ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

বিএনপির মহাসমাবেশকে ঘিরে রাজধানী ঢাকায় নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছিলো কয়েকগুন। সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেয়া হয় ওই দিন।
হাজার হাজার র‌্যাব-পুলিশ,বিজিবি ও ছাত্রলীগের কর্মীরা রাম দা ও লাঠি নিয়ে অবস্থানে ছিলো রাজপথে। ঘাটে-ঘাটে ছিলো লাল বাহিনী। নিরাপত্তায় সরকার নানা কর্মসূচিও হাতে নিয়েছে। সরকারের ডাকা অঘোষিত হরতাল পালিত হয়েছে। স্কুল কলেজসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অলিখিত ছুটি ছিলো। রাস্তায়-রাস্তায় থাকলো সরকারি পিকেটার। অপ্রত্যাশিত ঘটনা এড়াতে সারা দেশ থেকে রাজধানীকে বিচ্ছিন্নও করা হয়েছে। ব্যাপক ধরপাকড় ছিলো সারা দেশে। আবাসিক হোটেল,খাবার দোকান খুলতে দেয়া হয়নি। জনগনের জান মাল রক্ষায় এসব ব্যবস্থা। এমন ঐতিহাসিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকলেও মহাসমাবেশের দিন বিএনপির মিছিল দেখে সমাজকল্যান মন্ত্রী এনামুল হক মোস্তাফা শহীদ গাড়ির পতাকা গুটিয়ে তড়িঘড়ি করে গাড়ি ঘুরিয়ে সটকে গেলেন। এত নিরাপত্তাতেও ভয়? রাজপথে ছাত্রলীগ কর্মীদের হাতে গজারি গাছের লাঠি এবং ধারালো রাম দা তো ছিলোই। কই তারা তো গাড়ি রক্ষায় এগিয়ে এলো না। তারা ব্যস্থ ছিলো সমাবেশের জনস্রোত ঠেকাতে। তবুও বাধা পেরিয়ে সমাবেশে ছিলো লাখো মানুষের ঢল। শুধু গুটিয়ে গেলো মন্ত্রীর গাড়ির পতাকা। রক্তে অর্জিত পতাকা। সে পতাকা বাহক মিছিল দেখে ভয় পায়, গুটিয়ে নেয় পতাকা। স্বাধীনতার প্রথম পতাকা উত্তোলক আ স ম আবদুর রব আমাদের ক্ষমা করো।