ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

পুলিশই যদি বিচার প্রার্থী নারীর ইজ্জত লুটে তবে….? তবে কী? কিছুই না। বাবা- মায়ের সামনেই মেয়ের শ্লীলতাহানি। প্রতিবাদ করতে গিয়ে মার খেয়ে আইনজীবী-সাংবাদিক মাটিতে লুটিয়ে পড়ল..। তারপর…? এই হবে সেই হবে, শেষমেষ কিছুই হবে না।

সারা দেশে পুলিশি তান্ডব, বর্বরতা মানুষের সহ্য সীমা অতিক্রম করেছে। সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, লুটপাট, দুর্নীতি, হত্যাসহ নানা ধরনের কুকর্ম প্রায় প্রতিদিন সংবাদপত্রে ছাপা হয়। তার সাথে তাদের প্রতিদিনের শারিরীক কসরত (বিশেষ করে সাংবাদিক পেটানো), না করলে যেন সকলের নাস্তাই হজম হয় না। পুলিশের আচরণ এতটাই বেপরোয়া যেখানে কেউই নিরাপদ নয়। লাল কাপড় দেখলে যেমন গরু চেতে সাংবাদিক দেখলেই পুলিশের তেমন কোনও অনুভূতি হয় কিনা না জানিনা।

সাহারা খাতুনের প্রত্যক্ষ মদদেই পুলিশের এতটা বাড় বেড়েছে। একবার দুইবার হলে মানা যেত, বার বার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি এটাই প্রমাণ করে যে, সাহারা নিজেই এতটা বেড়েছে যতটা পুলিশ। না হলে একের পর এক কেন একই ঘটনা ? যদি সাহারার প্রত্যক্ষ মদদে না হয় তাহলে স্পষ্ট বুঝে নেয়া যায়, উনাকে কেউ মানে না, শোনে না। কারো উপর এতটুকু জোড় খাটানোর মুরদ নাই। উনি এবং টুকু যেভাবে পুলিশের আকাম- কুকামের সাফাই গায় তাতেই বুঝা যায় কাদের ছায়াতলে পুলিশ এত বেরেছে। এরা মন্ত্রীত্বের অযোগ্য। দেশের এই নাজুক অবস্থার জন্য তাদের পদত্যাগ করা উচিত, বিচার এবং শাস্তি হওয়া উচিত। তাদের মেয়াদেরও শেষ আছে, আর তো কটা দিন।

ব্যাপারটা এখন এমন হয়ে দাড়িয়েছে, কেউ ছুরি মারলেও মানুষ পুলিশের কাছে যেতে ভয় পায়। কী না কী ভেজালে পড়তে হবে কে জানে। বাবা মায়ের সামনে থেকে জোর করে রুমের মধ্যে নিয়ে এক তরুণীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করা হল। তাও আবার আদালত পাড়ায়। এর চেয়ে ভয়াবহ ঘটনা আর কী হতে পারে ? আদালতের চেয়ে নিরাপদ জায়গা দেশে আর কোথায় হতে পারে?

আমি জানি না, এই ধরনের লেখলেখির কারণে আজ রাতে আমাকে পুলিশ তুলে নিয়ে যাবে কিনা ? গুম করে ফেলবে কিনা? অথবা পিটিয়ে আধমরা করে রাস্তায় ফেলে রাখবে কিনা? যারা সাহারা এবং পুলিশ নিয়ে নিয়ে লিখে তারা কেউই জানেনা। আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভীত নই। কোনও ব্লগার ভীত নয়। কোনও সাংবাদিক ভীত নয়। আমরা লিখব, শরীরের শেষ রক্ত পর্যন্ত লড়াই চলবে।

শাহরিয়ান আহমেদ
30.05.2012

ছবি: বিডিনিউজ24।