ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

কম্পিউটার এর যে গুনটি আমাকে সবচেয়ে বেশি আকর্ষণ করে তা হল এটি অন্যান্য যন্ত্রকে নিয়ন্ত্রন করতে পারে । রোবট, “বুদ্ধিমান” গাড়ি, মহাকাশযান, বড় বড় আধুনিক কারখানা – সবকিছুর মুল ভিত্তি এটাই । বিদেশি সিনেমাগুলোতে আমরা দেখি কম্পিউটার দিয়ে সবকিছু কন্ট্রোল করতে । আমি জানি অনেকের মনেই তখন প্রশ্ন জাগে “এটা কীভাবে করে ??” বাংলাদেশে কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের মাঝে কম্পিউটারের আসল কাজগুলো করার অনীহা খুবই প্রকট । কিন্তু তারপরও অনেকেরই ইচ্ছা থাকে এরকম কিছু করার । আজ আমি সেরকম ১টা মডেল সিস্টেম দাড়া করাবো । এই সিস্টেমটা ১টা বাল্বকে কম্পিউটারের নির্দেশ মোতাবেক জ্বালাতে-নেভাতে পারবে ।

প্রয়োজনঃ
১. কম্পিউটার
২.ভিজুয়াল বেসিক ৬ (প্রোগ্রামিং এর জন্য)
৩. ১টা Transistor
৪. ১টা rely
৫.১টা ১ কিলো ওহম রোধ ।
৬. ১টা বাল্ব।
৭. একটু তার।
যাদের ইলেক্ট্রনিক্সে বেসিক জ্ঞান নাই, তারা Transistor আর rely নিয়ে প্রশ্ন করবে । সোজা কথায় Transistor হল খুব দুর্বল বৈদ্যুতিক সিগনালকে বেশি শক্তিশালী সিগনালে রূপান্তরিত করার ১টা ইলেক্ট্রনিক পার্টস । খুব সহজে Transistor সম্পর্কে কম কথায় জানা যাবে এইখানে-
http://www.ikalogic.com/tut_bjt_switches.php
আর রীলে হল ১ ধরনের সুইচ । এতে নির্দিষ্ট পরিমান বিদ্যুৎ দিলে এটি ১টা বর্তনীকে “অন” রাখে , আর না দিলে আরেকটা “অন” রাখে ।এর ভেতরে ১ টা বৈদ্যুতিক চুম্বক থাকে । আর এর রোধ(বিদ্যুৎ প্রবাহকে বাধা দেয়ার ক্ষমতা) অনেক কম

ভিজুয়াল বেসিক হল কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এর জন্য সবচেয়ে সহজ ভাষা । এটা পিসিতে ইন্সটল করা থাকতে হবে । আমি এর ৬ নম্বর ভার্সন ব্যবহার করেছি ।

বানানোঃ
এই সিস্টেমটার ২ টা অংশ – প্রোগ্রামিং অংশ আর ইলেক্ট্রনিক অংশ । প্রোগ্রামিং অংশ ব্যবহারকারীর কাছ থেকে নির্দেশ নিয়ে ১টা সিগনাল তৈরি করবে । আর ইলেকট্রিক সার্কিটটা সেই সিগনালকে “ক্যাচ” করে বাল্ব(বা অন্য যেকোনো যন্ত্র) নিয়ন্ত্রন করবে । এখানে আমরা কম্পিউটারের সিগনাল বাইরে আনার জন্য ব্যবহার করব সিরিয়াল পোর্ট । যার কম্পিউটারে সিরিয়াল পোর্ট নাই,(আধুনিক অনেক কম্পিউটারে থাকে না ) সে ইউএসবি – সিরিয়াল কনভার্টার কিনে ব্যবহার করতে পারবে ।

