ক্যাটেগরিঃ ব্লগ

 

সাত সকালে হিমালয়ের পাদদেশে বসিয়া যখন গুরুজী চক্ষু মুদিয়া সমগ্র দুনিয়ার হাল-হাকিকত অবলোকন করিতেছেন ঠিক সেই সময় কোথা হইতেযেন এক পাগলপ্রায় যুবক তাহার পদপ্রান্ত লুটাইয়া পড়িল এবং বিনয় করিয়া, কান্দিয়-কাটিয়া বলিতেছে গুরু আমার কান ধরে থাপ্পর দাও…… গুরু আমার কান ধরে থাপ্পর দাও……। গুরুজী যুবকের মুখপ্রাণে চাহিয়া আন্দাজ করিতে থাকিলেন ইহা কে হইতে পারে? অবশেষে যুবকের বুকে বঙ্গদেশি চিহৃ দেখিয়া বুঝিতে পারিলেন পাগলপ্রায় যুবকটি তাহার প্রিয় শিস্যে বোকাই, যাহাকে কিছুকাল পূর্ব তিনি তিনটি উপদেশ দিয়াছিলেন, যাহা ছিল নিম্নরুপ
০১) সদা সত্য কথা বলিবে।
০২) কথা ও কাজে মিল রাখিবে।
০৩) দেশকে ভালবাসিবে মাতার ন্যায়।
গুরুজী চিন্তা করিলেন এই তিনটি গুরুব্যাক্য যে কেও মানিয়া চলিলে তো মানুষ তাহাকে মাথায় করিয়া রাখিবে কিন্তু উহার এই অবস্থা কেন? গুরুজী উহাকে শান্ত করিয়া, পাশে বসাইয়া মাথায় হাত বুলাইয় প্রশ্ন করিলেন “বাছা,কেন তুমি আমাকে বার বার থাপ্পর মারিতে অনরোধ করিতেছ ? ” উত্তরে শিস্যে গান ধরিল….
আমি সন্যাসি (আহ্ আবুল) ও হইলাম না…
গাছ তলায় (মন্ত্রনালয়ে) ও বইলাম না।
হইলামনা তো নদের নিমাই (হলমার্কের এম.ডি)..।
হইলামনা তো নদের নিমাই,
মাঝ পথে,এসে ঘুমাই…..।
ছাগলের তিন নাম্বার ছাও
(আমজনতা)
গুরু আমার কান ধরে থাপ্পর দাও,
গুরু আমার কান ধরে থাপ্পর দাও……

গান শুনিয়া গুরুজী মৃদু হাসিয়া শিস্যের উদ্দেশ্য বলিলেন ওরে পাগল এবারও তুই গুরুর উল্টা বচন বুঝলি না। এবার গুরুজী গাওয়া শুরু করিলেন……

কোন এক উল্টো রাজা, উল্টো বুঝলি প্রজার দেশে
চলে সব উল্টো পথে, উল্টো রথে, উল্টো বেশে (২)
সোজা পথ পোড়ে পায়ে, সোজা পথে কেউ চলেনা
সোজা পথ পোড়ে পায়ে, সোজা পথে কেউ চলেনা
বাঁকা পথ জ্যাম হরদম, জমজমাট ভিড় কমেনা
কোন এক উল্টো রাজা, উল্টো বুঝলি প্রজার দেশে
চলে সব উল্টো পথে, উল্টো রথে, উল্টো বেশে

সে দেশে করে পাস এম এ,বি এ, কেরানির জীবন যাপন
করে পাস এম এ,বি এ, কেরানির জীবন যাপন
রাজনীতি করলেরে ভাই, ডিগ্রীর কি প্রয়োজন ?
জনগণ তুলে দেবে তোমার হাতে দেশের শাসন

সে দেশে, অর্থের কারচুপিতে সিদ্ধ যিনি -অর্থমন্ত্রী
দেশের শত্রু মাঝে প্রধান যিনি –প্রধানমন্ত্রী
সে দেশে ধার করে ভাই শোধে রাজা ধারের টাকা
মরে ভূত হল মানুষ, লোক দেখানো বৈদ্দি ডাকা
কোন এক উল্টো রাজা, উল্টো বুঝলি প্রজার দেশে
চলে সব উল্টো পথে, উল্টো রথে, উল্টো বেশে

সে দেশে, অবহেলায় যখন ফোকলা সংস্কৃতির মাড়ি
অবহেলায় যখন ফোকলা সংস্কৃতির মাড়ি
বিদেশি চ্যানেল তখন পৌঁছে যে যায় বাড়ি বাড়ি
আনন্দ, কি আনন্দ এসে গেছে কোকাকোলা
গেছে সব দেনার দায়ে বাকি আছে কাপড় খোলা
পায় না খেতে যারা গাইত খেয়াল,টপ্পা ঝানু
পায় না খেতে যারা গাইত খেয়াল,টপ্পা ঝানু
গেয়ে গান হচ্ছে ধনী রাম, শ্যাম আর কুমার পানু
কোন এক উল্টো রাজা, উল্টো বুঝলি প্রজার দেশে
চলে সব উল্টো পথে, উল্টো রথে, উল্টো বেশে

পারেনা ধরতে পুলিশ সত্যি অপরাধী, যারা বাড়ছে সুখে
নিরীহ প্রেমিক-প্রেমিকাদের ধরে, নিচ্ছে টাকা লেকের ধারে,পুজোর মুখে
এদিকে ধর্ম ধর্ম ধর্ম নিয়ে চলছে বামাল
ধর্মকে তোয়াজ করে সব শালারাই সাদা বা লাল
রাজা দেয় প্রতিশ্রুতি হ্যান কারেগা, ত্যান কারেগা
রাজা দেয় প্রতিশ্রুতি হ্যান কারেগা, ত্যান কারেগা
করেগা কচু, আসলে ব্যাটা পকেট ভারেগা