ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

বিপিএল

বাংলাদেশে অনেক বড় বড় ইভেন্ট হয়েছে কিন্তু বিপিএল-এর মাধ্যমে বাংলাদেশ যতটা প্রচার লাভ করেছে তা অভুতপূর্ব । বিদেশী মিডিয়া সব সময় বাংলাদেশের খারাপ দিক গুলোই প্রচার করতো এবারই প্রথম বাংলাদেশের পক্ষে ইতিবাচক প্রচারনা পরিলক্ষিত হচ্ছে । সত্যি আমার কাছে খুবই ভালো লাগে যখন বিদেশীরা আমার দেশের প্রশংসা করে । শুধু আমার নয়। সকল বাংলাদেশীদের ভালো লাগার কথা ।

বিতর্কিত দিক

এই খেলায় ব্যয় ও বিজনেসের বড় একটা ব্যাপার আছে তাই একে আকর্ষনীয় করতে আয়োজকদের কিছু বিতর্কিত ব্যবস্থা গ্রহন করতে হয়েছে । যেমন উর্দূ-হিন্দী ভাষায় গান করা ও হিন্দুস্তানি নর্তকীদের অর্ধ নগ্ন নৃত্য ইত্যাদি ।
বিতর্ক আমাদের জাতির সর্ব ক্ষেত্রে আছে । যেমন আমাদের মুক্তি যুদ্ধকে নিয়েও অনেকে ৪০ বছর ধরে বিতর্ক করে আসছেন । জাতির জনকে নিয়েও অনেকে বিতর্ক করেন ।

বিদেশীদের চোখে বিপিএল

বিদেশী টিভি চ্যানেল গুলো শত শত ডলার ব্যব করে বিপিএল সমপ্রচারের রাইট কিনেছে । পাকিস্তানের জিও সুপার টিভি চ্যানেলও এই খেলা দেখানোর রাইট ক্রয় করে বিপিএল-এর সকল অনুষ্ঠান ও খেলা দেখাচ্ছে । পাকিস্তানি চ্যানেল গুলো বিপিএল কে অত্যন্ত পজিটিভ ভাবে প্রচার করছে এবং বিপিএলকে সাধারন পাকিস্তানিরাও দারুন ভাবে গ্রহন করেছে । পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্যাপ্টেন সিকান্দার মির্জা আক্ষেপ করেই বললেন- ‘ আমরা যা এখনো ভাবছি বাংলাদেশ তা করে দেখিয়েছে, এই জন্য বাংলাদেশী ক্রিকেট বোর্ডকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি’ ।
কিন্তু দঃখের বিষয় আমাদের দেশের পাকিস্তান পন্থী স্বাধীনতা বিরোধীরা বিপিএল-এর বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে । যদিও জামাতীদের প্রাণের দেশ পাকিস্তান বিপিএল-এর পক্ষে আবস্থান নিয়েছে ।

অপ্রিয় দিক

যেই জাতি উর্দূ ভাষার বিরুদ্ধে আন্দোলন করলো, প্রাণ দিলো- সেই জাতির দেশে উর্দূ বা হিন্দী ভাষায় গান-বাজনা যুক্তি সঙ্গত নয় । এতে আমাদের মহান ভাষা আন্দোলন ম্লান হয়েছে । বাঙালিরা এখনো নিজেদের শিল্প, সংস্কৃতি তথা ভাষাকে বিদেশে জনপ্রিয় করতে না পারায় বিদেশে প্রাচার পেতে বিদেশী ভাষার সাহায্য নিতে হচ্ছে । এই ব্যাপারটা মোটেও সুখকর নয় । অবশ্যই এইখানটায় আমরা বাঙালিরা ব্যর্থ ।

তার পরও বিপিএল বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের মুখ উজ্জল করেছে যেই বিষয়টি আমাদেরকে গর্বিত করে ।