ক্যাটেগরিঃ নাগরিক মত-অমত

দুটি বিবাহিত মানুষ, লিঙ্গ পরিচয় না হয় অনুল্লেখই থাকল, তারা সকালে অফিসে এসেই সিটে বসল, কম্পিউটার চালু করল, একটু পরেই প্রথমেই একজন আরেকজনকে ডেকে বলল, দেখো, দেখো, একজন কী পাঠিয়েছে। একজন পোস্ট করেছে, “সম্পর্কে চিরকাল মধুরতা ধরে রাখতে চাইলে যে ৬টি কথা প্রতিদিনই সঙ্গীকে বলবেন”। ছয়টি কথা হল,

  1. আমি তোমাকে বিশ্বাস করি,
  2. আমি তোমাকে ভালোবাসি,
  3. তুমি আমার জীবনের সবচাইতে সঠিক সিদ্ধান্ত,
  4. আমি সবসময় তোমার পাশে আছি,
  5. তুমিই সব থেকে ভালো,
  6. আমি তোমাকে সম্মান করি।

অন্যজন দেখেই মন্তব্য করল,

ফেইসবুক আমাদের এসব কী শেখাচ্ছে? এটা কীভাবে সম্ভব হয়? কীভাবে সত্য হবে? মিথ্যাকথা। আমি আমার সঙ্গীকে সঙ্গী করেছি মানে এই নয় যে সে আমার জীবনের সবচাইতে সঠিক সিদ্ধান্ত।

অন্যজন বলল, তাহলে তো ৩ নং পয়েন্ট বাদ।

– বাদই তো হবে। আপনি কি … ভাই/ভাবীকে আপনার জীবনের সবচাইতে সঠিক সিদ্ধান্ত বলে মনে করেন?

– হাহ্ হাহ… কোনো উত্তর দিলেন না।

– বললে তা মিথ্যা কথা ভরা হবে।

– আচ্ছা এক নম্বরটা?

– রাখেন, … মানুষকে কখনো বলবেন না যে “আমি তোমাকে বিশ্বাস করি”। সন্দেহের মধ্যে রাখবেন। … মানুষকে বিশ্বাস করছেন তো মরেছেন।

– হাহ হাহ … আরও পরামর্শ দিয়েছে বলতে , “তুমিই সব থেকে ভালো।”

– এগুলো সব মিথ্যাকথা। কেউ বললে তা হবে একদম মিথ্যা কথা।

– মিথ্যাকথা্ বলে হলেও সম্পর্কে চিরকাল মধুরতা ধরে রাখতে চাইলেে এই ৬টি কথা প্রতিদিনই সঙ্গীকে বলতে হবে।

– রাখেন, আমি মনে করি, “আমি তোমাকে ভালোবাসি” কথাটা ছাড়া আর কোনোটাই সত্য নয়। আর মিথ্যা বলে হলেও সম্পর্কে চিরকাল মধুরতা ধরে রাখতে চাইলেে এই ৬টি কথা প্রতিদিনই সঙ্গীকে বলতে হবে?

পাশ থেকে তৃতীয় একজন সিনিয়র পর্যায়ের সহকর্মী বললেন, “তোরা বলিস না তো বলিস না। তাই বলে কি তা ঢাকঢোল পিটিয়ে বলতে হবে? অন্যদের জানাতে হবে?” থাম।

এই কথোপকথনে একজনের দৃষ্টিভঙ্গিটাই বেশি জোরালোভাবে ফুটে উঠেছে। বাকি দুজনেরও সমর্থনযোগ্য দৃষ্টিভঙ্গি অনুমান করা যায়। আমি একজন শ্রোতা পর্যবেক্ষক ছিলাম পাশে বসে।

পাশে বসে আমি শুনছিলাম। শুনে ভাবলাম, এ কেমন প্রজন্ম? এ কেমন তাদের সঙ্গীকে নিয়ে ভাবনা। এ কেমন সম্পর্ক? ভালোবাসি সঙ্গীকে, কিন্তু তাকে বিশ্বাস করি না; তাকে জীবনের সবচাইতে সঠিক সিদ্ধান্ত ভাবতে পারি না; দ্বিধা করি তাকে বলতে, আমি সবসময় তোমার পাশে আছি; তাকে সব থেকে ভালো বলে মানি না; তাকে সম্মান করি না। এ কেমন সম্পর্ক? এরকমই আজকাল অনেক ছেলেমেয়ের নাকি সম্পর্কের ধরন ও সম্পর্কের দৃষ্টিভঙ্গি। তাহলে এসব ছেলেমেয়ের কাছে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক কি শুধুই ভালোবাসাহীন, বিশ্বাসহীন, সম্মানহীন, সহানুভূতিহীন, পারস্পরিক দাতা-গ্রহিতার (গিভ এন্ড টেক এর) ?

আমি স্তম্ভিত, হতবাক ছিলাম বেশ কিছু সময়। তার পর ব্লগিং-এ শেয়ারিং।

আমি বুঝতে পারি না, যে সম্পর্কে শেকড় নেই, ডালপালা-পাতা নেই, শূন্যলতার মতো এ কেমন সম্পর্ক দেখি সমাজে? এ কেমন সম্পর্ক দেখি সমাজে প্রতিনিয়ত? হত্যা দেখি, ডিভোর্স দেখি, সংসার নাম কুরুক্ষেত্র দেখি- এগুলো তার পরিণাম?

আপনাদের মতামত শুনতে চাই।