ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 
Khaleda-3

একটি গণতান্ত্রিক দেশে আন্দোলন করার অধিকার সকল দলের রয়েছে কিন্তু মানুষের ওপর আক্রমণ করার অধিকার কোনো দলের নেই । লড়াই সরকারের সাথে আর মারবে সাধারণ মানুষকে তা তো হতে পারে না। সাধারণ মানুষের ওপর আক্রমণের জন্য তিনিই দায়ী যার নির্দেশে এই মারমুখী অবরোধ হচ্ছে ।

যেহেতু যানবাহন চললে অবরোধ সফল হয় না, তাই যান-বাহন চলাচল জোর করে বন্ধ রাখার জন্য গাড়িতে বোমা মারা হয় এবং যাত্রীরা যাতে গাড়িতে না চড়ে সেই জন্য যাত্রীদেরকেও বোমা আক্রমণের আওতায় আনা হয় । যদি স্বেচ্ছায় বিএনপির ডাকা অবরোধে জনগণ অংশ গ্রহন করতো তাহলে হয়তো পেট্রোল বোমা মারার প্রয়োজন হতো না । কিন্তু বিএনপির জন্য সমস্য হলো মানুষ হরতাল অবরোধে সাড়া দিচ্ছে না ।

দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী কারো ওপর আক্রমন করা অপরাধ । যার নির্দেশে আক্রমণ হচ্ছে সেই প্রধান অপরাধী । সুপরিকল্পিত পেট্রোল বোমার আক্রমণ খালেদা জিয়ার নির্দেশেই হচ্ছে তাই খালেদা জিয়াই প্রধান অপরাধী । যেই কারণে বোমা দ্বারা আক্রান্তদের উচিৎ আদালতে গিয়ে খালেদা জিয়ার নামে মামলা করা । এই জাতীয় বিচার কার্যে বাদীর যত রকমের সহায়তার প্রয়োজন হবে তার ব্যবস্থা সরকার করবে ।

বিচার হয় না বলেই হরতাল-অবোরধের নামে বিরোধীরা মানুষের জীবন ও সম্পদ নষ্ট করার সাহস পাচ্ছে । বিরোধীরা অবশ্যই আন্দোলন করবে তবে মানুষের জীবন ও সম্পদ নষ্ট করে নয় ।