ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

সমাজে নীতিহীনতার প্রকাশ্য প্রতিযোগিতা চলছে। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী মানুষের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় কে কত বড় টাউট, কে কত বড় ছেঁচড়া, কে কত বড় লাইনবাজ … কে কত বড়.. কে কত বড়…. কে কত বড় তা দাবি করছে তারা সামাজিক দক্ষতা ও সামাজিক যোগ্যতা ও গুণাবলি হিসেবে। একটা প্রদর্শনী চলছে সমাজে।
এর বিপরীত সারিতে আপনি? তাহলে আপনার সামাজিক দক্ষতা ও সামাজিক যোগ্যতা ও গুণাবলির অভাব আ্ছে।
আফসোস সমাজে কোনো কোচিং সেন্টার নেই যোগ্য নীতিহীন হওয়ার জন্য, দক্ষ ও যোগ্য টাউট, বাটপার, ছেঁচড়া ও লাইনবাজ হওয়ার জন্য।
মনে হয় গোটা সমাজটাই একটা কোচিং সেন্টার যোগ্য নীতিহীন হওয়ার জন্য, দক্ষ ও যোগ্য টাউট, বাটপার, ছেঁচড়া ও লাইনবাজ হওয়ার জন্য।
সমাজে আমরা দেখছি, নীতিহীন টাউট, বাটপার, ছেঁচড়া ও লাইনবাজরাই সফল হচ্ছে। তাদের অধিকারেই যাচ্ছে সবকিছু। ফলে এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে নীতিহীন টাউট, বাটপার, ছেঁচড়া ও লাইনবাজরাই সমাজের রোল মডেল, আমাদের সমাজের আইডল।
নীতিহীন টাউট, বাটপার, ছেঁচড়া ও লাইনবাজরা বিকৃত হেসে নীতির শিক্ষা দিচ্ছে। শিক্ষার্থীরা শিখছে সফল যদি হতে হয় নীতিহীন টাউট, বাটপার, ছেঁচড়া ও লাইনবাজ গুরুকেই অনুসরণ করো তার মতো হও।
সবাই জানে সমাজের সফল মানুষদের চরিত্র। তারা কীভাবে বর্তমান অবস্থানে এসে পৌঁছেছেন-নীতিহীনতা, টাউটামি, বাটপারি, ছেঁচড়ামি ও লাইনবাজির মাধ্যমে। তাহলে তাদেরকেও নীতিহীনতা, টাউটামি, বাটপারি, ছেঁচড়ামি ও লাইনবাজিতে দক্ষতা ও যোগ্যতার অনুশীলন ও শীর্ষতার প্রমাণ দিতে হবে।
যারা সন্মানিত নীতিহীন টাউট, বাটপার, ছেঁচড়া ও লাইনবাজ তারা বলেন, নীতিহীনতা, টাউটামি, বাটপারি, ছেঁচড়ামি ও লাইনবাজি সমাজে সব সময় ছিল, যারা ইন্টেলিজেন্ট তারা মাথা খাটিয়ে বুদ্ধি দিয়ে চতুরতা দিয়ে বিষয়গুলো আয়ত্ত করে তরতর করে উপরে উঠে যায় আর যারা পারে না, তারা এ বিষয়ে সমালোচনা করে। সুতরাং সমাজে নীতিহীনতা, টাউটামি, বাটপারি, ছেঁচড়ামি ও লাইনবাজি নতুন কিছু নয়। এটা আছে থাকবে। প্রয়োজনে আরও বাড়বে।
সমাজে নীতিহীনতা কমানোর জন্য সমাজবিজ্ঞানীরা কি দায় বোধ করেন না?