এই অধিকার আওয়ামী লীগ সরকার বা বিএনপি সরকারের দান নয়। আজ হরতালে সমর্থন দেয়ায়, ব্লগের মাধ্যমে কনকো-ফিলিপসের সত্য চিত্র তুলে ধরার অপরাধে জনপ্রিয় ব্লগার দিনমজুর (এই নিকে তিনজন তরুন ও সচেতন প্রকৌশলী ব্লগিং করেন)সহ কয়েকজন ব্লগারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর নিন্দা জানানোর ভাষা আমার জানা নাই।

সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন হয়রানিমূলক মামলা দায়েরের সম্ভবনা রয়েছে। দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পোস্টার পোড়ানোর কারনে তাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদোহিতার মামলাও হতে পারে। আমাদের প্রধানমন্ত্রীর উক্তি অনুযায়ী তার মত দেশকে কেউ ভালবাসেন না। এই ভালবাসার মাপকাঠিতে প্রধানমন্ত্রী আর দেশ বা রাষ্ট্র আজ সমার্থক হয়ে উঠেছে। আমরা অক্ষম জনগন এই সবচাইতে বেশী দেশকে ভালোবাসার কালো থাবা থেকে মুক্তি চাই। আমরা দেশকে ভালবাসি কিন্তু কোনদিন এই দেশপ্রেমকে ওজন যন্ত্রে তোলার প্রয়োজনীয়তা বোধ করি নাই। কারন আমাদের দেশপ্রেম যুক্তি ও বাস্তবতার আলোকে প্রশ্নবিদ্ধ নয়।

ফেসবুক ও বাংলা ব্লগ নিয়ে আতঙ্কগ্রস্ত ডিজিটাল সরকার এই নিরেট সত্য অনুধাবন করতে ব্যর্থ যে, অবাধ তথ্য প্রবাহ রুখে দেয়ার সাধ্য আজ কারো নাই। যতজন ব্লগার গ্রেপ্তার হবে তার দ্বিগুন ব্লগার জন্ম হবে। এটাই বাস্তবতা, এটাই সত্য।

আমরা সার্টিফাইড টোকাই। একজন মাননীয় মন্ত্রী আমাদের এই সার্টিফিকেট দান করেছেন। আমরা ধন্য। আমরা কৃতজ্ঞ। ধন্য আর কৃতজ্ঞতায় আবদ্ধ আমাদের গাঢ় ঘুম ভাঙবে কবে!

***
ফিচার ছবি কৃতজ্ঞতা: ব্লগার মোঃ আরিফ রায়হান মাহি