ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

১. আসলেই কি বিএনপি শিশু জিহাদের মতো পাইপে আটকা পড়েছে(?) যেমনটি মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের শিক্ষক আসিফ নজরুল? তিনি বলেন, ‘বিএনপি শিশু জিহাদের মতো পাইপে আটকা পড়েছে। আর যারা বিএনপিকে উদ্ধারের চেষ্টা করছে তারা ফায়ার সার্ভিসের কর্মী। বিএনপিকে উদ্ধারের জন্যওই সব তরুণদের মতো সাহসী কর্মী দরকার।’ আসিফ নজরুল বিএনপির তথা খালেদা জিয়া পরিচালিত বিএনপির সমস্যাটা যে বোঝেন তার প্রমাণ তাঁর বক্তেব্যের মধ্যেই রয়েছে। তিনি বলেছেন, “বিএনপিকেউদ্ধারের চেষ্টা করছে তারা ফায়ার সার্ভিসের কর্মী”।তাই তিনি বিএনপিকে উদ্ধারের জন্যওই সব তরুণদের মতো সাহসী কর্মী দরকার।বলেও দাবি বা আহ্বান করেছেন। কিন্তু প্রশ্ন হল তরুণরা জামাতের সাথে গাঁটছড়া বাঁধা ও আরও নানান দেশপ্রেমহীন, নামে জাতীয়তাবাদী কাজে জাতীয়তাবোধের পরিপন্থী একটি দলকে উদ্ধারের জন্য এগিয়ে আসবে কেন? জিহাদের পাইপে আটকে পড়ার সাথে বিএনপি-র তুলনা করা যতটা সঠিক, ততটাই ব্যক্তি শিশু নিষ্পাপ জিহাদের তুলনা করাটা ভুল। শিশুকে সব সময় অগ্রাধিকার দিতে হয়। তরুণরা তাই অগ্রাধিকার দিয়েছে। শত শত তরুণ ছুটে এসেছে। লাখো-কোটি মানুষ জিহাদের জন্য দোয়া করেছে। কিন্তু বিএনপি তো জিহাদ নয়, উল্টো। বিএনপির জন্য কেউ ছুটে আসে না। বিএনপি-র নেত্রীর ডাকে কেউ ছুটে আসে না। তেঁতুল হুজুর দল যখন শাপলা চত্বরে জমায়েত হয়েছিল, তখন বিএনপি-র নেত্রীর ডাকে কেউ ছুটে আসেনি। যখন বালুর ট্রাক দিয়ে তাঁকে আটকে দিয়েছিল, সারাদেশে কেউ ছুটে আসেনি। আসলে শিশু জিহাদের সাথে ব্যক্তি ও দল হিসেবে নেতানেত্রী ও বিএনপিকে তুলনা করার মতো ভুল করে কোনো দাবি বা আহবান করলে তাতে সাড়া পাওয়া যাবে না।

বিএনপি পাইপে আটকা পড়লেও শিশু জিহাদ আর বিএনপি এক নয়? তরুণরা শিশু জিহাদকে উদ্ধারে এগিয়ে যাবে ঝাঁপিয়ে পড়বে, সারা দেশ কাঁদবে, দোয়া করবে, কিন্তু বিএনপিকে উদ্ধারের জন্য তরুণরা এগিয়ে যাবে না, দেশ এগিয়ে আসবে না। কারণ শিশু জিহাদ আর বিএনপি এক নয়। তাই আসিফ সাহেব, আপনাদের বিএনপি পাইপে আটকা পড়েছে, বিএনপি উদ্ধারের চেষ্টা আপনাদের দলের ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদেরই করতে হবে।

জিহাদকে উদ্ধারে দেরি হওয়ায় তাকে জীবিত উদ্ধারের সম্ভাবনা কমে গেছে। জানি না, বিএনপি কপালে কী আছে? এখানেও তুলনাটা ভুল। বিএনপি একটি বড় দল। বিএনপি’র ক্ষতি হবে কিন্তু জিহাদের মতো মৃতলাশ হওয়ার ভয় নেই। বিএনপি বেঁচে থাকবে।

২. নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বেগম খালেদা জিয়াকে বিএনপি কার্যালয়ে আটকে রাখা প্রসঙ্গে বলেন,বালুর ট্রাক দিয়ে তাকে চিরদিন আটকে রাখা যাবে না। এই অন্যায় অত্যাচারের বিরুদ্ধে দেশের সাধারণ মানুষ যখন ঝাঁপিয়ে পড়বে তখন সরকারের কোনো বাহিনীইকাজে আসবে না।’তিনিই আবার রাজপথে বিএনপির কোনো আন্দোলন নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এতো জনপ্রিয় একজন নেত্রীকে অবরুদ্ধ করে রাখা হলো, অথচ এখন পর্যন্ত বিএনপির নেতা-কর্মীদের কোনো কার্যক্রম দেখা গেল না!’

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ভাই, আপনি এত কিছু বোঝেন এটা বোজঝন না কেন যে ‘এতো জনপ্রিয় একজন নেত্রীকে অবরুদ্ধ করে রাখা হলো, অথচ এখন পর্যন্ত বিএনপির নেতা-কর্মীদের কোনো কার্যক্রম দেখা গেল না!’ আপনার বিস্ময় কি প্রমাণ করে আপনি রাজনৈতিক পরিস্থিতি করতে পারেন না? আমি এরকমটা বিশ্বাস করতে পারলে ভালো হত। কিন্তু আমরা এতটা বোকার মতো আপনাকে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি বুঝতে অক্ষম বিস্মিত দেখে আমরাও বিস্মিত। আসলে আপনারা যা ভাবছেন, তরুণরা তা ভাবছে না।

তরুণরা বোকা নয় বোকা বানানোও যাবে না আর।একটা মিথ্যা গল্প দিয়ে কত দিন বোকা বানানো যায় জাতিকে? অসম্ভব। তরুণরা ঘুমিয়েও যে নেই তাও তো বুঝতে পারছেন। প্রয়োজনের সময় কারো ডাকার প্রয়োজন হয় লাখে লাখে নেমে আসে রাস্তায়। গণজাগরণ, জিহাদের উদ্ধার একটি জাতিরে ইতিহাসকে দায়মুক্তির জন্য, অন্যটি দেশের একটি নিষ্পাপ শিশুর উদ্ধারে তরুণরা কীভাবে ঝাপিয়ে পড়েছিল স্মরণ করুন। বেশি দিন তো আগের নয়। এসব ঘটনা থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিত। কিন্তু এসব সামাজিক ও জাতীয় ইতিহাস থেকে কেউ যেহেতু শিক্ষা নেয় না্। তাই তাদের এরকমই জনাব আসিফ নজরুলে প্রতীকী পাইপের মধ্যেই বিএনপিকে আটকে থাকতে হবে আরও অনেক দিন, কোনো তরুণ তাদের উদ্ধারে এগিয়ে আসবে না; আর মান্না ভাইয়ের বিস্ময়  ‘এতো জনপ্রিয় একজন নেত্রীকে অবরুদ্ধ করে রাখা হলো, অথচ এখন পর্যন্ত বিএনপির নেতা-কর্মীদের কোনো কার্যক্রম দেখা গেল না!’ সত্যিই দেখা যাবে না। যেমন দেখা যায়নি, তেঁতুল হুজুর দল যখন শাপলা চত্বরে জমায়েত হয়েছিল, তখন বিএনপি-র নেত্রী ডাক দিয়েছিলেন, কেউ ছুটে আসেনি। যখন বালুর ট্রাক দিয়ে তাঁকে আটকে দিয়েছিল, সারাদেশে কেউ ছুটে আসেনি। আসলে শিশু জিহাদের সাথে ব্যক্তি ও দল হিসেবে নেতানেত্রী ও বিএনপিকে তুলনা করার মতো ভুল করে কোনো দাবি বা আহবান করলে তাতে সাড়া পাওয়া যাবে না। বিএনপি’র জন্য মায়াকান্নায় কোনো সমবেদনা পাওয়া যাবে না। নাগরিক ঐক্যের আহ্বান দিয়ে যান একসময় মানুষ শুনতে পারে। একসময় তরুণরা ডাকে সাড়া দিতে পারে।