প্রোগ্রামিং অংশঃ
প্রথমেই ভিজুয়াল বেসিক ওপেন করুন । new project উইন্ডোতে “standard EXE” select করে OK করুন ।
এরপর সবার ওপরের অপশনগুলো থেকে “project” এ ক্লিক করুন । অনেকগুলো অপশন আসবে। “components” এ ক্লিক করুন । এখন নতুন উইন্ডোতে যে লিস্টটা আসবে, টা থেকে “Microsoft comm control 6.0” এর সামনে টিক দিয়ে apply ও OK করুন ।“Microsoft comm control 6.0” হল সিরিয়াল পোর্ট কন্ট্রোল করার জন্য ভিজুয়াল বেসিক এর কম্পোনেন্ট ।
এখন দেখুন- স্ক্রীনের বাম দিকে অনেকগুলো কম্পোনেন্ট এর মাঝে সবার শেষে ১ টি টেলিফোনের আইকন যুক্ত অপশন আছে । ওটাতে ডবল ক্লিক করুন ।
দেখবেন যে ফর্মে টেলিফোনের আইকনটি যুক্ত হয়েছে । এবার ফর্মের ওটাতে ১বার ক্লিক করুন। ডানপাশের properties বক্সের “DTREnable” properties টি “false” করে দিন । এখন ফর্মে ২ টা বাটন যুক্ত করুন । (কম্পোনেন্ট লিস্টে আছে) । ১টা বাটনের নাম দিন “ON” ,আরেকটার “OFF” । “ON” বাটনে ডাবল ক্লিক করুন । কোড উইন্ডো আসবে । তাতে নিচের কোড লিখুন-
MSComm1.PortOpen = True
MSComm1.DTREnable = True
“OFF” বাটনে লিখুন-
MSComm1.DTREnable =False
DTR কম্পিউটার সিরিয়াল পোর্টের ১ টা স্ট্যাটাস পিন (৪ নাম্বার পিন) । বিস্তারিত না বলে এততুকুই বলি যে এটা কম্পিউটারের একটা বিশেষ স্ট্যাটাস জানাতে “অন” অথবা “অফ” হয় । আমরা “ON” বাটনে এই পিনকে অন(সক্রিয়) হবার নির্দেশ দিয়েছি । আর “OFF” বাটনে তাকে অফ(নিষ্ক্রিয়) থাকতে বলেছি । তাই বাটন ক্লিক করলে ডিটিআর পিনে ভোল্টেজ থাকে । আর ক্লিক করলে ভোল্টেজ থাকে না ।(আসলে উল্টা পোলারিটিতে থাকে, যা Transistor এর কাছে না থাকার সমান )
ইলেক্ট্রনিক অংশঃ
সার্কিট বানানোর পালা। অত্যন্ত সহজ ১টা সার্কিট । আমরা ডিটিআর পিনের সিগনাল দিয়ে রীলে অন-অফ করব । সাধারন সিরিয়াল পোর্টে ভোল্টেজ থাকে ১১.৫ এর মত , (আমারটায় ছিল ১১.৭৫) ইউএসবি- সিরিয়ালে থাকে ৫ ভোল্ট আর রীলে বাজারে ৬ ভোল্ট, ১২ ভোল্ট এ পাওয়া যায় । তাই আমরা সরাসরি এই পিনের সাথে রীলে জুড়ে দিয়ে কাজ শেষ করতে পারতাম । কিন্তু, এই ডিটিআর পিনের ১টা হাইয়েস্ট কারেন্ট রেটিং আছে। আর আগেই বলেছি যে রীলের রোধ কম। তাই সরাসরি জুড়ে দিলে তা পুড়ে ছাই হয়ে যাবে ।(আমার কনভার্টারটার ভাগ্যে এটাই ঘটেছিল ) তাই দরকার বিদ্যুৎ প্রবাহ(কারেন্ট) কমানো । আর তাই এর সাথে লাগাতে হবে রোধ , যা প্রবাহ কমাবে। কিন্তু সেই কম প্রবাহ কিন্তু রীলেকে চালাতে পারবে না। তাই সেখানে ব্যবহার করতে হবে Transistor ।এখন প্রশ্ন হল কোন Transistor ব্যবহার করব ? এ সম্পর্কে বলার আগে নিচের লিঙ্ক দেখে নিন –
http://www.kpsec.freeuk.com/components/tran.htm
এই প্রজেক্টে আমরা যেকোনো বড় Hfe এর Transistor ব্যবহার করতে পারব। কারন সেগুলোর হাইয়েস্ট আউটপুট থাকে ০.১ অ্যাম্পিয়ার এর মত, তাই রীলে জ্বলে যাবার সম্ভাবনা থাকবে না। আবার গেইন ও বেশি পাওয়া যাবে ।১টা সার্কিটই অন-বোর্ড ,ইউএসবি সব পোর্টের জন্য কাজ করবে । আমি আমার কাজে ব্যবহার করেছিলাম BC547 ।এরপর Transistor এর আউটপুট রীলেতে ইনপুট হিসেবে দিতে হবে । পাওয়ার সাপ্লাই হবে রীলের সাথে সঙ্গতি রেখে ।
সার্কিট ডায়াগ্রামটা নিচে দিলাম –

আমি আমার প্রজেক্টে কোন প্রোটেকশন ডায়োড (Transistor এর জন্য )ব্যবহার করিনি । কোন সমস্যাও হয়নি । তবে ব্যবহার করা অবশ্যই ভাল।

এই প্রজেক্টের কিছু ছবি ও ভিডিও –

ফেসবুক লিঙ্ক [,,, , ]

দ্রষ্টব্যঃ বলে রাখা ভাল যে এই পোস্টটা স্কুল-কলেজের ছেলেমেয়েদের জন্য লেখা , যাদের ছোটখাটো “প্রজেক্ট” বানানোয় আগ্রহ আছে ।