ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

সিঙ্গাপুরে একটি কাজের সময় একজন সিঙ্গাপুরিয়ান ইঞ্জিনিয়ারের সাথে পরিচয় হল । কথা প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করলাম । তাদের দেশে রাজনৈতিক অবস্থা সম্পর্কে । সে বলল দেশে সংসদে একজন বিরোধী সাংসদ আছেন ।সরকার ওই এলাকাতে সবচেয় বেশী উন্নয়ন কাজ করছে পরবর্তী নির্বাচনে জয় লাভ করার জন্য । তবে তিনি তার দেশে কয়টি বিরোধী দল আছে তা জানেন না । আমি এক বছর ছিলাম সিঙ্গাপুরে উচ্চতর শিক্ষালাভের জন্য । কোনদিন কোন রাজনৈতিক মীটিং দেখিনি।ছাত্ররা কোন রাজনৈতিক কাজে জড়িত না এমনকি দেশে প্রেসিডেন্টকে তাও অনেকে বলতে পারে না ।

জাপানের নির্বাচনের সময় ছিলাম ২ দিন । কোন প্রচারণা দেখলাম না । আমার জাপানি সহকর্মীকে জিজ্ঞাসা করলাম । তারা কি ভাবে জানবেন কারা কি উন্নয়ন করবে এবং কাকে ভোট দিবে ? বলল ওয়েব সাইট থেকে দেখে নিব !

কিন্তু আমাদের দেশের অবস্থা দেখেন । আমাদের জন্ম হয়েছে যেন রাজনীতি করার জন্য ।দিনমজুর হতে উচ্চপদে চাকুরে সবাই রাজনীতি নিয়ে সরব।কলেজ/ইউনিভার্সিটিতে কতটুকু পড়াশোনা হয় তা সবাই জানেন । অনেক দিন থেকে শুনছি শিক্ষাজ্ঞন থেকে রাজনীতি দূর হবে । কিন্ত যখন যারা ক্ষমতায় থাকেন কথাটা ভুলে জান । তবে আমার কাছে মনে হয় আমরা সাধারন জনগন সবচেয়ে বেশি দায়ী ।তারপর দায়ী সাংবাদিকরা ।আমারা খুব অল্প সময় অতিত ভুলে যাই।আর সাংবাদিকরা দিনকে রাত বানান নিজেদের সুবিধা অনুযায়ি । ডঃ কামালের মত বিজ্ঞ আইনজীবীও মুন্নি শাহাকে তেল মেরে চলেন !(ATN NEWS এ একটি টক শোতে দেখলাম)

আর নির্বাচনের সময় কি হয় তা আর নতুন করে কি বলব । মিছিল /মিটিং/সমাবেশ/পোস্টার/ভাড়াটে কর্মী । ইস্কুল/কলেজ/অফিস/আদালত কাজ বাদ দিয়ে রাজনীতি নিয়ে সরব আলোচনা । আর রাজনীতি সব খানে এমন ভাবে ঢুকে গেছে কোন অপরাধ করলেও রাজনৈতিক ধুয়া তুলে পার পেয়ে যায় (অস্ত্র সহ ধরা পড়া ১১ জন সর্বহারা এবং খুনের আসামি রাজনৈতিক বিবেচনায় মুক্ত) ।একবার ওএসডি হলে পরের সরকারের সময় প্রোমোশন ।এমনকি সামরিক বাহিনীতেও এরকম হয়।

আমি জানি অভিযোগ করা খুব সহজ ।কিন্তু সমাধান কি ? আমার কাছে তো নেই । তবে তথাকথিত বুদ্ধিজীবীদের কাছে আপনারা সব পাবেন । এমনকি আমেরিকার প্রেসিডেন্ট কার হওয়া উচিৎ তাও তারা বলতে পারেন । বাংলাদেশ টিমে ব্যাটিং অর্ডারও তারা বলে দেন । স্লগ ওভারে কে বোলিং করলে ভাল হবে তাও বলতে পারেন । কিন্তু যে কাজ তারা করতে পারেন না । তা হলো দেশের কাজে একতাবদ্ধ হতে ।