ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

maxresdefault (1)

মাদ্রাসা শিক্ষার ফলে দেশে ভিন্ন মতের মানুষ সৃষ্টি হচ্ছে যেই মানুষ গুলো দেশের রাজনীতি ও অর্থনীতির জন্য বিপদ জনক । মাদ্রাসা গুলোতে ইসলাম ধর্ম শিক্ষার নামে শিক্ষার্থীদেরকে মানবতা বিরোধী দীক্ষায় দীক্ষিত করা হচ্ছে। যার প্রমাণ এই মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা আজ মানবতা বিরোধী অপরাধীদের সব চেয়ে কট্টর সমর্থক । যদিও এই তরুণদের মুক্তিযুদ্ধের সাথে সরাসরি কোনো সম্পর্ক নেই । তারপরও তাঁরা পাগলের মতো স্বাধীনতা বিরোধী তথা মানবতা বিরোধী অপরাধীদের পেছনে দৌড়াচ্ছে ।

দেশের মূল স্রোত থেকে মাদ্রাসা শিক্ষা তরুণদেরকে দূরে সরিয়ে দিচ্ছে । মাদ্রাসার শিক্ষকরা ধর্ম শিক্ষার পাশাপাশি জেহাদের জন্য শিক্ষার্থীদের মগজ ধোলাই করে থাকেন অর্থাৎ ভিন্ন মতাবলম্বিদের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের খেপিয়ে তোলেন, যার ফলশ্রুতিতে এঁরা জঙ্গিবাদের দিকে পা বাড়ায় । এই ইসলামী জঙ্গিবাদ সারা পৃথিবীকে বৈষম্যের মুখে ঠেলে দিয়েছে, যেই বৈষম্যের শিকার সব চেয়ে বেশি মুসলমানরা । তার মানে হলো, জেহাদী জঙ্গীদের কারণে মুসলিমরাই অনেক বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ।

সকল ধর্মই বিদেশি, বিদেশিদের বুনা ফসল আজ আমাদের কাটতে হচ্ছে । তবুও যেহেতু দেশের প্রায় সব মনুষই কোনো না কোনো ধর্ম মানেন তাই বিজ্ঞান ও ইতিহাসের মতো ধর্ম বিষয়টাও স্কুল কলেজে ঠিক করে পাড়ানো যেতে পারে । নামে মাত্র ধর্ম না পড়িয়ে ভালো ভাবে পড়ানো উচিৎ । এবং উচ্চ শিক্ষার জন্য আর্টস, কমার্স, বিজ্ঞানের পাশাপাশি ধর্ম বিষয়ও রাখা যেতে পারে । সরকার দ্বারা অনুমোদিত ধর্মীয় বই পড়ে শিক্ষার্থীরা সঠিক পথেই থাকবে বলে আমার বিশ্বাস । ধর্ম শিক্ষা হতে হবে পুরোপুরি সরকারি নজরদারিতে ।