ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক commercial officer কে এই ভাবে বললেন “সালা, ঘুষের টাকা না দিয়ে যাবি কই?”

মৎস অধিদপ্তর চট্রগ্রাম (F.I.Q.C) এর Micro Biological Lab officer রুহুল আমিন। এই অফিস এর কিছু লোককে সরকার যেন ঘুষ খাওয়ার লাইসেন্স দিয়ে পাঠিয়েছে চট্টগ্রামে । বিদেশে মাছ Export করতে F.I.Q.C এর লাইসেন্স এবং সার্টিফিকেট প্রয়োজন হয়, তাই এখানে কিছু অফিসার সুযোগ নিয়ে লাইসেন্স এবং সার্টিফিকেট আটকিয়ে রাখে । টাকা ছাড়া তাদের কোন চাকা ঘুরে না । সরকার তাদের বেতন না দিলে ও চলবে Exporter রা তাদের বেতন প্রতি কনটেইনারে হাজার হাজার টাকা দিয়ে যাচ্ছে । (এই আমাদের সোনার বাংলাদেশ। ঘুষ ছাড়া আমরা কাজ করিনা শেষ) কী ভাবে বিদেশী রেমিটেন্স আসবে । তারাই তো আমাদের পথের কাটা । তারাই তো দেশের শত্রু । অথচ তাদের বিরুদ্দে বললে গুম হতে হয় । আমরা ব্লগার রা কী পারিনা তাদের বিরুদ্দে কথা বলতে ? আসুন সবাই তাদেরকে প্রতিহত করি । ঘুষ দুর্নীতি মুক্ত দেশ গড়ি। আমার সোনার বাংলাদেশ তৈরি করি।

(সবাই শেয়ার করুন )