ক্যাটেগরিঃ স্যাটায়ার

 

প্রথম বন্ধু: অাল্লাহ অামাকে বাঁচিয়েছে সমাপনী পরীক্ষার কবল থেকে। অাহ কি অারাম কটা দিন।

দ্বিতীয় বন্ধু: tahole to tumi class sixae uthe gele.

তৃতীয় বন্ধু: Promoted from primary school to high school.

প্রথম বন্ধু: অামি না অামি না অামার কন্যা প্রিয়ন্তিকা।

২.

একজন এক মন্ত্রীর বক্তব্যসহ নিউজ পড়ে পাঠক মন্তব্যে লিখেছেন: এই লোকটার (মন্ত্রীর) প্রয়োজন ফুরিয়েছে। যত শীঘ্র পদত্যাগ করবেন ততই মঙ্গল।

দ্বিতীয় ব্যক্তির মন্তব্য: উপরের মন্তব্যকারীর কথার প্রতিক্রিয়ায় লিখেছে, সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্ন ফাস হয়েছে কী হয়নি এটা নিয়ে তর্ক চলছে। সমাপনী পরীক্ষা দায়িত্ব প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের। অথচ সরতে (পদত্যাগ করতে) বলছেন শিক্ষামন্ত্রীকে।

তৃতীয় ব্যক্তির মন্তব্য: ঐ যে একটা গল্প আছে না, এক বাচ্চা যার নাম বলে সে মারা যায়। একদিন দেখা গেল, বাচ্চাটি বাবা বাবা বলল, সবাই ভাবল, বাবা মারা যাবে। পরে দেখা গেল বাবা মারা গেল না। সবাই ভাবল বাচ্চাটি এবার ঠিক বলেনি। যারা গল্পটি জানেন তারা জানেন বাচ্চাটি ভুল বলে নি। যারা গল্পটি জানেন না তারা ভাবলেন ভুল বলেছে শিশুটি, এই আরকি। … হাহ্ হাহ্।

৩.

মন্ত্রীর বক্তব্যের উপর আরেকটি ফানি মন্তব্য শেয়ার না করে পারছি না :

হাত পুড়ে যাবে কারণ, প্রশ্নে মন্ত্র দেয়া আছে ।

ইলি গিলি ইলি গিলি ছু……… কি হল? কি হল? প্রশ্নে হাত দেয়ার কারণে হাত পুড়ে গেছে!

৪.

মন্ত্রীর বক্তব্যের উপর আরেকজন খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন করেছেন:

মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী, আমরাও তো বলি, সবাই কেন যে মিথ্যা প্রচারণা করে আমাদের শিক্ষামন্ত্রীর বদনাম করছে! আগেভাগে প্র্‌শ্ন প্রকাশিত হওয়া মানে কি প্রশ্ন ফাঁস হওয়া?

আরেক জন এর মন্তব্য :

এতো দেখা যায় রাজা হবুচন্দ্রএর জুতা আবিষ্কারের মত কাহিনী! পায়ে ধুলা লাগে বলে রাজার পরামর্শে সারা পৃথিবী চামড়ায় মুড়ে দাও!

৫.

আমার সহব্লগার  শাহরিয়ার আরিফ লিখেছেন হা্স্যরসাত্মক গ্রামাঞ্চলে একটাকথা প্রচলিত কথা, “দাদীর কবর কোথায়?  আর কাঁদছিস কোথায়?” কথাটা খুব মানানসই মনে হচ্ছে আমাদের শিক্ষামন্ত্রীর ক্ষেত্রে।

৬.

এক লোক দেখেছি যিনি  আশেপাশে যে কারো  মোবাইল ফোন বেজে উঠলেই ধরে হ্যালো হ্যালো শুরু করেন। কথা বলেন। কিন্তু একবারও ভাবেন না ওটা কি তাঁর ফোন। যখন কথাবার্তা বলে দেখেন অন্য পাশের  ফোনকলকারী অচেনাে তখন ভুল বোঝেন। এর মধ্যে সবাই হাসে। মজা পায়।

৬.

খালেদা জিয়া বসে বসে কাঁদছেন। শেখ হাসিনা গিয়ে জিচজ্ঞস করছেন, কী হইছে আপা? আপনি কাঁদছেন কেন?

খালেদা জিয়া: প্রশ্নপত্র ফাঁস হচ্ছে দেইখা কাঁদতাছি।

শেখ হাসিনা: তাতে কান্নার কী হইল?

খালেদা জিয়া:কাদতাছি কেন জানেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসটা আমার সময়ে হইল না কেন? তা হইলে তো….

শেখ হাসিনা:ও আইচ্ছা।

৮.

সাবেক এক শিক্ষামন্ত্রী অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে অপারেশনের টেবিলে তাঁকে এনেসথেসিয়া দিয়ে রাখা হয়। কিছুক্ষণ পর ওই মন্ত্রী জেগে দেখেন দুজন চিকিৎসক গাইড বই পড়ছেন। রোগী বিরক্ত হয়ে চিকিৎসকদের বলেন, আপনারা অপারেশন না করে কী পড়ছেন। জবাবে চিকিৎসকেরা বলেন, ‘ফাঁস হওয়া প্রশ্নে গোল্ডেন জিপিএ পেয়ে পড়াশোনা না করে চিকিৎসক হয়েছি। তাই এখন গাইড পড়ছি যদি কিছু করা যায়।’

৯.

আমাদের এক বন্ধু পত্রিকা থেকে একটি শিরোনাম পড়ল, “অজ্ঞান পার্টির ৩১ জন প্রতারকের সাজা”।

শুনেই পাশের বন্ধু প্রশ্ন করল, কোন পার্টি বললে?

– অজ্ঞান পার্টি।

– এটা ২০ দলীয় জোটের না ১৪ দলীয় জোটের অন্তর্ভুক্ত।

– কেন এ প্রশ্ন কেন?

– ২০ দলীয় জোটের হলে হরতাল ডেকে বসতে পারে।

হাহ হাহ হাহ

……………

চোর ঢুকেছে ঘরে। একটা একটা করে নিয়ে যাচ্ছে। গেরস্থ ও তার বউ জেগে উঠে দেখছে। বউ বলছে, কী গো, বস্তা ভরে তো সব নিয়ে যাচ্ছে। গেরস্থ বউকে দেখি চোর এরপর কোনটা নেয়। শেষে চোরের যখন সব নেওয়া শেষ গেরস্থেরও দেখা ফুরাল। নটে গাছটি মুড়াল, আমার গল্প ফুরাল।

সবাই ভালো থাকবেন। আগামি উইকেন্ড এর শুভেচ্ছা।