ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

 

তখন আমি খুব ছোট..হঠাৎ একদিন খেলতে গিয়ে হাঁটুর কাছে ভাংগা শামুক লেগে কেটে যায়। সেদিন খুব কেঁদেছিলাম।বাবা সেদিন আমায় অনেক আদর করে গল্প বলেছিলেন। আমি ছোট্ট বিড়াল ছানার মত তার কাঁধে মাথা রেখে গল্প শুনছিলাম। বাবার কাছে আমি বোধহয় এখনো সেই ছোট্ট বিড়ালছানা…আমি এখন সাংবাদিক হিসেবে একটা দৈনিক পত্রিকাতে যোগ দিয়েছি। বাবা মাঝে মাঝে আঁতকে উঠেন যখন আমার মুঠোফোটা বন্ধ থাকে। স্ট্রোক করার পর বাবা এখন খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটেন। ছুটিতে যখন বাড়িতে যাই বাবাকে হাত ধরে হাঁটাই। আমি জানি বাবা অপেক্ষায় থাকেন এই সময়টার জন্য। আমিও থাকি অপেক্ষায় আমার ছোট্ট(বাবার বয়স ৫৫) বাবাকে নতুন করে পথ চলা শেখাতে।