ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

আপনার কয়টা সিম বা মোবাইল আছে? একজন মানুষ একসাথে কয়টা মোবাইলে কথা বলতে পারে? অনেকের হাতের মুঠোয় দেখি ২/৩ টি মোবাইল আছে।আপনার মোবাইল ফোনে প্রতিদিন যা কথা হ্য় তার কি কোন হিসাব আছে আপনার কাছে? নিঃশ্চয় না অথবা হ্যাঁ বলতে চেষ্টা করবেন।

কিন্তু বাংলাদেশ সরকার তার কর্তৃক খবর রাখেন যে আপনি নন-রেজিস্টার সিম কার্ড থেকে কথা বলতে পারছেন আপন মনে।আপনার পকেট অথবা মানিব্যাগ ঝাড়লে যে নন-রেজিস্টারড ৩/৪ টে সিম পাওয়া যাবেনা তা একেবারে মিথ্যে নয়।এত সিম দিয়ে কি করেন ভাই?

টি,ভি পত্রিকার খবরে প্রকাশিত অনাকাঙ্খিত কিছু ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে আমাদের মোবাইল ফোনের চমৎকার ভূমিকা । বাংলাদেশ সরকার কিছুদিন আগে বলেছিল যে,১৮ বছরের কম বয়সীকে মোবাইল সিম দেয়া হবেনা। রাস্তায় চলার পথে দেখি দোকানে দোকানে ব্যানার লিখা ৫০ টাকায় যে কোন সিম পাওয়া যায়। সস্তা দেখে আমিও কিনতে গিয়ে দেখি রেজিস্টার্ড -নন রেজিস্টার্ড সিম কেনা যায়। যত ইচ্ছে ।
আমার মনেহয় VOIP CRIME হচ্ছে নন-রেজিস্টার্ড সিম থেকে ।আমি যখন দেশের বাহির থেকে দেশে কল করেছি আমার আম্মাকে,তখন আমাকে বলত আমি নাকি দেশি মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করতেছি।মোবাইলে আরও কত কাহানী সৃষ্টি হচ্ছে তা আমাদের অনেকের জানা আছে।

আমার মতে,বাংলাদেশ সরকারকে এই দায়িত্ব নিতে হবে যে, সিম কোম্পানি থেকে একটির বেশি সিম কোন গ্রাহককে দেয়া হবে না, অবশ্যই তা রেজিস্ট্রিকৃত হতে হবে।অন্যথায় যদি কেউ নন-রেজিস্টার্ড সিম কিনে তাহলে নেটওয়ারকিংয়ের অনুমতি দেয়া যাবেনা . . .এবং আজ থেকে সবগুলো নন-রেজিস্টার্ড সিম নেটওয়ার্কিংয়ে ইন-একটিভ করে দিন দেখবেন অনেক কিছুর সুন্দর সমাধান হচ্ছে।

যারা সিম ব্যবসা করেন তাদের জন্য গ্রাহক ডাটা ফিলআপ করে ইন্টারনেটে সিম রেজিস্টার্ড করতে সংশ্লিষ্ট সিম কোম্পানি বরাবর এপ্লাই করতে হবে যা ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রাহক ডাটা যাচায় বাছাই করে সিম একটিভ করবেন। তাহলে আমাদের দেশের মোবাইল ব্যবহার হবে যথাযথ। চলমান সরকারের জন্য হবে অনেক গুলো ভাল কাজের মধ্যে সবচেয়ে ভাল একটি কাজ।