ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

 

আজ আমাদের প্রিয় কবি ,জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৩৬তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৮৩ সালে এই দিনে পিজি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। অনেক কষ্ট নিয়ে আজ আমি আমার এই পোস্ট লিখছি। অনেক কষ্টের সাথে বলতে হচ্ছে কবির মৃত্যুবার্ষিকীর খবর আমাদের জাতীয পত্রিকাগুলি এমন দায়সারা ভাবে প্রকাশ করেছে যে আমি নিজের কাছেই লজ্জা পাচ্ছি। একটা পরিসংখান দিতে চাচ্ছি যেমন এই খবর প্রথম পাতায় সিঙ্গেল কলামে লিখেছে নয়া দিগন্ত, ইত্তেফাক, আমার দেশ ও সমকাল, শেষের পাতায় এনেছে প্রথম আলো, যুগান্তর ও কালের কন্ঠ। শুধুমাত্র সমকাল পত্রিকা টি বিশেষ সংকলন প্রকাশ করেছে। এখানে লক্ষনীয় যে আমাদের পত্রিকাগুলি কত আজে বাজে খবর ও এমন কি অনেক সময় পৃষ্ঠা জুড়ে প্রকাশ করে, অতছ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৩৬তম মৃত্যুবার্ষিকীর খবরের জন্য পত্রিকাই কোন জায়গা থাকেনা। এই তো কয়েকদিন আগে কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মবার্ষিকী নিয়ে আমাদের প্রগতিশীল পত্রিকাগুলোর মাতামাতির কোন শেষ ছিল না। বিভিন্ন পত্রিকাগুলোর পৃষ্ঠাজুড়ে কবি বন্দনা ছিল আর আমাদের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের প্রতি সীমাহীন অবহেলা। কিন্তু কেন?

আমার প্রিয় ব্রগার হাসান ভাইযের কথায় বলতে হয়
“ধিক্কার জানাই এসব মিডিয়াকে: অর্ধনগ্ন নায়িকা-গায়িকা-নর্তকী-নটিনী এমনকি সানি লিয়েনদের ঢাউস রঙিন ছবি ছাপানোর জায়গার অভাব হয় না। কিন্তু মহৎ কিংবদন্তীর মৃত্যুবার্ষিকীর খবরটিও ঠাঁই পায় না! যে দেশে গুণীর সম্মান দেয়া হয় না, সে দেশে কখনো গুণী জন্মায় না। নজরুলকেই যদি ভুলিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে আমাদের নতুন প্রজন্ম কাদের অনুসরনে বড় হবে???”

হে মহান কবি আমাদের এই বেয়াদবীকে তুমি ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখ। আমরা পারিনি তোমায় সন্মান জানাতে তাপর ও মনে রেখ, তুমি রয়েছ কোটি, কোটি পাঠকের হৃদয়ে এবং থাকবে……অনন্ত কাল…..