ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

আমার ছেলে আগামি দিন যদি ঈদ হয় উদযাপন করবে সেজন্য মানসিকভাবে তৈরি হচ্ছে। কিন্তু টিভিতে দেশের কয়েকটি জেলায় ঈদ অনুষ্ঠিত হওয়ার ছবি দেখে কনফিউজড ও কিছুটা ক্ষুব্ধ। কারণ তার আগেই ওরা ঈদ উদযাপন করে ফেলছে। তাকে “কেন” প্রশ্নের উত্তর দিতে, ব্যাখ্যা করে বোঝাতে গিয়ে আমি হিমসিম খাচ্ছি। হিমসিম বড় কূল এন্ড ডিজগাস্টিং খাবার। উইকেন্ডে ও ঈদের ছুটিতে ছেলের প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে হিমসিম খেতে গিয়ে বুঝলাম, ইহা বড় কষ্টকর খাবার।

একটা ধর্মের অনুসারী, মুসলিম, ঐকমত্যের অভাবে দুদিনে ঈদ তা ছোট শিশুর কাছে ব্যাখ্যা দিতে হচ্ছে। শিশুটি প্রারম্ভিক শৈশবে আমাদের ধর্মের অনুসারীদের ঐকমত্যের অভাব দেখে বড় হচ্ছে। বাবা হিসেবে আমার কাছে খুবই দুঃখজনক।

ইমাম সাহেব ও ধর্মীয় জ্ঞানী ব্যক্তিগণ বসে ঐকমত্যে এলেই ভালো হত। এরকম একটি বিষয়ে সুরাহা করতে পারেন না তাঁরা, অনৈক্য প্রদর্শন করবেন দেশজুড়ে, বিষয়টি আমাদের জন্য অপমানজনকও বটে।

ধর্মীয় জ্ঞানী ব্যক্তিগণ বসে ঐকমত্যে এলেইে আমরা খুশি হবো।

সবাইকে ঈদ মোবারক।