ক্যাটেগরিঃ আর্ত মানবতা

আমি ছোট্ট একটা গল্প বলে নেব প্রথমে…।

আমি যখন ডিপ্লোমা শেষ বর্ষে পড়ি তখন আমাদের সাথে পড়া একটি ছেলের কিসের যেন অপারেশন হবে বলে ওর বাবা আমাদের কলেজে আসে , তার ছেলের জন্য রক্ত লাগবে ৬ ব্যাগ। গ্রুপটাও এমন যে সহজে পাওয়াও কষ্ট। এ (-) ছিল তার রক্তর গ্রুপ। আর এমনই অবস্থা যে ঐ মূহুর্তে কেউ রক্ত দিতে চাচ্ছিল না কারণ সামনে পরীক্ষা আর মাত্র এক সপ্তাহ বাকি। কিন্তু রক্ত না হলে অপারেশন করাও সম্ভব না আর অপারেশন করা এখন জরূরী । কথাটা আমার কান পর্যন্ত আসল, তখন একেবারই শেষ মূহুর্ত । হঠাৎ মনে পরে গেল বেশ কয়েক মাস আগে যখন আমি আর আমার কয়েকজন বন্ধু মিলে সন্ধানীতে রক্ত ডোনেট করতে যাচ্ছিলাম তখন ওকে বলেছিলাম আমাদের সাথে স্বেচ্ছায় রক্ত দিতে যেতে, এখনো মনে আছে ও মুখ বেকিয়ে বলেছিল, “ আমারে পড়তে পাঠিয়েছে এইখানে রক্ত দিতে না।”
আজ তারই রক্ত লাগবে। অনেক চেষ্টায় সন্ধানীর, আরও কিছু রক্ত কেন্দ্র থেকে চার ব্যাগ ক্যালেকশন করতে পারলাম। তাই দিয়েই অপারেশন করতে হল । মহান আল্লাহর অশেষ মেহেরবানীতে বেচেও গেল সে।
সুস্থ হয়ে যখন সে বাসায় , একদিন গেলাম তাকে দেখতে। তাকে মনে করিয়ে দিলাম তার কথাগুলো আর আমাদের কষ্ট করে খুজে বের করে দেয়া রক্তদাতার সাথে পরিচয় করিয়ে দিলাম।

আমার গল্পটা এইখানেই শেষ, আমি আমাদের এই ব্লগার জগতে থাকা প্রতিটা মানুষকে জানাতে আর বলতে চাই , আপনারা আপনার আশেপাশে থাকা মানুষকে নয় বরং হয়তো আপনি আপনারই কোন এক বন্ধু , কোন আত্মীয় , কোন এক ছোট বোন এর নিভে যাওয়া জীবনকে নতুন করে জ্বেলে দিতে পারেন আপনার স্বেচ্ছায় দেয়া রক্ত দিয়ে।

আমরা যারা নেট ব্যাবহার করি তারা কম বেশি সবাই ফেসবুক এর সাথে পরিচিত। আমাদের কয়েকজনের চেষ্টায় গড়ে ওঠা একটি পেজ ডোনেট ব্লাড সেভ লাইফ ৩০০০ মেম্বার এর । আমরা আমাদের চেষ্টায় অনেক মানুষকে রক্ত সংগ্রহ করে দেই দেয়ার চেষ্টা করি।

আমার একান্ত অনুরোধ যারা মানব সেবা লোক দেখানো করতে নয় বরং আত্মার তাগিদে করার ইচ্ছা রাখেন তারা একটি বার আমাদের পেজে ঘুরে আসুন। আপনাদের বিভিন্ন মেডিকেল প্রশ্নের উত্তর ও পেয়ে যাবেন।

সব শেষে আবারো বলবো , আপনারা নিজে রক্ত দিন অন্যদেরকেও দিতে উৎসাহিত করুন ।

https://www.facebook.com/দনটেব্লূদ18

মন্তব্য ০ পঠিত