ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

“বৃহস্পতিবার (২২/০১/২০১৫) সন্ধ্যা থেকে ও এবং এ লেভেল পরীক্ষার্থীদের যানবাহন অবরোধ ও হরতালের আওতামুক্ত রাখার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। জানিয়েছেন বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান” (৭১.টিভি, ২১/০১/২০১৫, সময় সন্ধ্যা ৯. ০০)। এর আগেও আমরা বিএনপি’র এধরনের দায়িত্বশীলতা ও ‘ও/এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের জন্য সদয় হওয়া ও সমবেদনা বা হামদরদ দেখেছি। এতে আমরা বিএনপিকে ধন্যবাদ জানাই।

কিন্তু আমরা এর উল্টো বা অন্যথা দেখেছি পিএসসি, জেএসসি ও এএসসি পরীক্ষার সময়, দেখেছি স্বয়ং দুই দফা বিশ্বেএজতেমার সময়ও। ‘ও এবং এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের জন্য যেমন বিএনপি’র হামদরদ ও দায়িত্বশীলতা তা যদি পিএসসি, জেএসসি ও এএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য দেখতাম, দুই দফা বিশ্বেএজতেমার মতো ধর্মীয় সামবেশের সময়ও দেখতাম, তা হলে আমাদের কাছে প্রশ্নটি জাগত না। বিএনপি তো পিএসসি, জেএসসি ও এএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য সামান্যতম ছাড়ও দিতে চায়নি, দেখায়নি সামান্যতম দরদ ও দায়িত্বশীলতা। তাই প্রশ্ন জাগে: কেন বিএনপি শুধু ‘ও এবং এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের জন্য সদয়? কিন্তু কেন বিএনপি পিএসসি/জেএসসি ও এএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য নির্দয়?

বিএনপি ও এবং এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের জন্য যেমন বিএনপি’র দরদের কারণ কি এজন্য যে –

  • এটি পরিচালিত হয় বিদেশী শিক্ষা সংস্থা/প্রতিষ্ঠান কর্তৃক?
  • এই পরীক্ষার্থীরা একটি বিশেষ তথা উচ্চতম বিত্ত ও বৃত্তের শ্রেণির সমাজের?

বিএনপি পিএসসি, জেএসসি ও এএসসি পরীক্ষর্থীদের জন্য সামান্যতম ছাড়ও দিতে চায়নি, দেখায়নি সামান্যতম দরদ ও দায়িত্বশীলতা দেখায়নি কি এজন্য যে –

  • এটি পরিচালিত হয় বাংলাদেশ কর্তৃক?
  • এই পরীক্ষার্থীরা একটি বিশেষ তথা উচ্চতম বিত্ত ও বৃত্তের শ্রেণির সমাজের নয়?

হতে পারে এর বাইরে অন্য কোনো কারণেও বিএনপি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে ও এবং এ লেভেল পরীক্ষার্থীদের যানবাহন অবরোধ ও হরতালের আওতামুক্ত রাখার ঘোষণা দিয়েছে। হতে পারে অনেক কিছু। কিন্তু কীভাবে বিএনপি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে ‘ও এবং এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের যানবাহন অবরোধ ও হরতালের আওতামুক্ত রাখবেন? কীভাবে বুঝবেন কোনটি ‘ও এবং এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের যানবাহন কোনটি অন্যদের? বিএনপি কি ‘ও এবং এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের যানবাহনে স্টিকার লাগিয়ে দেবেন?

আরো কিছু ভাইটাল প্রশ্ন:

যদি ‘ও এবং এ লেভেল পরীক্ষার্থীদের যানবাহন অবরোধ ও হরতালের আওতামুক্ত রাখা যায়, তাহলে নিরপরাধ, রাজনীতির লেবেলমুক্ত সাধারণ মানুষ, শিশু প্রমুখ মানুষদেরকে অবরোধ ও হরতালের আওতামুক্ত রাখা হবে না কেন? কেন তাদের নিরাপত্তা দেওয়া হবে না? কী অপরাধ নিরপরাধ, রাজনীতিমুক্ত সাধারণ মানুষ ও নিষ্পাপ শিশুদের?

বিএনপি’র নামের সাথে বাংলাদেশ আছে। আছে জাতীয়তাবাদী কথাটা। তাই শুধু তাদের বিদেশী শিক্ষা সংস্থা/প্রতিষ্ঠান কর্তৃক পরিচালিত ‘ও এবং এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের জন্য হামদরদী হলে চলবে না। শুধু একটি বিশেষ তথা উচ্চতম বিত্ত ও বৃত্তের শ্রেণির সমাজের পরীক্ষার্থীদের জন্য হামদরদী হলে চলবে না।

বিএনপি’র নামের সাথে বাংলাদেশ আছে। আছে জাতীয়তাবাদী কথাটা। তাই বিএনপিকে পিএসসি, জেএসসি ও এএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্যও পরীক্ষার্থীদের জন্যও হামদরদী হওয়া উচিত।  যারা বিশেষ তথা উচ্চতম বিত্ত ও বৃত্তের শ্রেণির সমাজের নয় তাদের জন্যও হামদরদী হওয়া উচিত।

বিএনপি’র ডাকা অবরোধ-হরতালে মানুষ জ্বলে-পুড়ে মরছে, কষ্ট পাচ্ছে; যেই ছুঁড়ে মারুক পেট্রোল বোমা, যেই পোড়াক গাড়ি মানুষের শরীর সেটা কেউ ভাবছে না। দায়ী করছে  বিএনপিকে অবরোধ-হরতাল ডেকে সুযোগ করে দেওয়ার জন্য, জ্বলে-পুড়ে মরা মানুষগুলো এবং কষ্ট পাওয়া ও আতঙ্কিত মানুষদের জন্য হামদরদী না হওয়ার জন্য। বিএনপিকে এই দায়মুক্ত হওয়া দরকার। কারণ বিএনপি একটি বৃহৎ দল। তাদেরকে শুধু বিদেশী শিক্ষা সংস্থা/প্রতিষ্ঠান কর্তৃক পরিচালিত ‘ও এবং এ’ লেভেল পরীক্ষার্থীদের জন্য হামদরদী হলে চলবে না। শুধু একটি বিশেষ তথা উচ্চতম বিত্ত ও বৃত্তের শ্রেণির সমাজের পরীক্ষার্থীদের জন্য হামদরদী হলে চলবে না। বিএনপিকে পিএসসি, জেএসসি ও এএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্যও পরীক্ষার্থীদের জন্যও হামদরদী হওয়া উচিত।  যারা বিশেষ তথা উচ্চতম বিত্ত ও বৃত্তের শ্রেণির সমাজের নয় তাদের জন্যও হামদরদী হওয়া উচিত। বিএনপিকে হামদরদী হওয়া উচিত জ্বলে-পুড়ে মরা মানুষগুলো এবং কষ্ট পাওয়া, ও আতঙ্কিত মানুষদের জন্যও।